ঢাকা, বুধবার 27 June 2018, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ১২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বেলকুচির বেতিল স্পার নির্মাণের ১৮ বছরেও মেলেনি ক্ষতিপুরণের টাকা: ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার আজুগাড়ায় বেতিল স্পার বাঁধে জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণের দাবীতে মানব বন্ধন

আব্দুস ছামাদ খান, বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) : সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের বেতিল-আজুগড়া ১ নম্বর স্পারটির ১৮ বছর আগে নির্মাণ কাজ শেষ হলেও এখনো মেলেনি জমির ক্ষতিপূরণের টাকা। ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের কাছে ধর্ণা দিয়েও পাননি কোন সমাধান। ক্ষতিপূরণের দাবিতে শনিবার বিকেলে বেড়িবাঁধের ওপর মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ভুক্তভোগীরা।
জানা যায়, যমুনার করালগ্রাস থেকে তাঁত শিল্প ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সিরাজগঞ্জ-এনায়েতপুর আঞ্চলিক সড়ক রক্ষায় ২০০০-২০০১ অর্থ বছরে বেতিল থেকে আজুগড়া পর্যন্তও ১ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ও স্পার তৈরি করে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড। পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের ক্ষতিপূরণ দেয়ার মৌখিক আশ্বাসে, বাঁধ তৈরিতে এলাকাবাসী তাদের জমি দেয়। কিন্তু বিগত ১৮ বছর আগে বেড়িবাধ আর স্পারের জন্য জমি লিখে দিলেও এখনো পায়নি ক্ষতিপুরণ। ক্ষতিপুরণের দাবিতে দীর্ঘ সময় ধরে পাউবো কর্মকর্তাদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন কাজ হচ্ছে না। শুধু মাত্র আশ্বাস দিয়ে ফিরিয়ে দিচ্ছে। জমি হারিয়ে অসহায় অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন ভুক্তভোগী কয়েকশো পরিবার।
ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক হাজী আব্দুল কুদ্দুস ও আছির উদ্দিন মোল্লা জানান, স্পার ও বেড়িবাঁধে জমি দিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছি।  সম্বল বলতে আর কিছুই আমাদের নেই। এখন জমি হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। কেউ আর আমাদের পাশে দাড়াচ্ছে না বরং নিজেদের ন্যায্য টাকা চাইতে গেলে হতে হচ্ছে হয়রানির শিকার। আরো বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে টাকা দেবার ব্যবস্থা না নিলে প্রয়োজনে আদালতের দ্বারস্থ হবো। এবং পাওনা টাকার দাবিতে আন্দোলন গড়ে তুলবো। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: আরিফুল ইসলাম জানান, বিষয়টি ১৮ বছর আগের। জমির মূল্যের কিছু বরাদ্দ ইতিমধ্যেই চলে এসেছে আর বাকি বরাদ্দ আগামী অর্থ বছরে আসার কথা রয়েছে। টাকা হাতে পেলে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে দিয়ে দেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ