ঢাকা, বুধবার 27 June 2018, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ১২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দাঙ্গাবাজ ও নারী নির্যাতনকারী শফিকুল অবশেষে চকরিয়ায় গ্রেফতার

আলীকদম (বান্দরবান) সংবাদদাতা: অবশেষে চকরিয়ায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে আলীকদমের নারী নির্যাতনকারী ও দাঙ্গাবাজ শিক্ষক শফিকুল ইসলাম। স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় জামিনে থাকাবস্থায় গত ঈদুল ফিতরের পূর্বের দিন রাতে (১৫ জুন) এ শিক্ষকের নেতৃত্বে হামলা চালানো স্ত্রী মামা রেজাউল করিমের ওপর। অভিযুক্ত শিক্ষকের নেতৃত্বে বর্বরোচিত এ হামলায় দা ও ছুরির আঘাতে রেজাউল করিম (৫০) ডান চোখের দৃষ্টি হারাতে বসেছেন। চকরিয়ার কাকারা ইউনিয়নের মাঝের ফাঁড়ি বাজারে সংঘটিত এ হামলার পর থেকে আত্মগোপনে ছিলেন হামলাকারি মাস্টার শফিক, মনির ও জহিরুল। এ ঘটনায় চকরিয়া থানায় মামলা রুজু হয়। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ গত বৃহস্পতিবার (২১ জুন) সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামী শফিকুল ইসলামকে চকরিয়া নিউ মার্কেটের সৌদিয়া ক্লথ স্টোর থেকে গ্রেফতার করে। হামলাকারীদের মধ্যে প্রধান আসামী শফিকুল ইসলাম আলীকদম উপজেলার থোয়াইচিং হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মনিরুল ইসলাম চৈক্ষ্যং ত্রিপুরা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। প্রধান আসামী শফিকুলের বিরুদ্ধে একাধিক নারী নির্যাতন, স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানি, বিকৃত যৌনাচার ও দাঙ্গা-হাঙ্গামার মামলা রয়েছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি আলীকদম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা রুজুর অভিযুক্ত শিক্ষকদ্বয়কে বান্দরবান জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তদন্ত শেষে গত ১০ এপ্রিল ১৪৭ নম্বর স্মারকের অফিস আদেশে সাময়িক বরখাস্ত করেন।
এদিকে, গত ২৫ মে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধিত ২০০৩) ১১(গ)/৩০ ধারায় চার্জশীট দাখিল করেছেন আলীকদম থানার অফিসার ইনচাজ (ওসি)। মামলা, চাকুরি থেকে সাময়িক সাসপেন্ড ও পুলিশের চার্জশীট দেওয়ার পর থেকে শিক্ষক শফিকুল ইসলাম ও মনিরুল ইসলাম বাদী জয়নব আরা বেগম, তার দুই ভাই, নিকটাত্মীয়-স্বজন ও মামলার সাক্ষীদেরকে মারধর ও খুন করবে মর্মে প্রকাশ্য হুমকী দিতে থাকে। এছাড়াও মামলার বাদী, তদন্তকারী কর্মকর্তা, ওসি ও স্থানীয় সাংবাদিকদের চরিত্রহনন করে শিক্ষক শফিকুল এলাকায় লিফলেট বিতরণ ও ফেসবুকে মিথ্যাচার করে আসছিলেন।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বখতিয়ার উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, রেজাউল করিমের উপর হামলার ঘটনায় মামলা নেওয়া হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে থানার উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ আলমগীরের নেতৃত্বে সংগীয় পুলিশ গত বৃহস্পতিবার (২১জুন) সন্ধ্যা ৬টার দিকে অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামী শফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে ২২ জুন আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ