ঢাকা, বৃহস্পতিবার 28 June 2018, ১৪ আষাঢ় ১৪২৫, ১৩ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইসরাইলকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ঘোষণা করল বলিভিয়া

২৭ জুন, মিডল ইস্ট মনিটর : গাজার উপত্যকায় ঘরে ফেরার বিক্ষোভ নিরপরাধ ফিলিস্তিনীদের নির্বিচার হত্যার দায়ে ইহুদিবাদী ইসরাইলকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করেছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ বলিভিয়া।

কাজেই এখন থেকে বলিভিয়া সফরে যেতে হলে ইসরাইলি নাগরিকদের আগে ভিসা পেতে হবে।

এর আগে ১৯৭২ সালে দেশটির একনায়ক শাসন আমলে সই করা চুক্তি অনুসারে ইসরাইলী নাগরিকদের বলিভিয়া সফরে ভিসা লাগত না।

এখন থেকে ইসরাইলকে গ্রুপ-৩ দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হবে। সে ক্ষেত্রে বলিভিয়ার জাতীয় অভিবাসন প্রশাসন ইসরাইলি নাগরিকদের ভিসা আবেদন পর্যালোচনা করে দেখবে।

মোরালেস বলেন, অন্য অর্থে ইসরাইলকে একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করছি। ইসরাইল জাতিসংঘ সনদের উদ্দেশ্য কিংবা নীতিমালার প্রতি কোনো সম্মান প্রদর্শন করেনি। এমনকি মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক ঘোষণার প্রতিও তাদের কোনো সম্মান নেই।

২০০৯ সালে অবৈধ ইহুদি রাষ্ট্রটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কোচ্ছেদ করে বলিভিয়া। এ ছাড়া ফিলিস্তিনিদের প্রতি ইসরাইল যা করছে, সেটিকে গণহত্যা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। তরুণ ইসরাইলীদের কাছে দক্ষিণ আমেরিকা খুবই জনপ্রিয় ভ্রমণস্থল।

অর্ধেকের বেশি ইসরায়েলী সেনা গাঁজাখোর : অর্ধেকের বেশি ইসরায়েলি সেনা গাঁজাখোর বলে এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। দেশটির সামরিক বাহিনীর অন্তত ৫৪.৩ শতাংশ সদস্য নিয়মিত গাঁজা সেবন করে বলে জানিয়েছে ইসরায়েলী দৈনিক ‘ইয়েদিওথ আহরনোথ’। ২০০৯সালে এর হার মাত্র ১১ শতাংশ ছিল বলে সংবাদমাধ্যমটি দাবি করেছে।  ‘আমাদের সেনা কমান্ডার, সাধারণ সৈন্য, কর্মচারী, হাসপাতালের ডাক্তারসহ সবাই গাঁজা খায় তাহলে বিচার করবে কে?’ এমন একটি মন্তব্য করেছে দেশটির সামরিক বাহিনীরই একজন সদস্য।

পত্রিকাটি জানিয়েছে, ইসরায়েলী মাদক বিরোধী সংস্থা (আইএডিএ) সামরিক বাহিনীর সদস্যদের গাঁজা সেবনের ওপর একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে। সংস্থাটির প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে ২০০৯ সালের পর থেকে দেশটির সেনা বাহিনীর মাদক সেবনের মাত্রা উদ্বেকজনকভাবে বেড়ে গেছে। এমন কি দায়িত্বরত অবস্থায় অথবা অন্তত ৫ বার গাঁজা সেবনের পরও তাদের বিচারের আওতায় আনা হয়না বলে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, দেশটিতে গাঁজা সেবন নিষিদ্ধ না হলেও সরাসরি বৈধও নয়, অপরাধের উদ্দেশ্যে গাঁজা সেবন করলে জরিমানার বিধানও রয়েছে। আগে সামরিক বাহিনীতে গাঁজা সেবন মারাত্মক অপরাধ ছিল এমনকি জেল জরিমানাও হত। কিন্তু ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে কিছু নীতিমালা সংস্কার করে দায়িত্বের বাইরে অন্তত ৫বার পর্যন্ত মাদকটি সেবন বৈধ করা হয়েছে বলে পত্রিকাটির বরাতে জানানো হয়েছে। মিডল ইস্ট মনিটর

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ