ঢাকা, শনিবার 30 June 2018, ১৬ আষাঢ় ১৪২৫, ১৫ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে আজ মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স

রফিকুল ইসলাম মিঞা : রাশিয়া বিশ্বকাপের জমজমাট দ্বিতীয় রাউন্ড শুরু হচ্ছে আজ। নকআউটের প্রথম ম্যাচেই আজ শনিবার মাঠে নামছে গত আসরের রানার্সআপ মেসির দল আর্জেন্টিনা। দলটির প্রতিপক্ষ ফ্রান্স। একই দিনে দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামছে উরুগুয়ে বনাম পর্তুগাল। প্রথম ম্যাচটি বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় আর দ্বিতীয় ম্যাচটি শুরু হবে রাত ১২টায়। দ্বিতীয় ম্যাচে প্রতিটি ম্যাচই প্রত্যেক দলের জীঁবন-মরণ ম্যাচ। কারণ হারলেই বিদায় নিতে হবে বিশ্বকাপ থেকে। ফলে আজ প্রথম ম্যাচটিই আর্জেন্টিনা আর ফ্রান্সের জন্য টিকে থাকার লড়াই।
 রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা ডি গ্রুপ থেকে আর ফ্রান্স সি গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে। ফ্রান্স সি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে আর আর্জেন্টিনা ডি গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে এবার বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে উঠেছে। প্রথম পর্বে আর্জেন্টিনার চেয়ে ফ্রান্স নিজেদের প্রমাণ করে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করে। গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচের মধ্যে দু’টি জয় আর একটি ম্যাচে ড্র করে পায় ৭ পয়েন্ট। কিন্তু আর্জেন্টিনা গ্রুপ পর্বে তিন ম্যাচে একটিতে জয় একটিতে ড্র আর একটিতে হেরে পায় চার পয়েন্ট। ফলে গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করে মেসির দল। ফ্রান্স প্রথম দুই ম্যাচে জয় দিয়ে শুরু করলেও আর্জেন্টিনা প্রথম ম্যাচে ড্র করে। শেষ ম্যাচের জয় দিয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকিট পায় মেসির দল। তবে আজ কোয়াটার ফাইনালে ওঠার জন্য দুটি দলই আশাবাদী। যদির পরিসংখ্যানে এগিয়ে আর্জেন্টিনা। তবে এবারের বিশ্বকাপে ভালো পারফরমেন্স করা ফ্রান্সও জয়ের ব্যাপারে বেশ আশাবাদী। কিন্তু পরিসংখ্যান বাদ দিলে চলতি বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সে আর্জেন্টিনার চেয়ে পরিষ্কারভাবেই এগিয়ে ফ্রান্স। কারণ, ফ্রান্স যেখানে অপরাজিত থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই এসেছে দ্বিতীয় রাউন্ডে, সেখানে অনেকটাই ভাগ্যের সহায়তায় শেষ ষোলর টিকিট পেয়েছে আর্জেন্টিনা। তাই ফ্রান্সের বিপক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে নামার আগে বিশেষ পরিকল্পনার ছক আঁকছেন আর্জেন্টিনার কোচ হোর্হে সাম্পাওলি। আজ দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে ফ্রান্সের বিপক্ষে প্রথমমবারের মতো অপরিবর্তিত একাদশ নামাতে পারেন সাম্পাওলি। আর্জেন্টিনার হয়ে এক বছরের বেশি কোচিং ক্যারিয়ারে কোনো ম্যাচে অপরিবর্তিত একাদশ খেলাননি সাম্পাওলি। কিন্তু এবার ফ্রান্সের বিপক্ষে নিজের প্রথা ভাঙার ব্যাপারে ভাবছেন আর্জেন্টাইন কোচ। তবে এই ম্যাচেও মেসিকে নিয়েই ভরসা পাচ্ছেন কোচ সাম্পাওলি। আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসির পায়ের জাদুর কথা অজানা নয় কারোরই। মেসির দিনে অসহায় হয়ে যায় বিশ্বের যেকোন প্রতিপক্ষ। কিন্তু বিশ্বকাপের মতো আসরে ফ্রান্সের মতো ফেবারিট একটি দলকে একাই হারিয়ে দেবেন মেসি সমর্থকরাও হয়তো এতোটা আশা করেন না। তবে তাকে ঘিরেই ভালো কিছুর স্বপ্ন দেখেন সবাই। 
এদিকে ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে গতকাল শেষবারের মতো অনুশীলন করছে আর্জেন্টিনা দল। ফ্রান্সের বিপক্ষে আজ ম্যাচে সেট পিস তথা কর্নার কিক, ফ্রি কিক ও পেনাল্টি কিকের দিকে বিশেষ নজর দিয়েছেন আর্জেন্টাইন কোচ সাম্পাওলি। তবে আর্জেন্টিনার কোচের জন্য এখন চিন্তার বিষয় মিডফিল্ডার এনজো পেরেজের শারীরিক অবস্থা। পেরেজ অসুস্থ থাকায় নিজেদের একাদশ সাজাতে পারছেন না কোচ সাম্পাওলি। পেরেজের শারীরিক অবস্থার প্রেক্ষিতে ৩টি পরিকল্পনা রয়েছে সাম্পাওলির হাতে। প্রথমত, নাইজেরিয়ার বিপক্ষে খেলা অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। নতুবা গঞ্জালো হিগুইনের বদলে একাদশে ঢুকে যাবেন তরুণ তুর্কি ক্রিশ্চিয়ান প্যাভন। এর আগে বিশ্বকাপে কিংবা কোনো প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে পরাজিত করতে পারেনি ফ্রান্স। কিন্তু সমালোচকদের তীক্ষ্ণ দৃষ্টিকে পেছনে ফেলে নিজেদের প্রমাণ করতে এবার বদ্ধ পরিকর ফ্রান্স। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে ফ্রান্স যে দারুণ সতর্ক অবস্থায় আছে তারই ইঙ্গিত দিয়েছেন দলের সেন্টার ব্যাক স্যামুয়েল উমতিতি। নক আউট পর্বের আগে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনের প্রায় পুরোটা সময়ই উমতিতিতে তার বার্সেলোনা সতীর্থ লিওনেল মেসিকে নিয়ে কথা বলতে হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই দুই দলের লড়াইয়ে সকলের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকবেন আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টার। তবে উমতিতি মনে করেন সব কিছুর পরে ফলাফলই মূখ্য। তিনি বলেন, ‘আমরা উন্নতি করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। কারণ আমরা জানি এটা আমাদের পক্ষে করা সম্ভব। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ম্যাচে জয়ী হওয়া। অনেকেই আমাদের খেলা নিয়ে সন্তুষ্ট না হলেও এই ম্যাচে জিততে পারলে তারাও খুশী হবে। আমি আর শুনতে চাইনা যে আমাদের মধ্যে ফুটবলীয় দক্ষতার অভাব রয়েছে। আর্জেন্টিনাকে বিদায় করে সামনে এগিয়ে যাওয়া অবশ্যই পুরো দলকে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাবে। এখন আমাদের সামনে একটাই লক্ষ্য, সামনে এগিয়ে যাওয়া। আমার কাছে ব্রাজিল, পেরু কিংবা মেক্সিকোকে বিদায় করা যতটা না গুরুত্বপূর্ণ তার থেকে আর্জেন্টিনার মত দলকে বাদ দিয়ে পরের রাউন্ডে যাওয়া সত্যিই বিশেষ কিছু।’ ডেনমার্কের বিপক্ষে ফ্রান্সের হতাশাজনক পারফরমেন্সে পরে আবারো মূল একাদশে ফিরেছেন পল পগবা। আর্জেন্টিনার মধ্যমাঠ এখনো সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেনি। আর সেই সুযোগটাই কাল কাজে লাগাতে পারেন পগবা। আর্জেন্টাইন সুপারস্টার মেসি রাশিয়ায় নিজের পারফরমেন্স দিয়ে সমর্থকদের সন্তুষ্ট করতে না পারলেও নাইজেরিয়ার বিপক্ষে যে গোলটি তিনি করেছেন তাতে আরো একবার প্রমাণ হয়েছে কেন মেসি সেরা। এই নিয়ে ১২ বারের মতো ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনা একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছে। দক্ষিণ আমেরিকান জায়ান্টরা ৬টিতে জয়ী ও দুটিতে ড্র করেছে। আর্জেন্টিনা তাদের শেষ ১৩টি বিশ্বকাপের ১২টিতেই প্রথম পর্ব পার করেছে। শুধুমাত্র ২০০২ সালে নক আউটের আগে তাদের বিদায় ঘটেছিল। শেষ চারটি নক আউট ম্যাচে তারা মাত্র দুটি গোল দিতে পেরেছে। নক আউট পর্বে আর্জেন্টাইন তারকা মেসি এখন পর্যন্ত কোনো গোল করতে পারেননি। ফ্রান্সের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচে তিনিই গোল করেছিলেন। ২০০৯ সালের প্রীতি ম্যাচটিতে ২-০ গোলে জয় পেয়েছিল হয়েছিল আর্জেন্টিনা। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ