ঢাকা, শনিবার 30 June 2018, ১৬ আষাঢ় ১৪২৫, ১৫ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রূপগঞ্জে মাদক বিক্রিতে বাঁধা দেয়ায় বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর লুটপাট

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মাদক বিক্রিতে বাঁধা দেয়াকে কেন্দ্র করে মাদক ব্যবসায়ী ফেন্সি ফরিদসহ তার বাহিনীর সদস্যরা প্রতিবাদী দুই ভাইকে ধারালো চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয় মাদক ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদীদের বাড়িঘরে হামলা ও ভাংচুর চালিয়ে লুটপাট করে। ফেন্সি ফরিদ বাহিনীর তাণ্ডবে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার তারাবো পৌরসভার হাটিপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
আহতদের বাবা জজ মিয়া জানান, হাটিপাড়া এলাকার ফেন্সি ফরিদসহ এ বাহিনীর সদস্য আতিকুর, নয়ন মিয়া, বাবুল মিয়া, শরীফসহ তাদের লোকজন তারাব পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে দীর্ঘ দিন ধরে ইয়াবা, ফেন্সিডিলসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক বিক্রি করে আসছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাদক বিক্রি করার সময় জজ মিয়ার ছেলে পারভেজ দেখতে পেয়ে তাদের মাদক বিক্রিতে বাঁধা দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাদক ব্যবসায়ী ফেন্সি ফরিদ, আতিকুর, নয়ন মিয়া, বাবুল মিয়া ও শরীফের সঙ্গে পারভেজের বাকবিতন্ডা সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে রাত ১০টার দিকে মাদক ব্যবসায়ীরা দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে জজ মিয়ার বাড়িতে প্রবেশ করে বাড়িঘর ভাংচুর করতে শুরু করেন। এ সময় পারভেজ ভাংচুরে বাঁধা দিলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে এলোপাথারিভাবে পেটাতে থাকে। এক পর্যায়ে আতিকুর ও ফরিদ মিলে পারভেজকে ধারালো চাপাতি দিয়ে গুরুতর কুপিয়ে জখম করে। এ সময় পারভেজের ডাক-চিৎকারে বড় ভাই কাউসার বাঁচাতে এগিয়ে আসলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাকেও কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা বাড়িঘর ভাংচুর করে মোবাইল ফোনসহ নগদ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। তাদের ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে মাদক ব্যবসায়ীরা হুমকি ধামকি প্রদান করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। পারভেজ ও কাউছার হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরলে তাদেরকে হত্যা করবে বলে হুমকি প্রদান করেন। এদিকে, বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর গণপিটুনির শিকার ফেন্সি ফরিদ পালিয়ে প্রাণে বেঁচে যায়।
এলাকাবাসী অভিযোগ করে জানান, ফেন্সি ফরিদ, আতিকুর, নয়ন মিয়া এলাকার বড় মাদকের ডিলার। তারা এলাকায় মাদক বিক্রি সহ বিভিন্ন রকম সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। তাদের ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায়না। তাদের বিরুদ্ধে যদি কেউ প্রতিবাদ করে তাহলে তারা তাকে মারধর সহ বিভিন্নভাবে হয়রানি করে।
এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান মনির বলেন, এ ধরনের একটি অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ