ঢাকা, রোববার 1 July 2018, ১৭ আষাঢ় ১৪২৫, ১৬ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শিশুসহ ২ ফিলিস্তিনীকে নির্মমভাবে হত্যা করলো পাষন্ড ইহুদিবাদী ইসরাইলী সৈন্যরা

মাথায় গুলী করে মুসাব আইমান নামে ১৩ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনী শিশুকে হত্যা করে পাষন্ড ইসরাইলী সেনারা

৩০ জুন, আনাদোলু, পার্সটুডে  : অধিকৃত গাজা উপত্যকায় ইসরাইলী সেনারা শুক্রবার মাথায় গুলি করে মুসাব আইমান নামে ১৩ বছর বয়সি এক ফিলিস্তিনি শিশুকে হত্যা করেছে। একইদিন গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফা শহরের কাছে ইসরাইলী সেনারা মুহাম্মাদ ফাউজি মুহাম্মাদ নামে ২৪ বছর বয়সি আরেক ফিলিস্তিনি যুবককে গুলি করে হত্যা করে।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইহুদিবাদী ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে এক শিশুসহ দুই ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী শাহাদাতবরণ করেছেন। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে সংবাদ সংস্থাটি জানিয়েছে, ইসরাইলী সেনারা গাজার পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্তবর্তী খান ইউনুস শহরের কাছে শুক্রবার ফিলিস্তিনি বালক মুসাব আইমানের মাথায় গুলি করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

একইদিন গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফা শহরের কাছে ইসরাইলী সেনারা ফিলিস্তিনি যুবক মুহাম্মাদ ফাউজি মুহাম্মাদকে গুলি করে। আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পর তিনি মারা যান।

শুক্রবার ইসরাইল বিরোধী বিক্ষোভে ইহুদিবাদী সেনাদের হামলায় আরো অন্তত তিন শতাধিক ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন।চলতি বছরের ৩০ মার্চ থেকে গাজা উপত্যকায় নিজেদের ভুমি ফিরে পাওয়ার আন্দোলনে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের ওপর ইহুদিবাদী সেনাদের নির্বিচার গুলিবর্ষণ ও হামলায় এ পর্যন্ত ১৪ শিশুসহ অন্তত ১৩৫ ফিলিস্তিনি নিহত ও প্রায় ১৫ হাজার ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন।

গোলানের দিকে এগুচ্ছে সিরিয়ার বাহিনী: সিরিয়ার সেনারা দক্ষিণাঞ্চলীয় দারা প্রদেশের বেশ কয়েকটি শহর ও গ্রামের নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হয়েছে। এ অবস্থায় সীমান্তবর্তী অধিকৃত গোলান মালভূমিতে ইহুদিবাদী ইসরাইল সতর্ক অবস্থান নিয়েছে।সিরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা সানা জানিয়েছে, গত শুক্রবার সিরিয় সেনাবাহিনী আল-হেরাক, রাখাম, আস-সুরা এবং আলমাসহ বেশ কয়েকটি শহর ও গ্রামের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এ অভিযানে অনেক তাকফিরি সন্ত্রাসী নিহত হয়।এসব এলাকায় নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা পর সিরিয়ার সেনারা পেতে রাখা মাইন ও বোমা নিষ্ক্রিয় করার কাজ শুরু করে। সন্ত্রাসীরা নিজেদের পরাজয় আসন্ন দেখে পালিয়ে যাওয়ার আগে ওই সব এলাকায় মাইন ও বোমা পুতে রেখে গেছে।সিরিয়ার একজন ফিল্ড কমান্ডার বার্তা সংস্থা সানাকে বলেছেন, দারা প্রদেশে সন্ত্রাসীরা নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত সামরিক অভিযান অব্যাহত থাকবে। এদিকে, সানা অন্য এক খবরে জানিয়েছে যে, দারা প্রদেশের পূর্বাঞ্চলে কয়েকটি গ্রামে অবস্থান নেয়া সন্ত্রাসীরা অস্ত্র সমর্পণ করে সরকারের সঙ্গে কাজ করতে রাজি হয়েছে। একজন সেনা কমান্ডার বলেছেন, সিরিয় সেনাদের কঠোর অভিযানের মুখে সন্ত্রাসীদের আত্মসমর্পণ করা ছাড়া কোনো উপায় নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ