ঢাকা, রোববার 1 July 2018, ১৭ আষাঢ় ১৪২৫, ১৬ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দৌলতপুরে ঘাট ডাকা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ঘাট ডাকা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানাগেছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ভাগজোত এলাকায় পদ্মা নদীর ধারে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ভাগজোত এলাকার কাবিল হোসেন নামে এক ব্যবসায়ী ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য ভাগজোত খেয়া ঘাট জেলা পরিষদ থেকে ডেকে নেয়। ১লা জুলাই থেকে ঘাটের অর্থ আদায় করার কথা। সে অনুযায়ী কাবিল হোসেনের লোকজন গতকাল সকালে ভাগজোত খেয়া ঘাটে গিয়ে বাঁশ দিয়ে মাচা তৈরী করতে থাকে। এসময় গত অর্থ বছরের (২০১৭-১৮) ডাকে পাওয়া ঘাটের মালিক বুলেটের নেতৃত্বে মইদুল, সালাম ও মিলনসহ ৫-৭জন সশস্ত্র অবস্থায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে হাইকোর্টে রিট করা আছে বলে কাবিল হোসেনের লোকজনকে ঘাটে মাচা তৈরীতে বাঁধা দেয়। তবে তারা কোর্টের বা আদালতের কাজগপত্র দেখাতে না পারলে বাঁধা উপেক্ষা করে কাবিল হোসেনের লোকজন মাচা তৈরী করতে থাকলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে বুলেটের কাছে থাকা হাতুড়ি দিয়ে প্রতিপক্ষ বাবু’র মাথায় আঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে কাবিল হোসেনের লোকজন বুলেটকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। দুইপক্ষের আহত ভাগজোত এলাকার মতি দফাদারের ছেলে বুলেট (৩৫) এবং মৃত ইছাহক মাষ্টারের ছেলে বাবু (৪০) কে উদ্ধার করে দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। বুলেটের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে কুষ্টিয়া হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সংঘর্ষের বিষয়ে রামকৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল বলেন, জেলা পরিষদ থেকে ভাগজোত ঘাট ডাকে পেয়ে কাল থেকে (আজ রোববার) অর্থ আদায়ের জন্য সেখানে মাচা তৈরী করতে গেলে গতবছরের ডাকে পাওয়া বুলেট হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে বলে তাদের কাজে বাধা দেয় এবং বাবুকে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে। পরে স্থানীয় লোকজন বুলেটকেও পিটিয়ে আহত করে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দিয়েছে।
পলাতক আসামী গ্রেফতার
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সাইদুল (৪০) নামে দু’বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার হয়েছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার কাগহাটি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে দৌলতপুর থানা পুলিশ।
দৌলতপুর থানার ওসি শাহ দারা খান জানান, জিআর-২২৪/০৬ এর মামলার দু’বছরের সাজাসহ ১০হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ডের পলাতক আসামী সাইদুল কাগহাটি এলাকায় অবস্থানের গোপন সংবাদ পেয়ে এএসআই আবু বক্করের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। সে একই গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ