ঢাকা, রোববার 1 July 2018, ১৭ আষাঢ় ১৪২৫, ১৬ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাফল্যের শীর্ষে হাঁসাড়া কালী কিশোর স্কুল এন্ড কলেজের স্কাউটস

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) : মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগর উপজেলার ১ নং মডেল ইউনিয়নের হাঁসাড়া কালী কিশোর স্কুল এন্ড কলেজের স্কাউটস সাফল্যের শীর্ষে। ২৪ মার্চ শনিবার হাঁসাড়া কালী কিশোর স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিররণী অনুষ্ঠানে ইংরেজি ২০১৮ অত্যন্ত ঝাক-ঝমক ভাবে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল, মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষ (এমপি) কিন্তু মহোদয় শাররিক ভাবে অসুস্থ থাকার কারণে অনুপস্থিত থাকেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, শিক্ষক-শিক্ষিকা, নতুন-পুরাতন ছাত্র-ছাত্রীসহ এলাকাবাসীর স্ব-উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানটি ছিল অত্যন্ত প্রাণবন্ত। অনুষ্ঠানের শুরুতেই ক্রীড়া শিক্ষক নূর মোহাম্মদ তালুকদার এ প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিবেদন পাঠ করেন। তিনি জানান, ইংরেজি ২০১৭ সালে এই প্রতিষ্ঠান উপজেলা থেকে জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। সর্বমোট ১৫৭টি পুরস্কার পেয়ে ঢাকা বিভাগে শ্রেষ্ঠতম স্থান অধিকার করতে সক্ষম হয়েছে। এতে ১ম পুরস্কার ৮ টি, ২য় পুরস্কার ৪৩ টি ও ৩য় পুরস্কার ২৯ টি পেয়েছি এ স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা।  তিনি আরোও উল্লেখ করেন ইংরেজি ২০১৬ সালে পুরস্কার পেয়ে ছিল ১২৮ টি। অর্থাৎ গত বছর থেকে এ বছর ২৯ টি পুরস্কার বেশী পেয়েছে। ভবিষ্যতে আরো বেশী পুরস্কার পাওয়ার আশা ব্যক্ত করেন তিনি। এ সাফল্যের পিছনে যারা উৎসাহ, উদ্দীপনা, যুগিয়েছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন অত্র প্রতিষ্ঠানের সম্মানিত সভাপতি মহোদয় সকল সদস্যবৃন্দ ও শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। বিশেষ ভাবে উল্লেখ করেন যে, এই সফলতার পেছনে যিনি, উপজেলার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সকলের মাঝে অনুপ্রেরণা, উৎসাহ, উদ্দীপনা যুগিয়েছেন তিনি হলেন, স্কুলের বার্ষিক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষ (এমপি) মহোদয়।
এ সাফল্যের জন্য শিক্ষক নূর মোহাম্মদ তালুকদার ভূষিত প্রসংশা করেণ। গত বছর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অত্র প্রতিষ্ঠানে তহবিল থেকে ১ হাজার টাকা বেতন বৃদ্ধির সুপারিশ করেন। গর্ভনিং বডির সভাপতি মহোদয় আখতার হোসেন তাহা কার্যকর করেন। মাননীয় বিশেষ অতিথিবৃন্দ গত বছর অঞ্চলিক ও জাতীয় পর্যায় ভাল ফলাফল করেছে তাদের মধ্যে ১৫ জন খেলোয়ারের হাতে সরকারি নগদ অর্থ ও পুরস্কার তুলে দেন।
তিনি আরোও জানান, গত বছর গ্রী®মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় সাতার ইভেন্টে ঢাকা বিভাগ থেকে একমাত্র এই প্রতিষ্ঠানই খেলার সুযোগ পেয়েছিল। এবারও জাতীয় শিশু মৌসুমী প্রতিযোগিতায় সাতারে একজন ছাত্রী জাতীয় পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে। তিনি ঐ ছাত্রী জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছেন। যাতে সে জাতীয় পর্যায়ে আরোও ভাল ফলাফল করে মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার সুনাম বয়ে আনতে পারে। তিনি আরো বলেন, শ্রীনগর বাসীর জন্য অত্যন্ত খুসীর সংবাদ এই যে, গত বছর ৯ অক্টোবর মুন্সীগঞ্জ জেলার সম্মানিত ডিসি মহোদয়, জনাব সায়লা ফারজানা এই বিদ্যালয় পরিদর্শনে আসেন। তিনি আমাদের স্কাউটস ছাত্র-ছাত্রীদের অভ্যার্থনা ও শৃঙ্খলা দেখে তিনি এতটাই সন্তষ্ট হয়েছেন যে, মুন্সীগঞ্জের অন্যসব প্রতিষ্ঠানে আমাদের স্কুলের প্রশংসা করেছেন। এমনকি অন্যন স্কুলগুলোকে আমাদের অনুসরণ করার আশা পোষন করেছেন। ক্রীড়া শিক্ষক বিশেষ ভাবে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান, বিশেষ অতিথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাহিদুল ইসলামকে। যিনি বয়স ভিত্তিক সাতার প্রতিযোগিতায় সারাক্ষন মুন্সীগঞ্জ সুইমিংপুল ভেন্যুতে ছেলে মেয়েদের সাথে উৎসাহ, উদ্দীপনা, করতালি ও ছবি উত্তোলনসহ ব্যাপক উৎসাহ যোগিয়েছেন। সর্বশেষে উপজেলা ও জেলার বিভিন্ন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণের জন্য বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন সময়ে তাকে অবগত করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারসহ উপস্থিত সবাইকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানিয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিবেদনটি সমাপ্তি করেণ। হাঁসাড়া কালী কিশোর স্কুল এন্ড কলেজটি মুন্সীগঞ্জ জেলা তথা বিক্রমপুরের সবচেয়ে প্রাচীনতম বিদ্যাপিঠ। এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ইংরেজি ১৮৭৯ সালে। এই প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন, বিশিষ্ঠ শিক্ষা অনুরাগী ও দানবীর কালি কিশোর সেন চৌধুরী।
প্রতিষ্ঠালগè থেকেই এই সুমহান প্রতিষ্ঠানটি ঢাকা-মাওয়া মহা সড়ক সংলগ্ন হাঁসাড়া নামক স্থানে অত্যান্ত মনোরম পরিবেশে অবস্থিত আছে। এই অঞ্চলের শিক্ষার আলো বিস্তারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ সাবেক ভিসি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পূনিল পাল, স¦নামধন্য রাজনীতিবিদ সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর পিতা, মোঃ কফিল উদ্দিন চৌধুরী, প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ স¦রাজ শান্তিরঞ্জন ঘোষ, প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ পশ্চিমবঙ্গের সাবেক মূখ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থ শংকর রায় ও ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেনসহ প্রমূখ এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেরই শিক্ষার্থী ছিলেন। আজও অত্যান্ত সুনামের সহিত শিক্ষার আলো বিলিয়ে চলছে এ বিদ্যাপিঠটি। পাশাপাশি তেমনী খেলাদুলায় ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে উপজেলা থেকে জাতীয় পর্যাযে অনেক সুনাম অর্জন করে আসছে। যাহা দেশ ও মুন্সীগঞ্জবাসী এমনকি শ্রীনগর উপজেলাবাসী অবগত নয়। তাই জাতীয় সংবাদপত্রের মাধ্যমে সকলের কাছে এই বিদ্যাপিঠ ও প্রতিষ্ঠানের ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সাফল্যটুক সংক্ষিপ্ত আঁকারে তুলে ধরছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ