ঢাকা, রোববার 1 July 2018, ১৭ আষাঢ় ১৪২৫, ১৬ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বেদে ভিক্ষার নেপথ্যে রয়েছে একরাশ দুঃখ

শ্রীনগর (মুন্সিগঞ্জ) সংবাদদাতা: উপজেলার চক বাজার বেইলি ব্রীজের উপর উঠতেই হঠাৎ কয়েক জন উঠতি বয়সের তরুণী। চুলে রঙিন কাপরের ফিতার ফুল, কানে দুল, নাকে নোলক, হাতে নানা রংয়ের কাচেঁর চুরি, কোমরে বিছা, পরনে জরির পাইর কাপর। এক হাতে একটি ছোট সিলবারের কৌটা। একজন দু’হাত প্রসারিত করে সামনে এসে দাড়িয়ে বলল, ১০ টা টাকা দাও। চমকে উঠলাম! সামনে আরেক জন তরুণী আব্বাছ আলী নামে এক ভদ্র লোকের পেছন দিক থেকে জামা টেনে ধরছেন। কয়েক মিনিট ব্রীজের উপর তরুণীদের দৃশ্য দেখলাম। এরপর কৌতুহল হল জানার, তরুণীরা বেদে সম্প্রদায়ের লোক। বেইলী ব্রীজে দিয়ে পারাপার হওয়ার সময় ভিক্ষার নামে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করছে। খোজ নিয়ে জানা-যায়, এক সময় ঘুরে ঘুরে গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে দাতের পোঁকা খসানো, কোমরের ব্যথা উপশম, সাপের খেলা, ও ঝাড়-ফুক মানুষ এখন আর বিশ্বাস করেনা। যার ফলে পেটের দায়ে তাদেরকে এ পেশা বেছে নিতে হয়েছে। তাদের ছেলে মেয়েদেরকে সমাজে কোন কাজ  দেওয়া হয়না। এমনকি স্কুল ,কলেজে তাদের পড়াশুনা করানো যায়না। তারা ভাসমান অবস্থায় বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেড়ায়।  শ্রীনগর দেউলভোগ বেইলি ব্রীজের নিচে খালে ও সড়কে অনেক বেদে সম্প্রদায়ের লোক বসবাস করছে। এছাড়া ঢাকা-মাওয়া সড়কের নিমতলা থেকে কুচিয়া মোরা পর্যন্ত সড়কের পার ধরে একাধিক বেদে ছাপরা ঘর দেখা যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ