ঢাকা, রোববার 1 July 2018, ১৭ আষাঢ় ১৪২৫, ১৬ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

হালিশহর এলাকাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি 

পানিবদ্ধতা ও পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব নিরসনে প্রেস ক্লাব চত্বরে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখছেন সুরক্ষা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মুহম্মদ আমির উদ্দিন

হালিশহর থানাধীন হালিশহর, আগ্রাবাদ, রামপুর, দক্ষিণ কাট্টলী এলাকার পানিবদ্ধতা ও পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব নিরসনে উক্ত এলাকাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছে চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদ। গতকাল ৩০ জুন ২০১৮ইং সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে এ দাবি জানান চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মুহম্মদ আমির উদ্দিন। সংগঠনের সভাপতি নুরুল আফসার বলেন, চট্টগ্রামের মানুষ সুখে নেই। তারা মারাত্মক জলাবদ্ধতার শিকার জলাবদ্ধ অঞ্চলে জণ্ডিস, ডায়ারিয়া, চর্মরোগ মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ গত ৩ মাস ধরে কেবল পানির নমুনা পরীক্ষা ও তদন্ত কমিটি করেই যাচ্ছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই করছে না। এ পর্যন্ত হাজারো মানুষ পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়েছে। ২০/২৫ জন ইতিমধ্যে মারা গেছেন, সরকারি সংস্থাগুলো নিজেদের মধ্যে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েছে যা দুর্গত মানুষের সাথে তামাশার সামিল। তিনি অবিলম্বে কর্তৃপক্ষীয় উদ্যোগের দাবি জানান অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকী দেন। 

সুরক্ষা পরিষদের মুখপাত্র ও যুগ্ম-সম্পাদক হাসান মারুফ রুমি বলেন, ওয়াসার সংযোগ লাইনে লিকেজ রয়েছে, যার কারণে প্লাবন এলাকায় নালা-নর্দমায় পানি ঢুকে পড়ে দূষণ ছড়াচ্ছে, অথচ এ সত্যতা ওয়াসা কর্তৃপক্ষ স্বীকার করতে চাচ্ছেন না। আমরা দাবি জানাচ্ছি যে, অবিলম্বে এ সমস্যার আশু সমাধান করুন। অন্যথায় আমরা চট্টগ্রামবাসীকে নিয়ে ওয়াসা কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো। 

অপর যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুন ফেরদৌস পপি বলেন, জলাবদ্ধ চট্টগ্রামে নারী ও শিশুর অধিকার মারাত্মভাবে লঙ্ঘিত হচ্ছে। প্রতিবছর বর্ষায় কাজ শুরু করার তোড়জোড় শুরু হয়, আর বর্ষা শেষ হলে সবাই হাত পা গুটিয়ে থাকে। এবার যেন সেরকম না হয়। সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ারুল করিম বলেন, করদাতা সুরক্ষা পরিষদ সরকার বিরোধী নয়-আমরা সামাজিক শক্তি এবং চট্টগ্রামবাবীর দূর্দিনে ঘরে বসে থাকতে পারি না। জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামকে যে বাজেট দিয়েছেন তাতে আমরা খুশী। এবার আমরা চাই এ অর্থ যেন যথাযথ ব্যবহার হয়। আমরা একটি পরিকল্পিত চট্টগ্রাম চাই। ঠুন্কো জনতুষ্টির আপাত উন্নয়ন নয়। 

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সুরক্ষা পরিষদের উপদেষ্ঠা শ্রমিক নেতা মোঃ ছিদ্দিকুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ শহীদুল হক স্বপন, গণ অধিকার ফোরামের মহাসচিব আবুল হাশেম রাজু, সুরক্ষার নেতা ইসমাইল হোসেন মনু, এরশাদ হোসেন, মোঃ সোহেল, মো. ইলিয়াছ, নুরুল হুদা তানভীর, মোস্তাকিম আহমেদ গুড্ডু, আব্দুল মাবুদ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ