ঢাকা, রোববার 18 November 2018, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

খালেদা জিয়ার আপিলের সঙ্গে শুনানি হবে আরো তিন আবেদন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজার বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা আপিলের সঙ্গে আরো তিনটি আবেদনের শুনানি হবে। এর মধ্যে একটি আবেদন খালেদা জিয়ার সাজা বৃদ্ধি চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের করা। বাকি দুটি ওই মামলায় ১০ বছরের সাজার রায় বাতিল চেয়ে মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল এবং ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের করা আপিল আবেদন।

দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

খালেদা জিয়ার আপিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পিত্তি করতে এই বেঞ্চের প্রতি আপিল বিভাগের নির্দেশনা রয়েছে।

সে অনুযায়ী দুদক শুনানির উদ্যোগ নিলে গত ২৭ জুন হাইকোর্টের উপরোক্ত বেঞ্চ খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য ৩ জুলাই দিন ধার্য করেছিলেন। ওই দিন এই তিনটি আবেদনেরও শুনানির দিন ধার্যেরও আবেদন জানিয়েছিলেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। তখন হাইকোর্টের উপরোক্ত বেঞ্চের দুদকের মামলা শুনানির এখতিয়ার না থাকায় আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী শুধু খালেদা জিয়ার আপিলের শুনানির দিন ধার্য করা হয়।

আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, এই তিনটি আবেদনও যাতে খালেদা জিয়ার আপিলের সঙ্গে শুনানি হয়, সেজন্য আমরা প্রধান বিচারপতির কাছে আবেদন জানিয়েছিলাম। প্রধান বিচারপতি গত বৃহস্পতিবার আবেদন তিনটি বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার হাইকোর্টের এই বেঞ্চ খালেদা জিয়ার আাপিলের সঙ্গে এ মামলা সংশ্লিষ্ট আরো তিন আবেদনেরও শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এ জে মোহাম্মদ আলী। এ সময় ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি মামলাটিতে খালেদা জিয়ার পাঁচ বছর কারাদণ্ড হয়। একই সঙ্গে খালেদা জিয়ার ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে দণ্ড দেন আদালত।

রায় ঘোষণার দিন থেকে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী রয়েছেন খালেদা জিয়া।-ইউএনবি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ