ঢাকা, সোমবার 2 July 2018, ১৮ আষাঢ় ১৪২৫, ১৭ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

এখনই অবসরের কথা ভাবছেন না রোনালদো

শুরুটা দুর্দান্ত হয়েছিল পর্তুগালের। প্রথম ম্যাচেই স্পেনের সাথে ৩-৩ গোলে ড্র করে টুর্নামেন্ট শুরু। ওই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে টুর্নামেন্টে বড় কিছু করার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। গ্রুপপর্বে ৩ ম্যাচে ৪ গোল করে গোল্ডেন বুটের দৌড়ে ভালোভাবেই ছিলেন ৩৩ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার। কিন্তু শেষ ষোলতে এসে স্বপ্নভঙ্গ। শনিবার উরুগুয়ের কাছে ২-১ গোলে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। গোল পাননি রোনালদোও। ওই হারের পর সংবাদ রটেছিল আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় জানাচ্ছেন রোনালদো। কিন্তু এই গুজবকে উড়িয়ে দিয়ে রোনালদো জানিয়েছেন, এসব নিয়ে এখনই কিছু ভাবছেন না তিনি। শনিবার ম্যাচশেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পর্তুগিজ অধিনায়ক বলেছেন, ‘আমার কিংবা কোচ বা দলের কে নো খেলোয়াড়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবার এটা সঠিক সময় নয়। আমাদের একদল উচ্চাকাঙ্ক্ষী খেলোয়াড় রয়েছে। আমি পুরোপুরি নিশ্চিত এই দল বিশ্বের অন্যতম সেরা দল হবে। এদিন শুরুতেই এগিয়ে যায় উরুগুয়ে। ম্যাচের সপ্তম মিনিটে সুয়ারেজের সাথে দুর্দান্ত এক রসায়নে প্রথম গোলটি করেন পিএসজির তারকা এদিনসন কাভানি। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ম্যাচের ৫৫ মিনিটে পর্তুগিজকে সমতায় ফেরান পেপে। কিন্তু ম্যাচের ৬২ মিনিটে উরুগুয়ের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন সেই কাভানিই। তবে উরুগুয়ে জিতলেও ম্যাচের বেশিভাগ সময় বল দখলে ছিল পর্তুগিজদের পায়েই। পুরো ম্যাচে রোনালদোদের পায়ে বল ছিল ৬৭%। কর্নারও বেশি (১০টি) পেয়েছে তারা। গোল মুখে উরুগুয়ের শট যেখানে ৩টি, পর্তুগালের সেখানে ৫টি। সব মিলিয়ে মাঠে আধিপত্য ছিল পর্তুগিজদেরই। সেই প্রসঙ্গ টেনে রোনালদো বলেছেন, ‘উরুগুয়ের চেয়ে পর্তুগাল ভালো খেলেছে।

কিন্তু যারা বেশি গোল করে, তারা জেতে। আমরা জিততে চেয়েছি, ভালো লড়াই করেছি। কিন্তু উরুগুয়েকেও অভিনন্দিত করা উচিৎ।’ নিজের দল নিয়ে গর্বিত রোনালদো আরো বলেছেন, ‘সব মিলিয়ে আমরা মাথা উঁচু রাখতে পেরেছি। পর্তুগালের জাতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি গর্বিত। এটা কাজ করার জন্য চমৎকার দল। আমি আমার সতীর্থ, টেকনিক্যাল স্টাফদের নিয়ে গর্বিত।’ সূত্র : ডেইলি মেইল। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ