ঢাকা, সোমবার 2 July 2018, ১৮ আষাঢ় ১৪২৫, ১৭ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভিজিএফের চাল বিক্রির অভিযোগ

নীলফামারী সংবাদদাতা : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজার রহমানের বিরুদ্ধে ভিজিএফের চাল বিতরণ না করে কালোবাজারে বিক্রীর করার অভিযোগ করেছে ১ ও ২ নম্বর ওয়ার্ড সদস্যরা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাছে দেয়া অভিযোগে জানা গেছে,  পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে চাঁদখানা ইউনিয়ন পরিষদে ৬৩ দশমিক ২০ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। এজন্য ৬ হাজার ৩০২ জন দুস্থের তালিকা প্রণয়ন করা হয়। প্রতিজনকে ১০ কেজি করে চাল দেয়ার কথা। এর মধ্যে ১ ও ২ নম্বর ওয়ার্ডে  ১ হাজার ৭০২ জন গরীব মানুষের নামে তালিকা প্রস্তুত করা হলেও চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান দুই ওয়ার্ডে ৭০৭ জন কার্ডধারীর চাল রেখে সব চাল কালোবাজারে বিক্রি করে দেন বলে অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের সদস্যরা। 
 ১ নং নম্বর ওয়ার্ড সদস্য লুৎফর রহমান ও ২নং নম্বর ওয়ার্ড সদস্য  আবুজার রহমান অভিযোগ করে বলেন ভিজি এফ চাল চেয়ারম্যান বিতরণ না করে কালোবাজারে বিক্রি করার সময় এলাকাবাসী চালের ভ্যান আটক করে। পরে তাদের বিভিন্ন ভয় ভিতি দেখিয়ে ভ্যান ছাড়িয়ে আনে।
এছাড়াও দক্ষিণ চাঁদখানা মাঝাপাড়া গ্রামের মোতাহার হোসেন ও ছাদেক আলীর বাড়ীতে  শতাধিক চালের বস্তা কালোবাজারে বিক্রি করার জন্য মজুদ করে রেখে  রাতের আধাঁরে তিনি বিক্রি করে দেয়া হয়।
এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান হাফিজার রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন।
উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা এস এম মেহেদী হাসান অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন প্রকম্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা দ্বয়ের সমন্বয়ে দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ