ঢাকা, মঙ্গলবার 3 July 2018, ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ১৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কলম্বিয়ার বিপক্ষে আজ ইংল্যান্ডের প্রথম বড় পরীক্ষা

স্পের্টস ডেস্ক: রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়াটার ফাইনালে উঠতে আজ মুখোমুখি হবে নতুন প্রজন্মের ইংল্যান্ড এবং বদলে যাওয়া কলম্বিয়া। গ্যারেথ সাউথগেটের অধীনে তারুণ্য নির্ভর ইংল্যান্ড দল বিশ্ব কাপ শুরুর আগে যতটা আলোচনায় ছিল তার চেয়ে অধিক আলোচনায নক আউট পর্ব নিশ্চিত হওয়ার পর। আজ রাত ১২ টায় শেষ ১৬’র লড়াইয়ে কলম্বিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে ইংলিশরা। আর এই ম্যাচের মাধ্যমে রাশিয়া বিশ্বকাপে সমালোচকদের আরো একবার জবাব দেবার প্রথম কোনো বড় সুযোগ পাচ্ছে সাউথগেট শিষ্যরা। কলম্বিয়া দলের মূল ভরসা ১০ নম্বর জার্সিধারী হামেস রড্রিগেজ। এ ছাড়াও দক্ষিণ আমেরিকান দলটিতে রয়েছে বেশ কয়েকজন প্রতিভাবান খেলোয়াড়। চার বছর আগে ব্রাজিল বিশ^কাপে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠা দলটি ইংল্যান্ডের চেয়ে কিছুটা হলেও এগিয়ে। ১২ বছরেও ইংল্যান্ড নক আউট পর্বে কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি, সেখানে চার বছর আগের স্মৃতি আত্মবিশ্বাসী করতেই পারে কলম্বিয়াকে।

তিউনিশিয়া ও পানামাকে উড়িয়ে দিয়ে জি-গ্রুপে নিজেদের আধিপত্যই দেখায় ইংল্যান্ড। তবে বেলজিয়ামের বিপক্ষে দারুণ লড়াইয়ের পরে পরাজিত হয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়নের সুযোগ হারায় ইংলিশরা। আগেই দুই দল নক আউট পর্ব নিশ্চিত করায় এ ম্যাচটি ছিল কেবলই নিয়ম রক্ষার ম্যাচ। গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে অধিনায়ক হ্যারি কেনের হ্যাটট্রিকে পানামাকে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দেয়। বিশ^কাপের ইতিহাসে ইংল্যান্ডের এটাই সবচেয়ে বড় জয়ের রেকর্ড। ২০১৪ সালে সর্বোচ্চ ৬ গোল করে গোল্ডেন বুট পাওয়া কলম্বিয়ার তারকা রড্রিগেজের কাছ থেকে দলের প্রত্যাশার মাত্রাটা একটু বেশি। 

তবে পায়ের ইনজুরির কারণে বায়ার্ন মিউনিখ তারকা এবারের বিশ্বকাপে পারফরমেন্স এখনো চোখে পড়েনি। এদিকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও চেলসির হয়ে প্রিমিয়ার লিগে ফর্মহীনতা রাদামেল ফ্যালকাওকেও আলোচনার আড়ালে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপে কলম্বিয়ার অধিনায়কের আর্মব্যান্ড হাতে পড়ে নিজেকে যেন ফিরে পেয়েছেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ফ্যালকাও জ্বলে উঠলে তা কলম্বিয়ার জন্য সুখবর বয়ে আনতে পারে। চেলসির হয়ে হতাশাজনক ফর্মে থাকা উইঙ্গার হুয়ান কুয়াড্রাডোর কাছ থেকেও শতভাগ আশা করছেন কোচ হোসে পেকারম্যান।

গ্রুপের প্রথম দুই ম্যাচে দারুন ছন্দে থাকা ইংলিশ রাইট-ব্যাক কিয়েরান ট্রিপিয়ার বলেন কলম্বিয়ার বিপক্ষে চ্যালেঞ্জ নিয়ে পুরো দল বেশ ভালভাবেই অবহিত। তিনি বলেন, ‘আমরা তাদের নিয়ে অনেক কাজ করেছি। যে মানের খেলোয়াড় তাদের আছে এবং যেভাবে তারা নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছে তাতে তাদের নিয়ে আমাদের বাড়তি সতর্ক থাকতেই হচ্ছে।’

ট্রিপিয়ার আরো বলেন টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত ইংল্যান্ড যেভাবে খেলেছে সেই ধারাই অব্যাহত থাকবে। তিউনিশিয়ার বিপক্ষে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে সাউথগেট যে মূল একাদশ সাজিয়েছিলেন অবশ্যই সেটা আবারো ফিরে আসছে। এর অর্থ পাঁচ গোল করা কেনকে সহযোগিতা করতে দলে ফিরছেন ডেলে আলি।

কলম্বিয়ান ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার কার্লোস সানচেজও কঠিন এক লড়াইয়ের প্রত্যাশা করছেন। তার মতে, ‘ইংল্যান্ডের ফুটবল ইতিহাস বেশ সমৃদ্ধ। তাদের দলে বেশ কয়েকজন শীর্ষ সারির খেলোয়াড় রয়েছে। কিন্তু তাদের প্রতিহত করার জন্য আমাদের হাতেও অস্ত্র আছে। এই ম্যাচে আমাদের দুই দলেরই বিশ্বকাপে এগিয়ে যাবার সমান সুযোগ রয়েছে। কলম্বিয়া ইংল্যান্ডকে বেশ শ্রদ্ধার চোখেই দেখছে। কারণ তারা নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ ইতোমধ্যেই দিয়েছে। কিন্তু আমরাও পিছিয়ে নেই। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ