ঢাকা, মঙ্গলবার 3 July 2018, ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ১৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মেক্সিকোর নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন বামপন্থি লোপেজ ওব্রাদোর

২ জুলাই, রয়টার্স : মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরিষ্কার ব্যবধানে জয় পেতে যাচ্ছেন বামপন্থি প্রার্থী আন্দ্র্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদোর।

গত রোববার নির্বাচন শেষ হওয়ার পর ভোট কেন্দ্রগুলোর ফলাফলের ভিত্তিতে নির্বাচনী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মেক্সিকো সিটির সাবেক মেয়র লোপেজ প্রায় ৫৩ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। লোপেজের প্রাপ্ত ভোট তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর প্রাপ্ত ভোটের দ্বিগুণেরও বেশি বলে জানিয়েছেন তারা।

বুথ ফেরত জরিপেও লোপেজ ওব্রাদোর, যিনি ডাক নাম আমলোতেই বেশি পরিচিত, অনেক এগিয়ে আছেন বলে দেখা গেছে। 

নিকটতম দুই প্রতিদ্বন্দ্বীই পরাজয় স্বীকার করে নিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয় পাওয়ায় লোপেজ ওব্রাদোরকে অভিনন্দ্রন জানিয়েছেন।

মেক্সিকোর ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী হোসে আন্তনিও মিদ পরাজয় স্বীকার করে নিয়ে সমর্থকদের জানিয়েছেন, তিনি লোপেজের ‘সার্বিক সাফল্য’ কামনা করে তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী মিদ তৃতীয় স্থানে আছেন। মিদের ইনস্টিটিউশনাল রেভ্যুলুশনারি পার্টি (পিআরআই) গত শতাব্দির অধিকাংশ সময়জুড়ে মেক্সিকোর রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করলেও এখন জনপ্রিয়তা হারিয়েছে। প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী রক্ষণশীল ন্যাশনাল অ্যাকশন পার্টির (পিএএন) প্রার্থী রিকার্দো আনাইয়া তৃতীয় স্থানে আছেন। 

লোপেজকে অভিনন্দ্রন জানিয়েছে আনাইয়া বলেছেন, “তিনি জয়ী হয়েছেন। আমার অভিনন্দ্রন। মেক্সিকোর ভালোর জন্য তার সার্বিক সাফল্য কামনা করছি আমি।” নির্বাচনের পর তার প্রথম প্রকাশ্য মন্তব্যে লোপেজ ওব্রাদর জানিয়েছেন, দুর্নীতি নির্মূল ও ক্ষমাই হবে তার প্রশাসনের প্রাথমিক লক্ষ্য।

প্রতিবেশী যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ‘বন্ধুত্ব ও সহযোগিতাপূর্ণ’ সম্পর্ক চান বলেও জানিয়েছেন তিনি।  ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ওয়াশিংটনের সঙ্গে মেক্সিকোর সম্পর্ক নাজুক হয়ে পড়েছে। নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই বাণিজ্য ও অভিবাসন নিয়ে মেক্সিকোর কড়া সমালোচনা করে আসছেন ট্রাম্প। তবে এসব সত্বেও এক টুইটে ‘মেক্সিকোর পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হওয়ায়’ লোপেজ ওব্রাদোরকে অভিনন্দ্রন জানিয়েছেন ট্রাম্প।

৬৪ বছর বয়সী লোপেজ আগের দুই নির্বাচনে দ্বিতীয় হয়েছিলেন। এবার বিজয়ী হওয়ায় তিনি দশকের পর দশক ধরে পাল্টাপাল্টি ক্ষমতায় থাকা পিআরআই ও পিএএন-র অধিপত্যের অবসান ঘটাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওই দল দুটিকে ‘ক্ষমতাকেন্দ্র্রিক একই মাফিয়ার অংশ’ অ্যাখ্যা দিয়েছিলেন মোরেনো দলের শীর্ষ নেতা লোপেজ ওব্রাদোর। গত রোববার নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পাশাপাশি ১২৮ জন সিনেটর, কংগ্রেসের ৫০০ ডেপুটি এবং বিভিন্ন রাজ্য ও অঞ্চলের স্থানীয় প্রতিনিধি নির্বাচন করতেও তাদের রায় জানিয়েছেন মেক্সিকোর ভোটাররা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ