ঢাকা, মঙ্গলবার 3 July 2018, ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ১৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জামালের ওপর হামলার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতাসহ ৩৫ জনকে আসামী করে মামলা

খুলনা অফিস : খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামালের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক সুমন আহম্মেদ খান বাদী হয়ে দিঘলিয়া থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় দিঘলিয়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা মোল্লা ফিরোজ হোসেন ওরফে ফিরোজ মোল্লাসহ ২০ জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও ১০-১৫ জনকে আসামী করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত অপর আসামীরা হলো- ইউসুফ মোল্লা ওরফে তহিদুল, সদর ইউপির ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বর) মো. সেলিম, মো. হায়দার শেখ, মো. বাবুল শেখ, মিশু শেখ, মো. হাফিজ শেখ, মো. মজারুল ইসলাম ওরফে পরান, মো. রসুল শেখ, মো. শওকত ওরফে শকা, মো. শওকত শেখ, মো. দেলোয়ার খান, মো. মিরন শেখ, মো. আলাউদ্দিন শেখ, মো. আশরাফ বিশ্বাস, সুমন, ইয়াসিন শেখ, দ্বারা শেখ, আকিদুল শরীফ ও মারজান আহম্মেদ ওরফে মুন্না।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ২৯ জুন শক্রবার দিঘলিয়া উপজেলার পথের বাজারে যুবলীগের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান শেষে আওয়ামী লীগ নেতা কামরুজ্জামান জামালসহ ২০/২৫ জন নেতা-কর্মী খুলনার উদ্দেশে রওনা হন। রাত সাড়ে ৭টার দিকে ফেরি পার হওয়ার জন্য স্থানীয় নগর ঘাটে অপেক্ষায় ছিলেন। এ সময় চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে উল্লিখিত ব্যক্তিরা লোহার রড, রাম দা, কাটা রাইফেল ও লাঠিসোঠা নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে কামরুজ্জামান জামাল, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট শাহ আলম, গাড়ি চালক জসিমসহ কয়েকজন আহত হয়। এমনকি নিরাপদে যাওয়ার সময় আসামী মিশু শেখ জামালকে লক্ষ্য করে গুলী করে। কিন্তু অল্পের জন্য গুলী লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এ সময় ৫টি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে দিঘলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমান বলেন, দিঘলিয়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফিরোজ মোল্লাসহ ২০ জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও ১০-১৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে, এজারহারভুক্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এদিকে খুলনা জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল, উপ-দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট শাহ আলমসহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নেতৃবৃন্দ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবী করেন।  বিবৃতিদাতারা হলেন, কেন্দ্রীয় নেত্রী সাবেক প্রতিমন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নবনির্বাচিত মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সুজিত অধিকারী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ