ঢাকা, মঙ্গলবার 3 July 2018, ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ১৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে বিএনপি-আ’লীগ সমাবেশ

রাজশাহী : রাসিক নির্বাচন উপলক্ষে গতকাল সোমবার রাজশাহীতে বিএনপি ও আ’লীগের সমাবেশ -সংগ্রাম

ভোট ছিনিয়ে নেয়ার
স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিণত
করা হবে -মিনু
রাজশাহী অফিস : গতকাল সোমবার রাজশাহীতে বিএনপি’র এক সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, জনগণকে বাদ দিয়ে শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে সরকার জয় ছিনিয়ে নিতে চায়। তাঁরা বলেন, এটা খুলনা বা গাজীপুর নয়- রাজশাহী হলো বিএনপি’র ঘাটি। জনগণের ভোটের অধিকার রক্ষায় প্রয়োজনে জীবন বাজি রাখা হবে।
বিএনপি  চেয়ারপার্সন  বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনে দাবিতে চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে শক্তিশালী এবং সাংগঠনিক তৎপরতা বৃদ্ধির করার লক্ষ্যে এই বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। নগরীর বড়কুঠি রোডের মুনলাইট গার্ডেনে এ বর্ধিত সভার আয়োজন করে রাজশাহী মহানগর বিএনপি। মহানগর বিএনপির সভাপতি ও  মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু। প্রধান বক্তা ছিলেন, বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। মিজানুর রহমান মিনু বলেন, আওয়ামী লীগের জোর করে ভোট ছিনিয়ে নেয়ার স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিণত করা হবে। বুলবুলকে জয়ী করার মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি তরান্বিত করা হবে। রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, যেখানে ইউনিয়ন পর্যায়ের নির্বাচনে বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নিতে বাধা দেয়া হচ্ছে সেখানে জাতীয় নির্বাচনে কী হতে পারে তা সহজেই বোঝা যায়। সেই নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কি না তা ভাবতে হবে। রাজশাহী মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটনের পরিচালনায় বক্তব্য দেন, রাজপাড়া বিএনপির সভাপতি শওকত আলী, মহানগর যুবদল সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, শাহ মখদুম থানা বিএনপির সভাপতি মনিরুজ্জামান শরিফ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল সেক্রেটারি কামরুল হাসান, মহানগর ছাত্রদল সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, মহানগর মহিলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক রওশন আরা পপি প্রমুখ। এ সময় রাজশাহীর বিভিন্ন জেলা এবং উপজেলা থেকে আগত বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

লিটনের বিজয়
নিশ্চিত করলেন
নানক
রাজশাহী অফিস : আসন্ন রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে ১৪ দলের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের বিজয় নিশ্চিত বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর নানক। তিনি বলেন, ‘আমি নিশ্চিত, আগামী ৩০ জুলাইয়ের নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে মেয়র নির্বাচিত হবেন খায়রুজ্জামান লিটন।’
আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজশাহীতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। সোমবার দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ মিলনায়তনে এ সভার আয়োজন করে রাজশাহী জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। সেখানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দিচ্ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা নানক। দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে আমরা জয়লাভ করবোই। কারণ কি জানেন? ওই যে ২০০৮ সালে পরাজিত হয়েছিলাম। আমাদের নেতাদের মধ্যে অনৈক্য ছিল, গা ছাড়া ভাব ছিল, এখন তা নেই। নেত্রী খবর পেয়ে খুব সন্তুষ্ট। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের আগামীর মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন।’ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি সভায় সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘২০০৮ সালে আমরা চারটি সিটি কর্পোরেশনে জয়লাভ করেছিলাম। জয়ের সেই ঢেউ দেশের ৩০০ সংসদীয় আসনে ছড়িয়েছিল। এবার রাজশাহী সিটিতে জয় পেলে এ অঞ্চলের ৭২টি সংসদীয় আসনে জয় আসবে।’ দলের মেয়র প্রার্থী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমার ব্যাপারে আবার অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে, লিটন মেয়র নির্বাচিত হলে বস্তি উচ্ছেদ করে পার্ক করা হবে। ব্যবসায়ীদের নিঃস্ব করা হবে। এ ধরনের অপপ্রচার শুনলে দলের নেতাকর্মীদের দাঁতভাঙা জবাব দিতে হবে।’ অন্যদের মধ্যে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন, নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, সাবেক ছাত্রনেতা আমিনুল ইসলাম মিলন, জেলা সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ। মহানগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার সভা পরিচালনা করেন। সভায় দলের কয়েকজন এমপি ও জনপ্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ