ঢাকা, মঙ্গলবার 3 July 2018, ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ১৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চট্টগ্রামে বিএমএ’র সকল প্রকার সংবাদ বর্জন বিজ্ঞাপন না ছাপানোর ঘোষণা

চট্টগ্রাম ব্যুরো : বিএমএ’র সকল প্রকার সংবাদ বর্জন ও তাদের বিজ্ঞাপন না ছাপানোর ঘোষণা দিয়েছে চট্টগ্রামের সাংবাদিক নেতারা। নগরে ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলায় সাংবাদিক কন্যা রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় চট্টগ্রামে বিএমএ নেতাদের পক্ষপাতমূলক আচরণের প্রতিবাদে সাংবাদিক নেতারা এ ঘোষণা দিয়েছেন। সোমবার দুপুর ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)।
সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা বলেন, কোনো সনদ ছাড়াই ম্যাক্স হাসপাতাল চলছে। রাইফার ন্যায় অনেক নিরীহ শিশু এই হাসপাতালে চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলায় মৃত্যুবরণ করেছে। অবিলম্বে চিকিৎসায় অবহেলা করা ডাক্তার ও নার্সদের সনদ বাতিল করে তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে।
সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, চিকিৎসা একটি মৌলিক অধিকার, মানুষ পূর্ণ আস্থা ও ভরসা নিয়ে ডাক্তারের কাছে যায়। সেই ডাক্তাররা যখন চিকিৎসার নামে ব্যবসা আর কসাইগিরি শুরু করেন। তখন সেটা সত্যিই বিবেককে নাড়া দেয় ও ভাববার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। আমরা বলছিনা সব ডাক্তার ভুল চিকিৎসা করেন,গুটি কয়েক এর কারণে পুরো পেশা আজ দোষীত। আমরা শুধু সুষ্ঠু তদন্ত চাই এবং দোষীদের শাস্তি দাবি করছি। না হয় এই কাজের পূণরাবৃত্তি ঘটবে।
তাছাড়া আমরা জানতে পেরেছি এই ম্যাক্স হাসপাতাল একটি অবৈধ প্রতিষ্ঠান। অবিলম্বে এর বন্ধের জোর দাবি জানাচ্ছি। আমরা চাই না সাংবাদিক রুবেলের মত আর কোনো পিতা তার সন্তানের লাশ কাঁদে নেক।
চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নাজিমুদ্দিন শ্যামলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইইনয়নের সহ-সভাপতি শহিদুল ইসলাম, সংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী আবুল মনসুর, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহমেদ, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ন-মহাসচিব তপন চক্রবর্তীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশে উপস্থিত এক নারী ভুল চিকিৎসায় সন্তানের অকাল মৃত্যুর কথা তুলে ধরে তার বক্তব্যে বলেন, আমিও রুবেল ভাইয়ের মত আমার মেয়ের মৃত্যুর শিকার হয়েছি। আমার মেয়ের সামান্য জ্বর হয়েছিল। এই ম্যাক্স হাসপাতাল আমার মেয়েকে হার্টের সমস্যা বলে ভুল চিকিৎসা দেয়। ফলে গত ৭ মে আমার মেয়েকে তারা মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়। না জানি এরকম ঘটনা আরো কত ঘটছে প্রতিনিয়ত। প্রতিবাদ সমাবেশে পূর্ণ সমর্থন ও একাতœতা পোষণ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সদস্যরা যোগ দেন।
রোববার রাতে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে চট্টগ্রাম নগরের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালের লাইসেন্স ত্রুটি আছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডা. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন।
ডা. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, ম্যাক্স হাসপাতালের শিশুর মৃত্যুর বিষয়ে আমাদের তদন্ত চলছে। তদন্ত প্রতিবেদনে বিস্তাারিত উঠে আসবে। প্রাথমিকভাবে ম্যাক্স হাসপাতালের লাইসেন্স ত্রুটি পাওয়া গেছে। তারা অধিদফতর ও বিএমডিসি কোনো অনুমোদন ছাড়াই হাসপাতাল চালাচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা শিগগিরই ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ