ঢাকা, মঙ্গলবার 3 July 2018, ১৯ আষাঢ় ১৪২৫, ১৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় অপহৃত তিন মাদরাসা ছাত্র উদ্ধার

খুলনা অফিস : খুলনা মহানগরীর শিরোমণি এলাকা থেকে রোববার রাতে অপহৃত তিন মাদরাসাছাত্রকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাদেরকে জিম্মি করে পরিবারের কাছে মোবাইলফোনে মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছিল। মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে অপহৃত ওই ছাত্রদের উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃতরা হচ্ছে-ঢাকা কেরানিগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার মাদরাসার ছাত্র রহমতউল্লাহ (১৬), সোনাডাঙ্গা খালাসী মাদরাসার ছাত্র মোজ্জাম্মেল হক (১৬) ও খুলনা দারুল উলুম মাদরাসার ছাত্র ফোরকান উদ্দিন (১৫)।
খানজাহান আলী থানা পুলিশ জানায়, রোববার সকালে ঢাকা কেরানিগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার মাদরাসার ছাত্র রহমত উল্লাহ (১৬), সোনাডাঙ্গা আলীয়া খালিসী মাদরাসার ছাত্র মোজ্জাম্মেল হক (১৬) তাদের বন্ধু খুলনা দারুল উলুম মাদরাসার ছাত্র মো. ফোরকান উদ্দিন (১৫) ফোরহানের শিরোমনি বাড়িতে বেড়াতে আসে। দুপুর ১২টার সময় তিন বন্ধু মিলে আটরা শ্রী-নাথ স্কুলের পাশে সবুজ পল্লী এলাকায় ঘুরতে যায়। এ সময় তাদেরকে ১০/১১ জন যুবক পার্শ্ববর্তী বাগানে নিয়ে গিয়ে তাদের কাছে থাকা ২৫শ’ টাকা এবং ২টি মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। পরে পরিবারের কাছে তাদের মুক্তিপণের জন্য বিকাশের মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা দাবি করা হয়। সোনাডাঙ্গা আলীয়া খালিসী মাদরাসার ছাত্র মোজ্জাম্মেল হক বিষয়টি তার পরিবারকে অবহিত করে দ্রুত ৫ হাজার টাকা পাঠাতে বলে। মোজাম্মেলের পিতা হাশমত আলী ছেলেকে উদ্ধারে বিকাশের মাধ্যমে তিন হাজার টাকা পাঠানোর পর জিম্মিকারীরা পুনরায় তাদের পরিবারের কাছে ২০ হাজার টাকা দাবি করে। পুলিশ আরও জানায় মোজাম্মেলের পিতা খানজাহান আলী থানায় এসে বিষয়টি অবহিত করেন। এ সময় জিম্মিকারীদের মোবাইল ট্যাকিং-এর মাধ্যমে এসআই আব্দুর রহিম ও এএসআই মো. ইলিয়াজ অভিযান চালিয়ে রাতে মাদরাসার ছাত্রদেরকে আটরা ২নং বিহারী কলোনী থেকে উদ্ধার করে। এ সময় জিম্মিকারী গিলাতলা ২নং বিহারী কলোনীর মৃত মোক্তার হোসেনের ছেলে নিরব (২০), একই এলাকার গোলাম মোস্তফার ছেলে ওসমান গণি (১৮) এবং মো. রফিকুল ইসলামের ছেলে রায়হান শেখ (১৮) কে গ্রেফতার করা হয়।
এ ব্যাপারে খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম জানান, মাদরাসার তিন ছাত্রকে আটকে মুক্তিপণ চাওয়ার ঘটনায় তিন জিম্মিকারীকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। তিনি  আরো জানান, এ ঘটনার সাথে জড়িত বাকিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ