ঢাকা, বুধবার 4 July 2018, ২০ আষাঢ় ১৪২৫, ১৯ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কেউ রাজপথে কেউ হাসপাতালে তারপরেও আন্দোলনে অনড়

এমপিওভুক্তির প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের আমরণ অনশন চলছে -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: অমানবিক অবস্থায় নন-এমপিও শিক্ষকদের আন্দোলনের ৯ দিন অতিবাহিত। সরকারের পক্ষ  থেকে কোন ধরনের আশ্বাস না পাওয়ায় অসুস্থ অবস্থায় আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষকরা। টানা আন্দোলনে কেউ রাজপথে স্যালাইন দিয়ে শুয়ে রয়েছেন কেউ হাসপাতালে ভর্তি তারপরেও দাবি আদায়ে আনড়। পরিবার এবং বিশিষ্ঠজনের উদ্বিগ্ন হলেও সরকার নিরব। অবস্থা দেখে মনে হয় বিষয়টি দেখার মত কেউ নেই। এই আন্দোলনের শেষ কোথায় কেউ জানে না।
এদিকে শিক্ষকদের দাবি মেনে নিয়ে অমাণবিক অবস্থার অবসান ঘটানোর আহ্বান জানিয়েছেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক মো. ইয়াসিন আলী। গতকাল মঙ্গলবার শিক্ষক কর্মচারী ফাউন্ডেশনের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে তিনি এ দাবি জানান।
 চলমান আন্দোলনের ২৪ তম এবং আমরণ অনশনের ৯ম দিন অতিবাহিত করছে নন-এমপিও শিক্ষকরা। দীর্ঘ দিনের কর্মসূচিতে শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ পরিবার-পরিজন ছেড়ে রাজপথে অমানবিক ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে দিনযাপন করছেন।
গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষকরা বলেন, আমাদের দাবি ৫ হাজার ২৪২টি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে ( প্রায় ৮০ হাজার শিক্ষক-কর্মচারী) প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী একযোগে এমপিওভক্তি করা হোক।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভুষণ রায় বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে সাক্ষাতের আবেদনসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ অপর্যাপ্ত হলে সকল নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওর আওতায় এনে আংশিক বেতন চালু করা, পরবর্তী অর্থবছরে বেতনের সমন্বয় সাধন করা, দীর্ঘ ১৫-২০ বছর এমপিওভুক্ত না হওয়ায় দুর্বল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা যাচাই করার উদ্দেশ্যে এমপিওভুক্তির পর ৩ বছর সময় প্রদান, এসময়কালে সক্ষমতা অর্জনে ব্যর্থ হলে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী দ্রুতই তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এবং এমপিওভুক্তির নির্দেশ দিবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গতকাল রাত ১২টা পর্যন্ত ১৯৩ জন আমরণ অনশনকারী শিক্ষক-কর্মচারী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। গুরুতর অসুস্থ ২৩ জন শিক্ষক-কর্মচারীকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
 বিশ্ব শিক্ষক ফেডারেশনের সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নির্বাচিত একমাত্র মহিলা ভিপি প্রফেসর মাহফুজা খানম, সিপিবি এর নারী সেলের আহ্বায়ক শ্রী লক্ষী চক্রবর্তী এবং এডভোকেট মাকসুদা আক্তার লাইলী সংহতি জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নিকট শিক্ষকরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির নুন্যতম যে দাবি জানিয়েছে তা অবশ্যই মেনে নেওয়া উচিত। এ থেকে শিক্ষকদের সরে আসার আর কোন উপায় থাকে না। শিক্ষকদের এ যৌক্তিক দাবি অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে মেনে নিয়ে তাদের ক্লাসরুমে ফিরে যাওয়ার পরিবেশ সৃষ্টি করার আহ্বান জানান তিনি।
এছাড়াও গতকাল বিকালে জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনু মুহম্মদ সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, শিক্ষকদের বার বার যোগ্যতা যাচাইয়ের প্রয়োজন নাই, দ্রুত নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের দাবি বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাসরুমে ফিরে যাওয়ার পরিবেশ সৃষ্টি করুন।
আরও সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আহম্মেদ কামাল। তিনি বলেন, আজকে অনশনের ৯ম দিন চললেও সরকারের পক্ষ থেকে শিক্ষকদের দাবি মেনে না নেওয়া অত্যন্ত দু:খজনক। আজকের মধ্যেই শিক্ষকদের দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ