ঢাকা, বুধবার 4 July 2018, ২০ আষাঢ় ১৪২৫, ১৯ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চৌগাছায় বাস চাপায় স্ত্রী নিহত ॥ স্বামী কন্যাসহ আহত কমপক্ষে ১২

চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের চৌগাছায় যাত্রীবাহী বাস চাপায় রোকেয়া বেগম (৫০) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। তিনি উপজেলার জগদিশপুর গ্রামের আবু বক্করের স্ত্রী। এ ঘটনায় তার স্বামী আবু বক্কর সিদ্দিক (৫৫) ও কন্যা রিমি (১৬) সহ কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়েছেন।
মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার সময় চৌগাছা শহরের ইছাপুর বটতলা সাহাবা মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
আহতরা হলেন উপজেলার পেটভরা গ্রামের হাজেরা বেগম (৪৫), জহুরা বেগম (৬০) রাবেয়া খাতুন (৬৩), ছবিরন (৫৫), আমেনা (৬০) ও নাছরিন (২৫)। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
ঘটনায় আহত ও আলমসাধু যাত্রী রাবেয়া খাতুন বলেন, মঙ্গলবার দুপুর বারটার সময় তারা জগদিশপুর থেকে একটি আলম সাধুতে করে চৌগাছায় আসছিলেন। পথিমধ্যে চৌগাছা-কোটচাঁদপুর সড়কের ইছাপুর বটতলা সাহাবা মসজিদের সামনে বৃষ্টির পানিতে রাস্তা পিচ্ছিল থাকায় আলম সাধু (স্থানীয় ইঞ্জিনচালিত যান) চালক গাড়ি থামিয়ে দু-হাত উঁচু করে বাসটি থামার জন্য অনুরোধ করে। তবুও  কোটচাঁদপুরের দিক থেকে চৌগাছার দিকে আসা বাসটির (যশোর-ব-৮৪৯) চালক গতি না কমিয়ে পেছন থেকে ধাক্কা দিলে যাত্রীরা ছিটকে রাস্তায় পড়ে যায়। এসম বাসচালক তাদের উপর দিয়ে বাস চালিয়ে  চৌগাছার দিকে পালিয়ে যায়। এঘটনায় নছিমনের যাত্রীরা সকলেই আহত হন।
তাদের উদ্ধার করে চৌগাছা হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রোকেয়া বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া রোকেয়ার স্বামী আবু বক্কর এবং হাজেরা বেগমকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।
ঘটনাস্থলে থাকা প্রত্যক্ষদর্শী মিল শ্রমিক মুক্তার আলী ও প্রত্যক্ষদর্শী তৈয়ব আলী বাস চালকের এ ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের সত্যতা নিশ্চিত করেন।
পরে চৌগাছা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলের প্রায় এক কিলোমিটার দূরে চৌগাছা  মোটরযান শ্রমিক সংস্থার অফিস থেকে ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ