ঢাকা, বৃহস্পতিবার 5 July 2018, ২১ আষাঢ় ১৪২৫, ২০ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাসিক নির্বাচনে বিএনপি-আ’লীগের দাবি

রাজশাহী : সিটি নির্বাচন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভায় বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী বুলবুল ও আ’লীগের প্রার্থী লিটন বক্তব্য দিচ্ছেন -সংগ্রাম

রাজশাহীর উন্নয়ন একমাত্র বিএনপি আমলেই হয়েছে -বুলবুল
রাজশাহী অফিস : আসন্ন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেছেন, দেশের ও রাজশাহীর যা উন্নয়ন তা একমাত্র বিএনপি আমলেই হয়েছে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের লোকেরা নগরীর পরিবেশ নষ্ট করেছে।
তিনি সিটি নির্বাচনী প্রচারণা ও করণীয় বিষয় নিয়ে মঙ্গলবার রাতে অনুষ্ঠিত ১৫ নং ওয়ার্ড বিএনপি’র এক আলোচনা সভায়  একথা বলেন। সাবেক মেয়র ও নগর বিএনপি’র সভাপতি বুলবুল এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। সভাপতিত্ব করেন বিএনপি’র সহ-সভাপতি তরিকুল ইসলাম। প্রধান বক্তা ছিলেন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন। অন্যদের মধ্যে বিএনপি নেতা আব্দুল মান্নান, সিদ্দিকুর রহমান, জামাল উদ্দিনসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, আসন্ন সিটি কর্পোরশেন নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী ও নেতাকর্মীরা সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ন নিয়ে মিথ্যাচার করছে। তিনি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে সিটি এলাকায় নতুন করে রাস্তা নির্মাণ ও সংস্কার, ড্রেন নির্মাণ, নান্দনিক ফুটপাত নির্মাণ, ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টের জন্য সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন স্থাপন, শহরকে রাতে সর্বদা আলোকিত করে রাখার জন্য শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা ও স্থানে অত্যাধুুনিক লাইট ও সৌর বিদ্যুৎ প্ল্যান্ট স্থাপন, সবুজের জন্য গাছ রোপণ, শিশু, মা ও দরিদ্রদের চিকিৎসা সেবা প্রদানে সক্রিয় ভূমিকা পালন, ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলো সংস্কার ও সংরক্ষণ, শহরের আবহাওয়া এবং পরিবেশ রক্ষায় পুকুর সংস্কার ও চারিধারে নান্দনিক রাস্তা ও বসার স্থান নির্মাণ, বিভিন্ন কবরস্থান সংস্কার, মুসলিম ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের মানুষের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সংস্কার ও পুনঃনির্মাণ এবং রাজশাহী সিটিকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলার কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে বলে বক্তৃতায় উল্লেখ করেন। তিনি আরো বলেন, রাজশাহী ও দেশের উন্নয়ন একমাত্র বিএনপি আমলেই হয়েছে। বিগত সময়ের মেয়র জননেতা মিজানুর রহমান মিনুর হাত ধরে রাজশাহীর উন্নয়ন হয়েছিল। তিনি সে সময়ে অনেক পুরস্কার পান। বর্তমান সময়ে রাজশাহী সিটিকে গ্রিন সিটি, ক্লিন সিটি, হেলদি সিটি ও এডুকেশন সিটি হিসেবে তিনি রূপদান করেছেন জানান সাবেক মেয়র বুলবুল। এছাড়াও আলোকিত সিটি হিসেবে রাজশাহীকে গড়ে তোলার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। তিনি বলেন, রাজশাহী সিটিকে নতুন করে বদলানোর কিছুই নেই। নতুন করে বদলানোর নামে সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থী পুরো শহরটাকে পোস্টার, ফেস্টুন ও ব্যানারের শহরে পরিণত করেছে। তাদের কবল থেকে নান্দনিক স্থান, মনীষিদের ফলকও রেহাই পায়নি। প্রতিটি বাড়ির দেয়াল পোস্টার দিয়ে নষ্ট করে ফেলেছে। নোংরাতে ভরিয়ে দিয়ে পুরো শহরটাকে ইতোমধ্যে তিনি বদলে দিয়েছেন। ক্লিন সিটির খেতাব ইতিমধ্যে এই সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থী বিনষ্ট করেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। খুলনা ও গাজীপুর সিটির ন্যায় ভোট জালিয়াতি ও জোর করে রাজশাহী সিটি নির্বাচনে তারা বিজয়ী হওয়ার পাঁয়তারা করছে। আগামী সিটি নির্বাচনে দলীয় নেতাকর্মীদের সকল দ্বিধাদ্বন্দ পরিহার করে দেশের স্বার্থে, দলের স্বার্থে এবং বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি স্বার্থে একতাবদ্ধ হয়ে কাজ করার পরামর্শ দেন তিনি। সেইসাথে সরকারে সকল প্রকার অপশক্তি ও অপকর্ম রুখে দেয়ার জন্য নেতাকর্মী ও বিএনপি সমর্থকদের আহবান জানান বুলবুল। উপস্থিত সকল নেতৃবৃন্দ বিএনপি মনোনীত প্রার্থী বুলবুলের পক্ষে জীবন উৎসর্গ করে হলেও কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন। সেইসাথে ভোট হওয়া ও ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তারা।

রাজশাহীর ৩০ বছরের যত
উন্নয়ন দরকার করা হবে -লিটন
রাজশাহী অফিস : আগামী ৩০ বছরের জন্যে রাজশাহীর যত উন্নয়ন দরকার সব করার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলের মনোনীত প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী কলেজ মিলনায়তনে মহানগর ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে লিটন বলেন, আমি মেয়র থাকাকালে যত উন্নয়ন করেছি, গত পাঁচ বছরে সব ধ্বংস হয়ে গেছে। ঝকঝকে চকচকে রাজশাহী এখন দুর্গন্ধ, ধূলাবালি ও ময়লা-আবর্জনায় ভরে গেছে। সব ধরনের উন্নয়ন কর্মকা- থেমে আছে। আমি আগামীতে সুযোগ পেলে যানজট নিরসের তিনটি ফ্লাইওভার করবো। এছাড়া সব ধরনের উন্নয়ন কর্মকা-ের মাধ্যমে আবারো আবারো ঝকঝকে চকচকে শহর করা হবে। আগামী ৩০ বছরের জন্যে যত উন্নয়ন দরকার, সব করা হবে। এজন্য সবার সহযোগিতা চাই। মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় আ’লীগের সদস্য এসএম কামাল হোসেন, নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ।

রাসিক নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন দুই প্রার্থী
রাজশাহী অফিস : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যাওয়ার পর আপিল করে দুই প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। এদের মধ্যে একজন মেয়র পদের এবং অপরজন সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদের প্রার্থী।
মেয়র প্রার্থীর নাম মুরাদ মোরশেদ। এই নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী। তবে গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী তাকে সমর্থন দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের প্রথম দিন গত রোববার তার প্রার্থিতা বাতিল করা হয়। অন্যদিকে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়া কাউন্সিলর প্রার্থীর নাম জিল্লুর রহমান। তিনি ১৭ নম্বর ওয়ার্ড থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মনোনয়নপত্র যাঁচাই-বাছাইয়ের শেষ দিন গত সোমবার তার প্রার্থিতা বাতিল করা হয়। এই দুই প্রার্থী নির্বাচন কমিশনের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমানের কাছে আপিল করেন। সেখানে শুনানি শেষে তাদের বৈধ প্রার্থী বলে ঘোষণা করা হয়। ফলে নির্বাচনে অংশ নিতে তাদের কোন বাধা থাকলো না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ