ঢাকা, শুক্রবার 6 July 2018, ২২ আষাঢ় ১৪২৫, ২১ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

স্ট্যাচু অব লিবার্টির উপর উঠে ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

ট্রাম্পের অভিভাসন নীতির প্রতিবাদে স্ট্যাচু অব লিবার্টিতে উঠে প্রতিবাদ জানায় একজন। তাকে নামানোর চেষ্টা করেন পুলিশ

৫ জুলাই, দ্য গার্ডিয়ান : যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবসের দিনে অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের ওপর ট্রাম্প প্রশাসনের নেওয়া কঠোর পদক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন এক নারী। বুধবার (৪ জুলাই) স্ট্যাচু অব লিবার্টির উপর উঠে বিক্ষোভ করার সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সম্প্রতি ট্রাম্প প্রশাসনের ‘জিরো টলারেন্স নীতি’র আওতায় অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া আটক অভিযান ও মামলার জেরে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয় দুই হাজারেরও বেশি শিশু। শিশুরা আইনের চোখে অপরাধী না হওয়ায় তাদেরকে আটক মা-বাবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়। মার্কিন অভিবাসন কর্মকর্তারা বলেছেন,৫ মে থেকে ৯ জুন পর্যন্ত ২ হাজার ২০৬ জন বাবা-মার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে ২ হাজার ৩৪২ জন শিশুকে। চাপের মুখে বিচ্ছিন্নকরণ ঠেকাতে ‘পরিবারকে একত্রিত রাখা’র এক নির্বাহী আদেশ জারি করেন ট্রাম্প। তবে সেই আদেশেও ইতোমধ্যে বিচ্ছিন্ন হওয়া এই দুই সহস্রাধিক শিশুর ব্যাপারে কিছু বলা হয়নি। এ পরিস্থিতিতে ২৬ জুন সান ডিয়াগোর ফেডারেল বিচারক ডানা সাবরাও ট্রাম্প প্রশাসনকে নির্দেশ দেন ৫ বছরের কম বয়সী সন্তানদের আগামী ১৪ দিনের মধ্যে আর তার চেয়ে বড় শিশুদের ৩০ দিনের মধ্যে মা-বাবার সঙ্গে একত্রিত করতে হবে। শিশুদের একত্রিত করার প্রক্রিয়া চলমান থাকলেও প্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ওপর কঠোর পদক্ষেপ এখনও বজায় আছে।

বুধবার ছিল যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস। এদিন দুপুরের দিকে ট্রাম্পের কঠোর অভিবাসন নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে স্ট্যাচু অব লিবার্টির ভিত্তির উপরে উঠে দাঁড়ান এক নারী। মাটি থেকে স্তম্ভটির ভিত্তির উচ্চতা ৩০ মিটার। বিক্ষুব্ধ ওই নারীকে সেখান থেকে নামাতে তার সঙ্গে চার ঘণ্টা ধরে আলোচনা চালায় পুলিশ। পরে নিউ ইয়র্ক পুলিশ স্ট্যাচু অব লিবার্টির ভিত্তির উপরে উঠে ওই নারীকে নামিয়ে নিয়ে আসে। তা এখন জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ন্যাশনাল পার্ক সার্ভিসের মুখপাত্র ডেভিড সোম্মা ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘তাকে আপসের মধ্য দিয়ে, শান্তিপূর্ণভাবে, অক্ষতভাবে নিরাপত্তা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। আমাদের কর্মকর্তারাও কোনও আঘাত পাননি। ঈশ্বরের কাছে কৃতজ্ঞতা।’ এর আগে বুধবার সকালে স্ট্যাচু অব লিবার্টি প্রাঙ্গণে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা আইসকে বিলোপ করার দাবি সম্বলিত ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভ করার সময় ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

স্ট্যাচু অব লিবার্টি একটি বিশাল মূর্তি যা ১৮৮৬ সালে ফ্রান্স উপহার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রকে দিয়েছিল। এটি দাঁড়িয়ে আছে নিউ ইয়র্কে লিবার্টি আইল্যান্ডের হাডসন নদীর মুখে যেখানে জাহাজ নোঙর করে, যা যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসনপ্রত্যাশী এবং অন্য দেশ থেকে ফিরে আসা আমেরিকানসহ সকল পর্যটকদের স্বাগতম জানায়। এই তামার মূর্তিটি যুক্তরাষ্ট্রের শতবর্ষপূর্তিতে এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ফ্রান্সের বন্ধুত্বের নিদর্শন হিসেবে উৎসর্গ করা হয়েছিল। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ