ঢাকা, শনিবার 7 July 2018, ২৩ আষাঢ় ১৪২৫, ২২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

উরুগুয়েকে বিদায় করে সবার আগে সেমিতে ফ্রান্স

রফিকুল ইসলাম মিঞা : রাশিয়া বিশ্বকাপে সবার আগে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে ফ্রান্স। গতকাল কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম ম্যাচে দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েকে বিদায় করে সেমিফাইনালে উঠল ১৯৯৮ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। আর ফ্রান্সের কাছে ২-০ গোলে হেরে সেমিফাইনালে আগেই থেমে গেল উরুগুয়ের রাশিয়া বিশ্বকাপ যাত্রা। গ্রুপ পর্বে কোন ম্যাচ না হেরে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠা ফ্রান্স ক্রমেই নিজেদের শক্তির প্রদর্শন করে চলেছে। এই ফ্রান্সের কাছে হেরেই দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নিতে হয়েছে গতআসরের রানার্স আপ ও দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে। এবার কোয়ার্টার ফাইনালে দলটির কাছে হেরে দেশের টিকিট কাটতে হচ্ছে আরেক দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েকে। গতকাল ফ্রান্সের পক্ষে বিরতির আগে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন রাফালেল ভাবানে। আর বিরতির পর আতোয়ান গ্রিজম্যান একটি গোল করে দলকে জয়ী করেন ২-০ গোলে।
গতকাল ম্যাচের প্রথম থেকেই আক্রমণ আপ পাল্টা আক্রমণে ছিল দল দুটি। একাধিকবার আক্রমনে গেছে উরুগুয়ে আর ফ্রান্স। অবশ্য প্রথম থেকেই উরুগুয়ে খেলছিল ভালো। তবে প্রথমার্ধের শেষ দিকে সফল আক্রমন করে ফ্রান্সই। এই আক্রমন থেকেই খেলার ৪০ মিনিটে গোল করে এগিয়ে যায় ১৯৯৮ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। গ্রিজম্যানের ফ্রি কিক থেকে বক্সের মধ্যে দুর্ধর্ষ হেডে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন রাফায়েল ভাবানে। গোলকিপার ফার্নান্দো মুসলেরার কিছু করার ছিল না। অবশ্য প্রথম গোল হজম করার কিছুক্ষণের মধ্যে উরুগুয়ে কিন্তু সমতা আনার ভালো একটা সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু গোলকিপার লরিসের কারণে তা হলো না। কর্নার থেকে পেনাল্টি বক্সে উড়ে আসা বলটাকে নান্দেজ গোল পোস্টে পাঠানোর আগেই জাল লরিস বাঁয়ে ঝাঁপিয়ে রুখে দিলেন। ফলে বিরতির আগে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ফ্রান্স। গতকাল খেলার ৮ মিনিটে লুকাস হার্নান্দেজের দূর থেকে পাঠানো বলটাকে জিরুদ উরুগুয়ের  গোল চেনাতে পারেননি। ১৪ মিনিটে ম্যাচের প্রথম কর্নার। ফ্রান্সের পেনাল্টি বক্সের মধ্যে পাঠালেন তরেইরা। দিয়েগো গোদিন গোলমুখের কাছ থেকে চেষ্টা করলেন। গোলকিপার হুগো লরিস বল ক্লিয়ার করেছেন। আবার দুই মিনিট পরই জিরুদের তুলে দেয়া বলটাকে পেনাল্টি বক্সের মধ্যে হেডে বারের উপর দিয়ে পাঠিয়েছেন কিলিয়ান এমবাপে। উরুগুয়ের কিপার ফার্নান্দো মুসলেরা প্রথম দিকে গোলপোস্ট আগলে রাখলেও ৪০ মিনিটে ভারানের কারণে গোলটা হজম করতে হয়। আর প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়তে হলো ১-০ গোলে। বিরতির পর খেলা শুরু হলে গোল পরিশোধের নেশায় মরিয়া হয়ে উঠে উরুগুয়ে। আর গোলের ব্যবধান বাড়িয়ে নিরাপদ দুরত্বে থাকতে কম যায়নি ফ্রান্সও। বিরতির পরও আক্রমন আর পাল্টা আক্রমনে চালাতে থাকে দল দুটি। তবে খেলার ৬১ মিনিটে আরো একটি গোল পায় ফ্রান্স। এবার দলকে গোল এনে দেন আতোয়ান গ্রিজম্যান। ফলে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। গোল পরিশোধের জন্য মরিয়া উরুগুয়ে উল্টো আরও পিছিয়ে পড়ে গোলরক্ষক ফের্নান্দো মুসলেরার মারাত্মক ভুলে। ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে গ্রিজমানের শট আয়ত্তে না নিয়ে ফেরাতে চেয়েছিলেন কিপার। বল আঙুল গলে গোললাইন পেরিয়ে যায়। ফলে ক্রমেই ম্যাচ থেকে পিছিয়ে পড়ে উরুগুয়ে। খেলার শেষ বাশি বাজার আগে উরুগুয়ে কোন গোল পরিশোধ করতে না পারলে ফ্রান্স ২-০ গোলে জিতেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে। আর দেশে ফিরতে হচ্ছে উরুগুয়েকে। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে চোটের কারণে অবশ্য মহাতারকা এদিনসন কাভানিকে ছাড়াই উরুগুয়েকে একাদশ নামাতে হয়েছে। তার জায়গায় খেলেছেন ক্রিস্তিয়ান সুতানি। বিশ্বের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের সাথে আক্রমণে নামেন সুতানি। এছাড়া উরুগুয়ে দলে আর কোনো পরিবর্তন ছিলনা। বরাবরের মতই শক্তিশালী ডিফেন্স নিয়ে মাঠে নামে তারা। অন্যদিকে ফ্রান্স দলে কোনো পরিবর্তন ছিলনা। আর্জেন্টিনাকে হারানো সেরা একাদশ মাঠে নামিয়েছেন কোচ দিদিয়ের দেশম। কাইলিয়ান এমবাপের সঙ্গে আন্তোনিও গ্রিজম্যান, অলিভিয়ের জিরু, পল পগবা- শক্তিশালী একাদশই ফরাসীদের। ফরাসিদের আক্রমণভাগ সাজানো আঁতোয়া গ্রিজমান, অলিভার গিরুদ ও কিলিয়ান এমবাপেকে নিয়ে। তবে উরুগুয়ের বিপক্ষে কোন গেঅর করতে পারেনি এমবাপে।
ফ্রান্স একাদশ: উগো লরিস, বাঁজামাঁ পাভার্দ, রাফায়েল ভারানে, সামুয়েল উমতিতি, লুকা এরনঁদেজ, পল পগবা, এনগোলা কঁতে, কিলিয়ান এমবাপে, অঁতোয়ান গ্রিজমান, কোরোঁতাঁ তোলিসো, অলিভিয়ে জিরুদ।
উরুগুয়ে একাদশ: ফের্নান্দো মুসলেরা, মার্তিন কাসেরেস, হোসে মারিয়া হিমেনেস, দিয়েগো গদিন, দিয়েগো লাক্সালত, লুকাস তররেইরা, নাহিতান নান্দেস, মাতিয়াস বেসিনো, রদ্রিগো বেন্তানকুর, ক্রিস্তিয়ান স্তুয়ানি, লুইস সুয়ারেজ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ