ঢাকা, শনিবার 7 July 2018, ২৩ আষাঢ় ১৪২৫, ২২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় হালিপ্রতি ডিমের দাম বেড়েছে ৭ টাকা

খুলনা অফিস : খুলনায় ডিমের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে সাড়ে ৫ টাকার ডিম এখন বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৭ টাকায়। অর্থাৎ এক সপ্তাহে ডিমের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৪০ শতাংশ। মাছ, গোশত এবং সবজির পর এবার দাম বাড়ল ডিমের। গত সপ্তাহের বুধবার নগরীর বাজারগুলোতে এক হালি (৪ পিস) ডিম বিক্রি হয়েছে ২২ টাকায়। সেই ডিম এখন বিক্রি হচ্ছে হালি প্রতি ২৯ টাকায়। মাছ, গোশের দাম বৃদ্ধির ফলে সাধারণ মানুষের কাছে ডিমের চাহিদা বৃদ্ধি পায়। আর এ সুযোগে ফার্মগুলো ডিমের দাম বৃদ্ধি করে অতিরিক্ত মুনাফা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে মনে করছেন সাধারণ ভোক্তারা।
নগরীর স্যার ইশবাল রোডস্থ মুদি দোকানদার মো. রমযান আলী জানান, গরিব মানুষতো আর মাছ গোশ কিনতে পারছে না। তারা কোনো রকম ডিম কিনে গোশের চাহিদা মেটায়। কিন্তু সেখানেও হাত পড়েছে ব্যবসায়ীদের। সাড়ে ৫ টাকার ডিম এখন কিনতে হচ্ছে সাড়ে ৭ টাকায়। বড় মির্জাপুর এলাকার মো. আনোয়ার হোসেন জানান, ডিম ক্রয় করে না এমন পরিবার নেই বললে চলে। ৫-৬ টাকার একটি পণ্যে যদি ২ টাকা বৃদ্ধি পায় তাহলে দামী পণ্যের দাম কি হচ্ছে। দাম কেন বাড়লো কোনো দোকানদার বলতে পারে না।
জিন্নাপাড়া বউবাজার এলাকার ডিম ব্যবসায়ী মো. নাজমুল হাসান জানান, রোযার মাসে ডিমের চাহিদা ছিল কম। ফলে ফার্ম মালিকেরা লস দিয়েছে। ডিমের চাহিদা কম থাকা এবং দাম কমে যাওয়ায় অনেক ফার্ম মালিক তখন তাদের মুরগি বিক্রি করে দিয়েছে। সে কারণে এখন ডিমের চাহিদা পূরণ হচ্ছে না। সে কারণে দাম বেশি। তবে শুক্রবার ডিম প্রতি ২০ পয়সা দাম কমেছে।
ডুমুরিয়া শাহপুর এলাকার ডিমের ফার্ম মালিক মো. আফসার আলী গাজী জানান, চাহিদা বাড়লে দাম বেশি হয় আবার চাহিদা কমলে দামও কমে। ডিমের বেলাতেও তাই। এখন মাছ এবং গোশের দাম বেশি। চাপ পড়ছে ডিমের ওপর। তাই দাম বেশি। তবে রমযান মাসে অনেক ফার্ম মালিক লস খাইছে এবং অনেকে কম দামে তাদের ডিমওয়ালা মুরগি বিক্রি করে দিয়েছে। তাছাড়া এখন মুরগির খাবারের দামও বাড়তি রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ