ঢাকা, শনিবার 7 July 2018, ২৩ আষাঢ় ১৪২৫, ২২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নতুন জনবল কাঠামোতে গবেষণার পথ রুদ্ধ হবে

স্টাফ রিপোর্টার: নতুন জনবল কাঠামোতে গবেষণার পথ রুদ্ধ হবে। মেধাবীরা শিক্ষকতা পেশায় আসবে না। এ জন্য জনবল কাঠামো ২০১৮ সংশোধন করা প্রয়োজন। মেধাবীদের শিক্ষকতা পেশায় আকৃষ্ট করতে সংশ্লিষ্টদের ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন এম ফিল পিএইচ ডি ডিগ্রিধারী বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ শিক্ষক সমিতি। 

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি ড. মুহাম্মদ এমদাদুল ইসলাম, সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল করিম বুলবুল, সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুল জব্বার মিয়া প্রমুখ।

সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তারা বলেন, গবেষক ও মেধাবীদের শিক্ষাকতা পেশায় আসা উচিত। তারা আসলে শিক্ষার মান অনেক এগিয়ে যাবে। এ ছাড়া শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষকদের গবেষণার সুযোগ দেয়া উচিত।

নীতিমালা অনুযায়ী উচ্চতর ডিগ্রির জন্য উচ্চতর স্কেল প্রদানের কথা থাকলেও জনবল কাঠামো ২০১৮ তে ওই অনুচ্ছেদ বাতিল করা হয়। যার কারণে দেশের অনেক মেধাবী শিক্ষক গবেষণার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন।

তারা বলেন, জনবল কাঠামো ২০১০ অনুযায়ী প্রভাষক সহকারী অধ্যাপক পদে ১৫ বছরের অভিজ্ঞতা থাকলে স্নাতক পর্যায়ের কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগের জন্য আবেদন করতে পারতেন কিন্তু জনবল কাঠামো ২০১৮ অনুযায়ী ওই পদে আবেদন করতে হলে উপাধ্যক্ষ পদে কমপক্ষে তিন বছরের অভিজ্ঞতাসহ ১৫ বছর শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। যিনি অনুপাত নামক প্রথার কারণে অধ্যাপক হতে পারেননি তিনি কোনো অপরাধে অধ্যক্ষ বা উপাধ্যক্ষ পদের জন্য অযোগ্য হবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ