ঢাকা, রোববার 8 July 2018, ২৪ আষাঢ় ১৪২৫, ২৩ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কাজ শেষ না করেই বিল চাওয়ায় আটকে গেছে অধিকাংশ প্রকল্পের বিল

তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা: তালায় বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন ও অর্থ ছাড় নিয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ভূয়া বিল-ভাউচারের মাধ্যমে প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ, চলতি অর্থ বছরের কাবিখা ও কাবিটা প্রকল্পের কাজ শেষেও বিল না দেওয়াসহ  ১০ টি কার্লভার্ট নির্মাণের টাকা না দিয়ে নানা টালবাহানা করছেন এই মর্মে গত ২৮ জুন উপজেলা সমন্বয় সভায়  ইউপি চেয়ারম্যানেরা এমন অভিযোগ করেছেন। অন্যদিকে উপজেলা  প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বলছেন,বিলম্বে বরাদ্দ পাওয়ায় প্রকল্পে অগ্রীম টাকা প্রদান সম্ভব না হলেও ছোট প্রকল্পগুলোর টাকা ছাড়করণ ও বড় প্রকল্পগুলোর কাজের বাস্তবায়ন সাপেক্ষে অর্থ ছাড় করা হয়েছে। আর সোলার প্রকল্পে ইডকলের মনোনীত সহযোগী প্রতিষ্ঠান পিও কে প্রথম পর্যায়ের ৫০ শতাংশ অর্থ ছাড় করা হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নাধীন থাকায় কাজ শেষে ৪০ শতাংশ ও ১০ শতাংশ ৩ বছরের জন্য জামানত হিসেবে থাকবে।
এ ব্যাপারে তালা উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান এ প্রতিনিধিকে আরো বলেন, ২য় পর্যায়ের টিআর ও কাবিখা সাধারণ ও বিশেষ প্রকল্প ইউনিয়ন পর্যায়ে ও মাননীয় সংসদ সদস্য কর্তৃক প্রকল্প গ্রহণে বিলস্ব হওয়ায় বছরের শেষ পর্যায়ে চলতি জুন মাসের ২৪ তারিখে বরাদ্দ  পাওয়া গেছে। এছাড়াও অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচীর বাস্তবায়ন কাজ গত ২৫ মার্চ ১৮’ থেকে ২৫ মে পর্যন্ত নির্ধারিত ছিল। ইউনিয়ন পর্যায়ে প্রকল্প গ্রহণ ও উপকারভোগী বাছাইয়ে বিলম্ব হওয়ায় হলেও তা ১৫ ্এপ্রিল  শুরু হয়। সেই কারণেই কাজ ২৫ মে পর্যন্ত ২৮ দিন সম্পন্ন হয়।
এসময় প্রকল্প কর্মকর্তা আরো জানান, কার্লভার্টগুলোর সংযোগ সড়কগুলির কাজ শেষ না করেই ঠিকাদারেরা বিল দাবি করেন, যা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সেতু প্রকৌশলী এবং ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব রাশিদা বেগম প্রকল্পগুলি পরিদর্শন পূর্বক দ্রুত কাজ সম্পাদন করে বিল দাখিলের নির্দেশ দেন। এরপর কাজ শেষে প্রকল্পগুলি চূড়ান্ত অনুমোদন ও অর্থ প্রাপ্তির জন্য দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে প্রেরণ  করা হয়। বরাদ্দ পাওয়ার পর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বিল উপস্থাপন করলে সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বর্তমান মাগুরার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ ফরিদ হোসেন সময় না পাওয়ায় বিলগুলি ছাড় করণে বিলম্ব হয়। এরপর বর্তমান ভারপ্রাপ্ত ইউএনও অনিমেষ বিশ্বাস জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ট্যাগ অফিসার নিয়োগ পূর্বক তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে বিল প্রদান করেন।
এব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনিমেষ বিশ্বাসের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান,তিনি ও প্রকল্প কর্মকর্তার যৌথ সমন্বয়ে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সৃষ্ট সকল সমস্যার সমাধান করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ