ঢাকা, রোববার 8 July 2018, ২৪ আষাঢ় ১৪২৫, ২৩ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কুমিল্লায় বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার এক গৃহবধূ

কুমিল্লা থেকে সংবাদদাতা: কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক গৃহবধূ। ধর্ষণের শিকার ওই নারী এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী এবং এক সন্তানের জননী। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে নুরুল হক লিটন নামের এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সকালে কুমিল্লার আদালতের মাধ্যমে নুরুল হক লিটনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে রবিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আটক লিটন ওই গ্রামের আবদুল মজিদের পুত্র। তবে আসামিদের গ্রেফতারের স্বার্থে এ ঘটনায় জড়িত অপর দুইজনের নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ।
এর আগে গত শনিবার রাতে উপজেলার মক্রবপুর গ্রামে বাবার বাড়িতে ওই গৃহবধূকে একা পেয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তিন লম্পট।
স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, উপজেলার আদ্রা উত্তর ইউনিয়নের মেরকোট গ্রামের ওই গৃহবধূ ১০ দিন আগে উপজেলার মক্রবপুর ইউনিয়নের মক্রবপুর গ্রামে তার বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন।
গত শনিবার ওই নারীর মা এবং পরিবারের অপর সদস্যরা তাকে বাড়িতে রেখে একই উপজেলার পরকরা গ্রামের এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান।
এ সুযোগে মক্রবপুর গ্রামের আবদুল মজিদের পুত্র নুরুল হক লিটনসহ তিন লম্পট গত শনিবার রাতে ওই গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।
পরদিন রবিবার সকালে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর মা বাড়িতে ফিরলে নির্যাতিত ওই নারী তাকে ঘটনাটি জানান।
এরপর ওইদিন বিকেলে থানায় গিয়ে ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন ধর্ষিতা নিজেই।
নাঙ্গলকোট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, 'নির্যাতিত ওই নারী থানায় মামলা দায়ের করার পর আমরা অভিযান চালিয়ে রবিবার রাতে নুরুল হক লিটনকে গ্রেফতার করি।
এ ছাড়া অপর দুই আসামিকে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। '
তবে গ্রেফতার ও তদন্তের স্বার্থে অপর দুই আসামির নাম-পরিচয় প্রকাশ করেননি তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ