ঢাকা, সোমবার 9 July 2018, ২৫ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বীরের সম্মান পাচ্ছেন রাশিয়ার ফুটবলাররা

স্পোর্টস ডেস্ক : স্বাগতিক রাশিয়া যে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত আসতে পারবে, এমন ধারণা হয়তো অনেকেরই ছিল না। কিন্তু গ্রুপ পর্ব টপকে শেষ ষোলোতে এসে অন্যতম ফেভারিট স্পেনকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে রাশিয়ান ফুটবলাররা। তাঁদের নিয়ে তখন প্রত্যাশার পারদটাও হয়তো চড়ে যায়। তবে কোয়ার্টার ফাইনালেই ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে হেরে বিদায় নেয় স্বাগতিক রাশিয়া।  কিন্তু টাইব্রেকারে হারের পর বিশ্বকাপ মিশন শেষ হয়ে গেলেও ফুটবলারদের বীরোচিত সম্মান দিচ্ছেন রাশিয়ার মানুষ।সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর রাশিয়া হিসেবে তাদের প্রথম বিশ্বকাপটা ছিল ১৯৯৪ সালে। এরপর তারা বিশ্বকাপে আসতে পেরেছিল আর দুবার, ২০০২ ও ২০১৪ সালে। তিনবারই রাশিয়া  গ্রুপ পর্বে বিদায় নেয়। এবার তারা চলে গিয়েছিল কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত, সেটাও আবার শেষ ষোলোর ম্যাচে শক্তিশালী স্পেনকে বিদায় করে দিয়ে। ফলে ফুটবলারদের নিয়ে গর্ব তো হতেই পারে রাশিয়ানদের।এমনই এক ফুটবলপ্রেমী মস্কোর রাস্তায় উল্লাস করতে করতে বলেছেন, ‘আমাদের ছেলেরা সত্যিই খুব ভালো খেলেছে। এই বিশ্বকাপের আসরে এমন নৈপুণ্যের জন্য তাদের অনেক ধন্যবাদ। আমরা যা পেয়েছি, তা যথেষ্ট ভালো ছিল।’ ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালের পর আরেক রাশিয়ান শিক্ষার্থী বলেছেন, ‘ম্যাচটা খুবই দারুণ ছিল। আমাদের ছেলেরা ভালো খেলেছে। তারা সত্যিই খুব চেষ্টা করেছে। আমি খুবই খুশি। এবারই আমরা প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে পেরেছি।’

বিশ্বকাপে খেলা দলগুলোর মধ্যে ফিফার র‌্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে নিচে ছিল রাশিয়া কিন্তু দারুণ চমক দেখিয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠে সমর্থকদের প্রত্যাশা বাড়িয়েছিল দলটি। শেষ ষোলোর ম্যাচে ২০১০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেনকে হারিয়েছিল তারা। রাশিয়ার খেলোয়াড়দের কাছে এমন পারফরম্যান্স সম্ভবত প্রত্যাশাও করেনি দলটির সমর্থকরা। কিন্তু চেরিশেভরা আলো ঝলমলে ফুটবলে খেলে রাতারাতি জাতীয় বীর বনে যান। ক্রোয়েশিয়ার কাছে টাইব্রেকারে হেরে যাওয়ায় হতাশ রাশিয়া কোচ স্তনিস্লাভ চেরচেসভ। তবে মাথা উঁচু করে বিদায় নেওয়ার গর্বও অনুভব করছেন তিনি। “কীভাবে আমরা বিদায় নিচ্ছি সেটাই আমাদের মূল বিষয় যখন আপনি গর্ব অনুভব করবেন, তখন বিদায় নেওয়াটা তুলনামূলকভাবে ভালো। আমাদের বিশ্বকাপ জয়ের কোনো সুযোগ নেই এবং অবশ্যই এজন্য আমরা হতাশ। কিন্তু আমরা আমাদের সামর্থ্য দেখিয়েছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ