ঢাকা, সোমবার 9 July 2018, ২৫ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিএনপিকে ভারত কোনো রকম সুযোগ দেবে না -এইচ টি ইমাম

সংগ্রাম ডেস্ক : বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা হোসেন তৌফিক ইমাম (এইচ টি ইমাম) বলেছেন, ভারতের মন ভোলানোর হাজার চেষ্টা চালালেও বিএনপির নেতারা সফল হবেন না। ভারতের ‘থিঙ্ক ট্যাঙ্ক’ অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনে (ওআরএফ) আলোচনা শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে গত শনিবার এই মন্তব্য করেন তিনি।
এইচ টি ইমাম বলেন, যে দলের নেতা একজন দাগি অপরাধী, যিনি পুরোপুরি পাকিস্তানপন্থী, সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যাদের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে এবং জামায়াত যাদের হাতের মুঠোয় পুরে নিয়েছে, সেই বিএনপিকে ভারত কোনো রকম সুযোগ দেবে না, দিতে পারে না।
প্রধানমন্ত্রীর ওই উপদেষ্টা বলেন, যে দলটা শুরু থেকে ভারতের বিরুদ্ধে এবং যারা ভারতের ক্ষতি করার জন্য পাকিস্তান, চীন ও সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যোগসাজশ করে, ভারতের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বাংলাদেশ তাদের মোকাবিলা করবে। বিএনপি নেতাদের ভারত সফর সম্পর্কে এইচ টি ইমাম বলেন, যাঁরা এখানে এসেছেন তাঁদের কেউ কেউ প্রবলভাবে পাকিস্তান ও চীনপন্থী। ভারতের বিরোধিতা করাই তাঁদের একমাত্র কাজ।
উল্লেখ্য, গত জুন মাসের প্রথম দিকে বিএনপির তিন নেতা স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু এবং আন্তর্জাতিক-বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবীর দিল্লী এসেছিলেন। সেই সফরে তাঁরা বিভিন্ন মহলে দুটি রাজনৈতিক বার্তা দিতে গেছেন। তা হচ্ছে, অতীতের ভুলভ্রান্তি দূর করে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক নতুনভাবে স্থাপন করা। দ্বিতীয় বার্তা ছিল, ভারতের উচিত তার নিজের স্বার্থে বাংলাদেশের নির্বাচনে কোনো বিশেষ দলকে সাহায্য না করা। ভারতের এটা করা উচিত গণতন্ত্রের স্বার্থে।
অনুষ্ঠানে অবধারিতভাবে ওঠে তিস্তা প্রসঙ্গ। তিস্তা চুক্তি সই না হওয়ার বিষয়টি নির্বাচনে বড় ইস্যু হয়ে উঠবে কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, অধরা তিস্তা চুক্তি নিয়ে বিরোধীরা প্রশ্ন তুলবেই। কিন্তু তিস্তা এখন আর মোটেই কোনো সমস্যা নয়। তিনি বলেন, আজ হোক কাল হোক তিস্তা চুক্তি সই হবেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তা বারবার বলেছেন। দুই প্রতিবেশীর কারও কাছেই এটা সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে না।
হেফাজতে ইসলামকে আওয়ামী লীগ কেন তোষামোদ করছে? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা বলেন, হাজার হাজার মাদরাসা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের ছাত্রদের মোকাবিলা শক্তি দিয়ে হয় না। হেফাজতদের ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ তাই কৌশল বদল করেছে। এর ফলে হেফাজতদের অনেকেই এখন আওয়ামী লীগকে সমর্থন করছে।
তিন দিনের ভারত সফরের শেষ দিনে এইচ টি ইমাম বাংলাদেশ ও ভারতের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে ইতিহাস ও ভবিষ্যৎ গতি-প্রকৃতি নিয়ে ওআরএফে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, দুই দেশের সম্পর্ক পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাসের ওপর ভিত্তিশীল বলে ভবিষ্যতে তা আরও বিস্তার লাভ করবে। তিস্তা অধরা থাকলেও বহু ক্ষেত্রে পারস্পরিক সম্পর্ক যে দৃঢ় হয়েছে তার উল্লেখ করে তিনি বলেন, সীমান্ত-হত্যা প্রায় বন্ধ। ফেনসিডিল চোরাচালানও আজকাল হচ্ছে না। সম্পর্কের এই বহুমুখী উন্নতি সত্ত্বেও বিরোধীরা যে ভোটের সময় তিস্তাকে ইস্যু করবে তা তিনি অস্বীকার করেননি।
এই সফরে এইচ টি ইমাম ভারতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর ও বিজেপি নেতা রাম মাধবের সঙ্গে দেখা করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবেই। না নিলে তারা রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন হারাবে। সেই নির্বাচনে পাকিস্তানপন্থী শক্তিগুলো গোলমাল বাধানোর চেষ্টা করবেই। তাঁর মতে, দেশে চীনপন্থী তেমন বিশেষ কেউ নেই। চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কও বাণিজ্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ। বাণিজ্যের স্বার্থেই তারা বাংলাদেশে স্থিতিশীল সরকার চায়। কিন্তু পাকিস্তানপন্থীরা তা চায় না। তবে তাদের মোকাবিলায় সরকার প্রস্তুত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ