ঢাকা, সোমবার 9 July 2018, ২৫ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে ‘যান্ত্রিক ত্রুটি’র নামে বিদ্যুতের অসহনীয় ভেল্কিবাজি

রাজশাহী অফিস : রাজশাহীতে ‘যান্ত্রিক ত্রুটি’র নামে চলছে বিদ্যুতের অসহনীয় ভেল্কিবাজি। ভোল্টেজ ওঠানামায় ভোগান্তির অন্ত নেই নগরবাসীর। এই অবস্থার উন্নয়নে কোন হেলদোল নেই সংশ্লিষ্টদের।
বিদ্যুৎ অফিস  থেকে মাঝেমধ্যেই এলাকাভিত্তিক বিদ্যুৎ বন্ধের বিজ্ঞপ্তি দিয়ে দায় এড়ানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ থাকে না পুরো নগরীতে। দিনে রাতে যখন তখন বিদ্যুৎ চলে যায়। কখনো কখনো ঘন্টার পর ঘন্টা এই পরিস্তিতি চলতে থাকে। বিদ্যুৎ বিভ্রাটের ভেল্কিবাজিতে ভোগান্তির শিকার হয়ে পড়েছে গ্রাহকরা। পড়তে হয় নানামুখি বিড়ম্বনায়। যদিও বিদ্যুৎ অফিস বিদ্যুৎ না থাকাকে ‘লোডশেডিং’ বলতে নারাজ। তাদের ভাষায় যান্ত্রিক ত্রুটি। আর এই ত্রুটির নামেই মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে বিদ্যুৎপ্রাপ্তি থেকে। এর সাথে যোগ হয়েছে ভোল্টেজের ওঠানামা। আর এই ওঠানামার কারণে নষ্ট হচ্ছে ইলেক্ট্রিক ও ইলেকট্রনিক সামগ্রি- এমন অভিযোগ মানুষের মুখে মুখে। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বিদ্যুৎ বিতরণের জন্য যে লাইনগুলো রয়েছে তার ষাট শতাংশই ঝুঁকি নিয়ে বাসাবাড়িসহ বিভিন্ন স্থাপনায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে। বিদ্যুৎ খাতের প্রতিনিয়ত ভর্তুকি দেয়া হচ্ছে। মূল্য বৃদ্ধি করা হচ্ছে ঘনঘন। কিন্তু সে তূলনায় সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নতি হচ্ছে না। একারণে শুধু উন্নয়নই ব্যাহত হচ্ছে না বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে মানুষ। অফিস আদালতের কাজে স্থবিরতা সৃষ্টি হচ্ছে। ঘন ঘন বিদ্যুৎ যাওয়া আসা করায় টিভি, ফ্রিজ, ফ্যান এবং বাল্ব নষ্ট হচ্ছে। একদিকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কথা বলা হচ্ছে, অন্যদিকে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে না। ফলে ডিজিটাল দেশ গড়ার শ্লোগান কেবলই মুখরোচক কথায় পরিণত হচ্ছে বলে মন্তব্য সাধারণ গ্রাহকদের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ