ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 July 2018, ২৮ আষাঢ় ১৪২৫, ২৭ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সিলেট সিটির উন্নয়ন ও অগ্রগতির প্রতীক টেবিল ঘড়ির বিজয় নিশ্চিত করতে হবে -এডভোকেট জুবায়ের

আসন্ন সিসিক নির্বাচনকে সামনে রেখে নগরীর ৬নং ওয়ার্ডের বাদামবাগিচায় এলাকাবাসীর সাথে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন নাগরিক ফোরাম মনোনীত মেয়র প্রার্থী এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের

সিলেট ব্যুরোঃ আসন্ন সিলেট সিটি নির্বাচনে সিলেট নাগরিক ফোরাম মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী বিশিষ্ট আইনজীবী এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেছেন- নানা সমস্যায় জর্জরিত সিলেট সিটিকে এগিয়ে নিতে অতীতেও নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা কাজ করেছেন। কিন্তু তারপরও সুষ্ঠু পরিকল্পনা ও ব্যবস্থাপনার কারণে কাঙ্খিত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত রয়ে গেছে নগরী। নগর পরিচালনার প্রতিটি কাজে জনগণের সম্পৃক্তা নিশ্চিত করতে পারলে নগরীর চেহারা পাল্টে যাবে। সকল কাজে জবাবদিহীতার মনোভাব জনপ্রতিনিধিদের সৎ থাকতে সহযোগিতা করে। আমরা সেই লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছি। সিলেট সিটির উন্নয়ন ও অগ্রগতির প্রতীক মনে করে টেবিল ঘড়ির বিজয় নিশ্চিত করতে হবে।
তিনি গতকাল বুধবার নগরীর ৬নং ওয়ার্ডের বাদামবাগিচায় এলাকাবাসীর সাথে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। সমাজসেবী মারুফ আহমদের সভাপত্বি ও সংগঠক কামরুল হাসান জুয়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- এলাকার বিশিষ্ট মুরব্বী মতিউর রহমান, শফিকুর রহমান, জাকির হোসেন, সুরুজ আলী ও সুলতান মিয়া প্রমুখ।

সিলেটের মানুষ নৌকার
পক্ষে ঐক্যবদ্ধ -কামরান
সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেছেন- উন্নয়নে বিশ্বাসী বলে সিলেটের মানুষ এখন নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ। যেখানেই যাচ্ছি মানুষের ভালোবাসায় ও দোয়া সিক্ত হচ্ছি। আশাকরি আগামী ৩০ জুলাই সিলেটের মানুষ নৌকার পক্ষে মত দেবেন।
তিনি বলেন- এই সিলেট আধ্যাত্মিক শহর, প্রবাসী শহর। এই নগরীকে উন্নত নগরী করে গড়ে তোলতে হলে দলমত নির্বিশেষে সবার অংশগ্রহণ প্রয়োজন। একই সঙ্গে সিলেটের সামাজিক শক্তিকে পুনরায় প্রতিষ্ঠিত করে সন্ত্রাস ও মাদকের বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়ে তোলতে হবে।
বদর উদ্দিন আহমদ কামরান গতকাল বুধবার দুপুরে সিলেটের রিকাবীবাজার পয়েন্টে গণসংযোগকালে প্রিন্ট ও টেলিভিশন মিডিয়ার সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন।
এ সময় তিনি আসন্ন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন। বদরউদ্দিন আহমদ কামরান রিকাবীবাজারের সর্বস্তরের ব্যবসায়ী সহ সাধারন মানুষের সঙ্গে গণসংযোগ করেন।
এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন- মহানগর আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ, সিলেট মহানগর যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মুশফিক জায়গীরদার, সিলেট মহানগরীর ৩নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা মুজিবুর রহমান সাহেদ, মুরাদ আহমদ মুরন, আব্দুর রহমান, বদরুল ইসলাম, শ্যামল সিং, শামী আহমদ, নজরুল ইসলাম, হাফিজ আহমদ, সুয়েব আহমদ সহ রিকাবীবাজার এলাকার ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন প্রমুখ।

সিসিকে সংরক্ষিত আসনে নারীরা
কে কোন প্রতীক পেলেন
সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই প্রার্থীরা নেমে পড়েছেন প্রচার-প্রচারণায়। গত মঙ্গলবার প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার পরপরই পুরুষ প্রার্থীদের পাশাপাশি নারী প্রার্থীরাও শুরু করেছেন আনুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা। পাড়া-মহল্লায় উঠান বৈঠকও শুরু করেছেন তারা। মাইকের শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠছে গোটা নগরী।
নিজেদের প্রতীক সংবলিত লিফলেট বিলি করছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। এলাকাগুলোতে টানানো হয়েছে ব্যানার-ফেস্টুন। টানানো হয়েছে পোস্টারও।
সাধারণ তিনটি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয়েছে একেকটি সংরক্ষিত আসন। সেই হিসেবে নগরীতে সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদ রয়েছে ৯টি। এগুলোতে লড়াইয়ে আছেন ৬২ জন নারী। তারা কে কোন প্রতীক পেলেন তা নিচে দেয়া হল।
সংরক্ষিত ১ আসনে (১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড) আছিয়া বেগম- হেলিকপ্টার, দিলরুবা ইসলাম- বই, সালমা সুলতানা- চশমা, কোহিনুর ইয়াসমীন ঝর্ণা- জিপ গাড়ি, সন্ধ্যা লহ্মী দে- ডলফিন, রতœা বেগম- মোবাইল ফোন।
সংরক্ষিত ২ আসনে (৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড) জাহানারা খানম মিলন- বই, আকতারুন নেসা বেগম- ডলফিন শেলিনা রাজা- আনারস, কুলসুমা বেগম পপি- হেলিকপ্টার, রুনা বেগম- মোবাইল ফোন, রেহানা ফারুক শিরিন- জিপ গাড়ি, আমিনা কায়সার- চশমা।
সংরক্ষিত ৩ আসনে (৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড) মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থী যারা ফেরদৌস আরা- বই, মোছাম্মাৎ মিতা বেগম- গ্লাস, রেবেকা বেগম- আনারস, রেবেকা জাহান- হেলিকপ্টার, শ্যামলী সরকার- মোবাইল ফোন, রোকসানা খানম-ডলফিন, আলিমুন- চশমা।
সংরক্ষিত ৪ আসনে (১০, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ড) মাসুদা সুলতানা- চশমা, মোছা. রুহেনা খানম মুক্তা- জিপ গাড়ি, রোজিনা আক্তার- বই, সালমা আক্তার- আনারস।
সংরক্ষিত ৫ আসনে (১৩, ১৪ ও ১৫ নং ওয়ার্ড) শাহানা বেগম শানু- ডলফিন, মোছাম্মাৎ খালেদা বেগম হেনা- বই, খোরশেদা আক্তার বিউটি- চশমা, পাপিয়া চৌধুরী- হেলিকপ্টার, দিবা রাণী দে- আনারস, পারুল মজুমদার- মোবাইল ফোন।
সংরক্ষিত ৬ (১৬, ১৭ ও ১৮ নং ওয়ার্ড) শাহানারা বেগম- বই, রেহেনা ইয়াসমীন- চশমা, রোকসানা আক্তার জলি- ডলফিন, মোছা. কামরুন নাহার চৌধুরী তিন্নি- আনারস, সিমলী বেগম- হেলিকপ্টার, ইন্দ্রানী সেন- গ্লাস, ফাতেমা জামান রোজী- মোবাইল ফোন।
সংরক্ষিত ৭ আসনে (১৯, ২০ ও ২১ নং ওয়ার্ড) শামীমা স্বাধীন- গ্লাস, নাজনীন আকতার কণা- জিপ গাড়ি, ক্ষমা রাণী দে- বই, মোছা. মাহমুদা নাজিম রুবি- বেহালা, ডায়না বেগম সুমাইয়া- মোবাইল ফোন, নার্গিস সুলতানা- চশমা, শিবানী দেব রায়- স্টিল আলমারি, মোছা. মুক্তা বেগম- ডলফিন, মোছা. নাসরিন ইসলাম- হেলিকপ্টার, স্বপ্না বেগম- আনারস।
সংরক্ষিত ৮ আসনে (২২, ২৩ ও ২৪ নং ওয়ার্ড) মোছা. হেনা বেগম- বই, সালেহা কবীর শেপী- চশমা, জোসনা ইসলাম- আনারস, রেবেকা আক্তার লাকী- জিপ গাড়ি, রিনা বেগম- মোবাইল ফোন।
সংরক্ষিত ৯ আসনে (২৫, ২৬ ও ২৭ নং ওয়ার্ড) আসমা বেগম- মোবাইল ফোন, অ্যাডভোকেট রোকসানা বেগম শাহনাজ- চশমা, ছামিরুন নেসা- গ্লাস, পারভিন বেগম- জিপ গাড়ি, রুবি বেগম- হেলিকপ্টার, নাসিমা চৌধুরী- ডলফিন, লিজা আক্তার- আনারস, আসমা বেগম- মোবাইল ফোন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ