ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 July 2018, ২৮ আষাঢ় ১৪২৫, ২৭ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মিরসরাই ট্র্যাজেডির ৭ম বর্ষপূর্তি পালিত অশ্রুসিক্ত নয়নে সন্তানদের স্মরণ

মিরসরাই (চট্টগ্রাম)সংবাদাতা: চট্টগ্রামের মিরসরাই ট্র্যাজেডির ৭ম বর্ষপূর্তি পালিত হলো। অশ্রসিক্ত নয়নে আদরের সন্তানদের স্মরণ করলো স্বজনরা। বুধবার (১১ জুলাই) নানা আয়োজনে মিরসরাই ট্র্যাজেডি পালিত হয়। সকাল ৯টায় শোক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষকবৃন্দ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, নিহত ছাত্রদের স্বজনবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে নিহত ছাত্রদের স্মরণে নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভ ‘আবেগ’ ও ‘অন্তিম’ এর স্থলে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। এরপর ফুল দিয়ে নিহতদের শ্রদ্ধা জানান মিরসরাই উপজেলা পরিষদ, মিরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগ, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ, আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয়, মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদ, মায়ানী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অংগসংগঠন, মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ, মঘাদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অংগসংগঠন সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। পরে আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এক স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এম আলা উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও মায়ানী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম গোলাম সরওয়ারের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রুহেল, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য শেখ আতাউর রহমান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ইয়াসিমন শাহীন কাকলী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কায়সার খসরু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ, মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির নিজামী, মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের জাহাঙ্গীর হোসাইন মাস্টার, ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা, প্রফেসর কামাল উদ্দিন কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) নুরুল আবছার, আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মর্জিনা আক্তার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক নুরুল গনি, দপ্তর সম্পাদত তোফায়েল উল্লাহ চৌধুরী নাজমুল, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মোস্তফা মানিক, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভির হোসেন চৌধুরী তপু, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেল ইকবাল চৌধুরী প্রমুখ।
প্রধান অতিথি গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেন, মিরসরাই ট্র্যাজেডি শুধু মিরসরাই বাসীর জন্য শোকগাঁথা নয়। এটি পুরো দেশকে নাড়া দিয়েছিল। সে আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ছুটে এসেছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান, বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াসহ অনেক রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।তিনি আরো বলেন, আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয়কে সরকারিকরণ করা দাবি উঠেছিল। বিষয়টি সরকারের নজরে রয়েছে। নতুন করে উচ্চ বিদ্যালয় সরকারি করণে ঘোষনা এলে আবুতোরাব উচচ বিদ্যালয়কে প্রথমে সরকারিকরণ করা হবে।এদিকে মঙ্গলবার সকালে আবুতোরাব এলাকায় আসেন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন। তিনি স্মৃতিস্তম্ভ ‘আবেগ’ ও ‘অন্তিম’ এ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
প্রসঙ্গতঃ ১১ জুলাই ২০১১, সোমবার : মিরসরাই স্টেডিয়াম থেকে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল ফাইনাল খেলা শেষে একটি মিনি ট্রাকে করে বিজয়ী এবং বিজিত উভয় দলের খেলোয়াড় ও সমর্থকরা আবুতোরাব এলাকায় যাচ্ছিল। বড়তাকিয়া-আবুতোরাব সড়কের সৈদালী এলাকায় ৬০-৭০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে ডোবায় উল্টে যায় মিনি ট্রাকটি। যার নং চট্ট মেট্রো - ড - ১১-০৩৩৭। ডোবার জল থেকে একে একে উঠে আসে লাশ আর লাশ। ২০১১ সালের ২৪ নভেম্বর রাত ৯ টায় নয়নশীলের প্রয়ান পর্যন্ত ৪৫ টি মৃত্যু গুণতে হয়। সব মিলিয়ে ৪৫ জনের প্রাণের বিনিময়ে রচিত হয় মিরসরাই ট্র্যাজেডি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ