ঢাকা, শুক্রবার 13 July 2018, ২৯ আষাঢ় ১৪২৫, ২৮ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খালেদা জিয়ার জামিন ১৯ জুলাই পর্যন্ত বৃদ্ধি

স্টাফ রিপোর্টার: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজার রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা আপিল শুনানি আগামী রোববার পর্যন্ত মুলতবি করেছেন হাইকোর্ট। আপিল শুনানিতে আদালত খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ ১৯ জুলাই পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছেন। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। এদিন সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদার করা আপিলের ওপর প্রথম দিনের মতো শুনানি গ্রহণ করেন আদালত। আগামী রোববার বিকাল ২টায় পরবর্তী শুনানির ক্ষণ ধার্য করা হয়েছে।

ওই মামলায় সাজার রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে খালেদা জিয়া হাইকোর্ট থেকে চার মাসের জামিন পেয়েছিলেন। এই জামিনের মেয়াদ গতকাল ১২ জুলাই শেষ হচ্ছে। এর আগে খালেদা জিয়ার এই জামিনের মেয়াদ বাড়াতে আদালতে আবেদন করেন তাঁর আইনজীবীরা। যার পরিপ্রেক্ষিতে আজ আদালত ১৯ জুলাই পর্যন্ত জামিনের মেয়াদ বাড়ান। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আদালতের কার্যক্রম শুরু হলে খালেদার আইনজীবী এ জে মো. আলী পেপারবুকে (মামলার বৃত্তান্ত) গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাদি ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই উল্লেখ করে ওই সব তথ্য সরবরাহের জন্য একটি আবেদন দাখিল করেন। এ অবস্থায় আদালত বলেন, ‘ রোববার আবেদনটি তালিকায় আসবে। আমরা শুনব।’

সকাল ১১টার দিকে আপিলের শুনানি শুরু হয়। খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ জে মো. আলী ও আবদুর রেজাক খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর দুদকের পক্ষে খুরশীদ আলম খান। পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবী মীর হেলাল প্রথম আলোকে বলেন, প্রথম দিনের শুনানিতে পেপারবুক থেকে মামলার এজাহার ও অভিযোগপত্র উপস্থাপন করা হয়েছে। এই মামলায় পাঁচ বছরের সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া আপিল করেছিলেন। ১৬ মে আপিল বিভাগ এক আদেশে ওই আপিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। এই আদেশ পুনর্বিবেচনা চেয়ে খালেদা জিয়া ২৫ জুন আপিল বিভাগে আবেদন করেন। এর ওপর ৯ জুলাই শুনানি শেষে আদেশের জন্য আজকের দিন ধার্য করেছিলেন আপিল বিভাগ। সর্বোচ্চ আদালতের আদেশে বলা হয়, আপিলের শুনানি ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ না হলে সময়ের প্রার্থনা বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত। সে পর্যন্ত আবেদনটি স্ট্যান্ড ওভার মুলতবি রাখা হয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদ- ও অর্থদ-াদেশ দিয়ে রায় দেন বিচারিক আদালত। এরপর থেকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন তিনি। এই সাজার রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে হাইকোর্ট থেকে জামিন পান তিনি। হাইকোর্টের জামিন বহাল রেখে ১৬ মে রায় দেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে খালেদার করা আপিল হাইকোর্টে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। এর আগে দুর্নীতি দমন কমিশনের এক আবেদনের শুনানি নিয়ে ২৮ মার্চ হাইকোর্ট খালেদা জিয়ার সাজা বৃদ্ধি প্রশ্নে রুল দেন।

খালেদার রিভিউ পুনর্বিবেচনা করার সুযোগ থাকবে : আগামী ৩১ জুলাইর মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি করতে আপিল বিভাগের আদেশের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার রিভিউ আবেদন স্ট্যান্ডওভার (মুলতবি) রেখেছেন আপিল বিভাগ।

তবে ৩১ জুলাইর মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি না হলে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আপিল শুনানির সময় বৃদ্ধির আবেদন জানানোর সুযোগ থাকবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালত আদেশে খালেদা জিয়ার আপিল শুনানি শুরু করতে বলেছেন। ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আপিল শুনানি শেষ করা সম্ভব না হলে পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে আদেশ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এ জে মোহাম্মদ আলী ও জয়নুল আবেদীন শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবী এডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘আদালত আজকে একটি আদেশ দিয়ে বলেছেন, আপনারা শুরু করেন। ৩১ জুলাইর মধ্যে যদি সমাপ্ত না হয়, তাহলে পরবর্তী সময়ে এ বিষয়টি আদালত পুনর্বিবেচনা করবে। আদালত এ আদেশ দিয়ে রিভিউ আবেদনটি স্ট্যান্ডওভার (মুলতবি) করেছেন।’

আইনজীবী আরো বলেন, ‘এ আদেশের ফলে বিষয়টি এখন ওপেন হলো। আগে যেমন ৩১ জুলাইর মধ্যে শেষ করার বাধ্যবাধকতা ছিল, এখন সেটি আর থাকল না।’

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি বলেন, ‘আমরাও চাই এ মামলা শেষ করতে। প্রপারলি শেষ করতে চাই। কিন্তু এ মামলায় যে পরিমাণ ডকুমেন্টস রয়েছে, তা শেষ করতে সময় লাগবে। এর আগে গত ৯ জুলাই এ বিষয়ে আদেশের জন্য ১২ জুলাই দিন নির্ধারণ করেন আপিল বিভাগ।’

গত ২৭ জুলাই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় দ-প্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজার বিরুদ্ধে আপিল ৩১ জুলাইর মধ্যে নিষ্পত্তি করতে আপিল বিভাগের আদেশের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন করা হয়।

গত ১৬ মে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দ-প্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে খালেদা জিয়া তাঁর সাজার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যে আপিল দায়ের করেছিলেন, তা ৩১ জুলাইর মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেওয়া হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের সাজা দেওয়ার পর গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারেই আছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ