ঢাকা, রোববার 15 July 2018, ৩১ আষাঢ় ১৪২৫, ১ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অনুমতি থাকা সত্ত্বেও পুলিশী বাধায় জিয়া পরিষদের সেমিনার পণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার: অনুমতি নিয়েও সেমিনার করতে পারেনি জিয়া পরিষদ। পুলিশের বাধায় বিএনপির অঙ্গ সংগঠন জিয়া পরিষদের সেমিনার পন্ড হয়ে গেছে। পুলিশ বলছে, সংগঠনটি সেমিনার করার জন্য কোন অনুমতি নেননি। আর জিয়া পরিষদের নেতারা বলছেন, পুলিশ সেমিনার আয়োজনে মৌখিক অনুমতি দিয়েছিল। এ ঘটনায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। গতকাল শনিবার ঢাকার রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের সেমিনার কক্ষে ‘নাগরিক অধিকার, আইনের শাসন এবং গণতন্ত্র বাংলাদেশে প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করে জিয়া পরিষদ। সকাল সাড়ে ১০টায় সেমিনারটি শুরুর কথা ছিল।
জিয়া পরিষদের চেয়ারম্যান কবীর মুরাদ বলেন, সকাল সোয়া ১০টার দিকে পুলিশ এসে বলে, এই অনুষ্ঠানের কোনো অনুমতি নেই। সমাবেশ করা যাবে না। অথচ পুলিশ সেমিনার করার জন্য মৌখিক অনুমতি দিয়েছিল।
সেমিনার করার জন্য গত ২ জুলাই রমনা জোনের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদারের কাছে লিখিত আবেদন করা হয়েছিল উল্লেখ করে জিয়া পরিষদের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব আবদুল্লাহ হিল মাসুদ বলেন, তখন তিনি (মারুফ হোসেন) কিছু বলেননি। এর দুদিন পর ৪ তারিখে যোগাযোগ করা হলে মারুফ হোসেন সেমিনার আয়োজনের প্রস্তুতি চালিয়ে যেতে বলেন। যে কারণে সারা দেশ থেকে বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিদের দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল। অথচ মারুফ হোসেন সরদার বলছেন, বিএনপি বা অন্য কেউ রমনায় সেমিনার করার জন্য লিখিত বা মৌখিক অনুমতি নিতে আসেনি। এই কারণে হয়তো তাদের অনুষ্ঠান করতে দেওয়া হয়নি।
গতকাল শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে সেমিনারের প্রধান অতিথি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে আসেন। সেমিনার না করতে দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দেশে ন্যুনতম গণতান্ত্রিক স্পেস নেই। মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নেই। আজকে (গতকাল) এখানে কোনো রাজনৈতিক দলের সমাবেশ নয়, অরাজনৈতিক একটি সংগঠনের সমাবেশ ছিল। সেটাও এই সরকার করতে দেয়নি। তিনি এর তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানান।
মির্জা ফখরুল বলেন, এটা খুবই পরিতাপের কথা। দুর্ভাগ্যের কথা যে আজকে বাংলাদেশ সরকারের পুলিশ বিভাগ তারা একটা ভয়ংকর দুঃশাসনের কাজ করছে। পুলিশ অত্যাচার-নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, সেমিনার আয়োজনের সবকিছুই সকাল সাড়ে ১০টার আগেমই সম্পন্ন করা হয়। সেমিনার কক্ষে ব্যানারও টানানো হয়। ঢাকা, রাজশাহী, সিলেট, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষকরাও এই অনুষ্ঠানে অংশ নিতে অনুষ্ঠানস্থলে আসেন। কিন্তু পুলিশী বাধায় সেটি আর হলো না। পরে আয়োজকরা অনুষ্ঠানটি বাতিল করে।
নিন্দা ও প্রতিবাদ: ঢাকা মহানগর দক্ষিণ হাজারীবাগ থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ এবং যুগ্ম সম্পাদক ফয়েজসহ পাঁচ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার বিএনপিসহ দেশের বিরোধী দলগুলোর নেতাকর্মীদেরকে মিথ্যা ও রাজনৈতিক হীন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় জড়িয়ে গ্রেফতারের মাধ্যমে নির্যাতন নিপীড়ণের ঘৃণ্য পন্থা অবলম্বনের লক্ষই হচ্ছে দেশকে বিরোধী দলশুন্য করে আওয়ামী শাসন দীর্ঘায়িত করা। এটি নি:সন্দেহে দেশের বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদেরকে মানসিক ও রাজনৈতিকভাবে পর্যদুস্ত করার জন্য সরকারের ধারাবাহিক কুটকৌশল। সরকারের চরম রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বলেই গতকাল ঢাকা মহানগর দক্ষিণ হাজারীবাগ থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ এবং যুগ্ম সম্পাদক ফয়েজসহ পাঁচ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিএনপি মহাসচিব অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহার এবং নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ