ঢাকা, সোমবার 16 July 2018, ১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সিলেটের উন্নয়নে একসাথে কাজ করবেন আরিফ-কামরান

সিলেট ব্যুরো : ফলাফল যাই হোক সিলেটের উন্নয়নে একসাথে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। গতকাল রোববার দুপুরে ‘সংলাপে নাগরিক অগ্রাধিকার’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এ প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সিলেট সিটি নির্বাচনের এই দুই মেয়র প্রার্থী।
‘শান্তি জিতলে জিতবে দেশ’ স্লোগানকে সামনে রেখে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশল, ইউএসএআইডি ও ইউকে এইড এর যৌথ উদ্যোগে নগরীর একটি হোটেলের হলরুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সংলাপে প্যানেল বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আরিফুল হক চৌধুরী ও বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। অনুষ্ঠানের শুরুর দিকে সিলেট সিটি করপোরেশনের নাগরিক অগ্রাধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে নগরীর বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সুধীজনরা কয়েকটি টিমে বিভক্ত হয়ে অংশ নেন। কর্মশালা থেকে নগর উন্নয়নে প্রাপ্ত বিভিন্ন পরামর্শ ও পরিকল্পনা তুলে ধরা হয় দুই মেয়রপ্রার্থীর সামনে। পরে তারা এগুলোর উপর আলোকপাত করে বক্তব্য রাখেন। নগরকে সাজানোর ব্যাপারে তুলে ধরেন নিজেদের পরিকল্পনাও।
আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘আমি আমার দায়িত্বকালে ৫ বছরের মধ্যে প্রায় তিনবছরই ছিলাম সরকারের হেফাজতে। সে কারণে আমি নগরবাসীর উন্নয়নে কাজ করতে পারিনি। মাত্র ২ বছরে যতোটুকু কাজ করেছি সেগুলো সবাই জানেন। নগরীর অন্যতম সমস্যা হচ্ছে জলাবদ্ধতা সমস্যা। সেটি নিরসনে আমি নিরন্তর কাজ করেছি। যার সুফল নগরবাসী পাচ্ছেন। নগরবাসীকে উন্নত সেবা প্রদানের জন্য আমরা সিটি করপোরেশনকে ডিজিটালাইজড করেছি। এখন নগরবাসী ঘরে বসেই সিটি করপোরেশনের অনেক সেবা নিতে পারছেন।’
আরিফুল হক চৌধুরী আরোও বলেন- ‘নগরীর সৌন্দর্যবর্ধনে অনেক কাজ করা হয়েছে। ধোপাদিঘী পাড়ে নির্মিত হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ওয়াকওয়ে। যার মাধ্যমে নগরবাসী পাবেন নির্মল নিঃশ্বাস গ্রহণের স্থান। যানজট নিরসনের লক্ষ্যে ফুটপাত অবৈধদখলমুক্ত করার লক্ষ্যে আমি আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছি। কিন্তু অদৃশ্য শক্তির কারণে হকাররা রাজপথ ছাড়ছে না। তারা আদালতের নিষেধও মানছেনা। ইনশাআল্লাহ আমি আগামীতে সুযোগ পেলে কোন অপশক্তির কাছে মাথানত করবো না। এই সিলেট নগরীকে সত্যিকারের একটি সৌন্দর্যমন্ডিত নগর হিসেবে গড়ে তুলবো।’
বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন- ‘নগরীর অন্যতম সমস্যা মাদকসমস্যা। এটির নিরসনে নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধি ও নাগরিকদের নিয়ে ৩০ সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতো যুদ্ধ করবো। ইনশাআল্লাহ এই পুণ্যভূমি মাদকমুক্ত হবে। নগরীর যানজট সমস্যার জন্য হকাররা একা দায়ী নয়। এদের সাথে যানবাহনগুলোও দায়ী। যানজট নিরসনে নগরীর ব্যস্ততম স্থানে একাধিক বহুতল পার্কিং জোন নির্মাণ করবো। নগরীর বেকার যুবসমাজকে কাজে লাগাতে তাদের জন্য প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবো।’
সংলাপের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের পরিচালক (কার্যক্রম) আমিনুল এহসান। অনুষ্ঠানে সিলেটের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সুধীসমাজের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। দুই মেয়র প্রার্থীই আগামী দিনগুলোতে সম্মিলিত ভাবে নগরকে সাজানোর লক্ষ্যে কাজ করার প্রত্যয়ও প্রকাশ করেন।
জীবন উৎসর্গ করবে
সিসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী গতকাল রোববার নগরীতে ধানের শীষের সমর্থনে গণসংযোগকালে বলেছেন ‘আমি যেখানেই যাচ্ছি সেখানেই অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছি। সিলেটবাসীর ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ-অভিভূত। তিনি বলেন, আমার উপর কি অবিচার হয়েছে তা সিলেটবাসী ভালো করেই জানেন। তারপরও আমি মনোবল হারাইনি। সিলেটের উন্নয়নের স্বার্থে আমি আমার উপর অন্যায় অবিচার ভুলে গিয়ে প্রতিটি পাড়া মহল্লার উন্নয়নে ঝাঁপিয়ে পড়েছি। নতুন প্রজন্মের জন্য একটি পরিকল্পিত নগরী গড়ার স্বার্থে প্রয়োজনে আমি নিজের জীবন উৎসর্গ করব।’
রোববার সকালে নগরীল বন্দরবাজারস্থ মধুবন মার্কেট থেকে শুরু করে বন্দরবাজার, লালদিঘীর পাড়, মহাজনপট্টি, কালিঘাট বাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় গণসংযোগ করেন আরিফ। এ সময় তিনি সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন এবং উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগামী ৩০ জুলাই সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে তাকে ভোট দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান। গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বদরুদ্দোজা বদর, খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগর-এর সহ সভাপতি আব্দুল হান্নান তাপাদার, ছাত্রদল নেতা মাহবুবুল হক চৌধুরী, আম্বরখানা বাজার কমিটির সভাপতি কুতুবুর রহমান চৌধুরী, মহানগর বিএনপি নেতা আব্দুস সবুর, সদস্য শেখ নুরুল মুত্তাকিম প্রমুখ। এছাড়াও ছাত্রদল, যুবদল, শ্রমিকদলসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
নগরবাসী নৌকা প্রতীকে ভোট দেবেন
আধুনিক নগর গড়তে সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সিলেট নগরবাসী ‘নৌকা’ প্রতীকে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগের বিজয় নিশ্চিত করবেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনি প্রচার কাজ শুরু হওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা নগরীর প্রতিটি অলিগলি এবং ঘরে ঘরে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চাচ্ছেন। এখন পুরো নগরীতে নৌকার গণজোয়ার বইছে।’
গতকাল রোববার সকালে দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে নগরীর বৃহত্তর রায়নগরের কামাল জামাল মোকাম এলাকা, দর্জিপাড়া, দপ্তরীপাড়া, রায়নগর, দর্জিবন্দসহ পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেছেন তিনি। এ সময় কামরান আরো বলেন, ‘নৌকা হচ্ছে স্বাধীনতার ও উন্নয়নের প্রতীক। যখনই নৌকার বিজয় হয়েছে তখনই সিলেটসহ পুরো দেশে উন্নয়নের জোয়ার উঠেছে।’
গণসংযোগকালে  তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত ড. এ.কে আব্দুল মোমেন, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুল ইসলাম পুতুল, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক তপন মিত্র, প্রচার সম্পাদক আব্দুর রহমান জামিল, আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল হোসেন দুলাল প্রমুখ।
ব্যবসায়ীদের কমিটি গঠন
সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীকে ব্যবসায়ীদের বন্ধু উল্লেখ করে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ বলেন, তার মাধ্যমে সিলেটে ব্যবসায়ীদের প্রচুর উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। উপযুক্ত ব্যবসার পরিবেশ নিশ্চিৎ করতে আরিফুল হক চৌধুরী জীবন বাজি রেখে ফুটপাতে নেমেছেন। আরিফুল হক চৌধুরীকে বিজয়ী করার জন্য আমাদেরকে সর্বাত্মকভাবে কাজ করতে হবে। নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য হলেও আরিফুল হককে বিজয়ী করতে হবে। গত শনিবার রাতে নগরীর জিন্দাবাজারস্থ আল মারজান শপিং সিটিতে ধানের শীষের সমর্থনে সম্মিলিত ব্যবসায়ী ফোরাম আয়োজিত মতবিনিময় সভায় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ এমন মন্তব্য করেন।
সিলেট হোটেল মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আপনাদের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ। জনগণের সেবা করার জন্য আমি মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলাম। কিন্তু সরকারের বিভিন্নমুখী রূঢ় আচরণের জন্য আমার কাজগুলো সমাপ্ত করতে পারিনি। তারপরও সিলেট সিটি করপোরেশনের যথেষ্ট উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।
ফোরামের সদস্য সচিব মোস্তফা মেহদী হাসান খানের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় আসন্ন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচেনে মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর পক্ষে কাজ করার জন্য ব্যবসায়ীরা প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। মতবিনিময় সভায় সিলেট নগরীর বিভিন্ন মার্কেটের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ