ঢাকা, সোমবার 16 July 2018, ১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে বিভেদ ভুলে ধানের শীষের পাশে নেতা -কর্মীরা

রাজশাহী অফিস : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সববিভেদ ভুলে ধানের শীষের পাশে দাঁড়িয়েছেন বিএনপি’র নেতাকর্মীরা। দলীয় সূত্র জানায়, কেন্দ্রের নির্দেশে ধানের শীষ প্রতীকের বিজয়ের স্বার্থে আপাতত এই বিভেদের অবসান ঘটেছে।
জেলা ও মহানগর শাখা বিএনপি’র নেতাদের মধ্যে যে প্রবল মনকষাকষি বিরাজমান ছিলো, এমনকি এক নেতা আরেক নেতার মুখ দেখাদেখি পর্যন্ত ছিলো না- তা ভুলে গিয়ে এখন দলীয় প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু সার্বক্ষণিক সময় দিচ্ছেন নির্বাচনের প্রস্তুতি ও জনসংযোগে। বিএনপি’র মহানগর সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট করা হয়েছে জেলা সভাপতি এডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন তপুকে। মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শফিকুল হক মিলন ও জেলার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মতিউর রহমান মন্টু প্রস্তুতি ও প্রচারণায় নিয়মিত অংশ নিচ্ছেন। সাবেক জেলা সভাপতি ও সাবেক এমপি এডভোকেট নাদিম মোস্তফাও অভিমান ভুলে নির্বাচনী মাঠে নেমেছেন। নির্বাচনী তৎপরতায় আছেন কেন্দ্রীয় সাংগাঠনিক সম্পাদক এডভোকেট শাহীন শওকত। বিএনপি’র থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ে এবং অঙ্গ ও সহযোগী দলের মধ্যে যে গ্রুপিং দেখা যেতো তারও অবসান ঘটতে দেখা গেছে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময়েও দলের মধ্যে আশঙ্কা ছিলো এই দ্বন্দ্ব ও গ্রপিং নিয়ে। কিন্তু মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ধানের শীষ প্রতীক সামনে চলে আসায় এই দ্বন্দ্ব ও গ্রপিং ঝেড়ে ফেলতে সমর্থ হন নেতা-কর্মীরা- এমনটিই জানান দলীয় সূত্র। মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল জানান, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং ধানের শীষ প্রতীকের লড়াই এখন দলের নেতা-কর্মীদের কাছে বড় হয়ে দেখা দিয়েছে। ফলে নগরীর প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় এর ঢেউ লেগেছে। এই ঐক্যবদ্ধ অবস্থান ইনশাআল্লাহ বিজয় নিশ্চিত করবে।
এদিকে বিএনপি মেয়র প্রার্থী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল গতকাল রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ৫ ও ৬ নং এবং বিকেল থেকে রাত অবধি ৩নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু, পুঠিয়া দূর্গাপুরের সাবেক এমপি ও জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এ্যাড. নাদিম মোস্তাফা, মহানগর সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শফিকুল হক মিলন, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সভাপতি শওকত আলী, সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, ৫নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি জাহিদুল ইসলাম লিটন, সাধারণ সম্পাদক মামুন, ৬নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি গোলাম নবী গোলাপ, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমমান মিন্টু, বিএনপি নেতা ওয়ালিউল হক রানা ও মাহফুজুল হাসনাইন হিকোল, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবিসহ অত্র ওয়ার্ডের সুধিজন, সমাজসেবক, বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং শত শত সমর্থক। গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের বুলবুল বলেন, বিভিন্ন ওয়ার্ডে তাঁর পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলছে এবং নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করছে। সেইসাথে নেতাকর্মীদের বাড়িতে হামলা ও তাদের অযাচিত ভাবে গ্রেফতার করছে। নির্বাচনী প্রচারণার সময় নেতাকর্মীদের বাধা প্রদান ও নারী কর্মীদের অসম্মানজনক কথা বলছে, অপমান করছে বলে জানান তিনি। এনিয়ে বার বার নির্বাচন অফিসে অভিযোগ দিয়েও কোন লাভ হচ্ছে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ