ঢাকা, সোমবার 16 July 2018, ১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বড় দারোগাহাট এলাকায় ওজন পরিমাপক যন্ত্র বন্ধের দাবি

চট্টগ্রাম ব্যুরো : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডের বড় দারোগাহাট এলাকায় গাড়ির ওজন পরিমাপক স্কেল স্থায়ীভাবে বন্ধের দাবিতে গতকাল রোববার চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ, চাক্তাইসহ বিভিন্ন এলাকার দোকান-আড়ত বন্ধ রেখে মানববন্ধন করেছেন ব্যবসায়ীরা। রোববার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত দোকান-আড়ত বন্ধ রেখে আন্দরকিল্লা সিটি কর্পোরেশন চত্বরে মানববন্ধনে যোগ দিয়ে প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানায়।
মানববন্ধন চলাকালে খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ ছগীর আহমদ বলেন, বড় দারোগাহাট ওজন স্কেলের কারণে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীরা ১৩ টনের বেশি পণ্য পরিবহন করতে পারছেন না। আগে একেকটি গাড়িতে ২০-৩০ টন পণ্য পরিবহন করা হতো। এর ফলে পণ্যের দাম বাড়ছে। ব্যবসায়ীরা লোকসান দিচ্ছেন। তাই আমাদের ডাকে বৃহত্তর চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ, আসাদগঞ্জ-টেরিবাজার, মাঝিরঘাটের ব্যবসায়ীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে এ মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন।
চট্টগ্রাম চাউল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওমর আজম বলেন, ওজন স্কেলের কারণে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। তাই আড়ত বন্ধ রেখে মানববন্ধন করেছি।
মানববন্ধনে অংশ নেন চাক্তাই শিল্প ও ব্যবসায়ী সমিতি, বাংলাদেশ সিমেন্ট আয়রন অ্যান্ড স্টিল মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, চট্টগ্রাম ডাল মিল ব্যবসায়ী সমিতি, রাইচ মিল মালিক সমিতি, নবী সুপার মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতি, ইলিয়াস মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতি, খাতুনগঞ্জ চিনি ও ভোজ্যতেল ব্যবসায়ী সমিতি, চট্টগ্রাম বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ব্যবসায়ী গ্রুপ, বৃহত্তর চাক্তাই খাতুনগঞ্জ শ্রমিক সমিতিসহ অন্তত ২০টি সংগঠনের কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী-কর্মচারীরা।    
 মেয়র বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান-চট্টগ্রামের ব্যবসা বাণিজ্যের সাথে দেশের অন্যান্য অঞ্চলের বৈষম্য সৃষ্টিকারী বড় দারোগা হাট ও দাউদকান্দি ওজন পরিমাপক স্কেল সমস্যা সমাধানকল্পে খাতুনগঞ্জ ট্রেড এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এসোসিয়েশনসহ চট্টগ্রামের আরও ২৭টি ব্যবসায়ী সংগঠনের যৌথ উদ্যোে  ১৫ জুলাই সকাল ১০ টায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কার্যালয়ে  মেয়র বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। ২৮টি সংগঠনের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের স্মারকলিপি প্রদান-২৮টি সংগঠনের  ব্যবসায়ী নেতারা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বড় দারোগাহাট ও দাউদকান্দি এলাকায় গাড়ির ওজন পরিমাপক যন্ত্র স্থায়ীভাবে বন্ধের দাবিতে রোববার সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীনের হাতে স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন।
এদিকে চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম ১৪ জুলাই এক জরুরী পত্রের মাধ্যমে চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কে পণ্য পরিবহনে এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ স্থায়ীভাবে বাতিল করার জন্য সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এম.পি’র প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। পত্রে তিনি বলেন-রমজান পরবর্তীতে আবারও ২(দুই) এক্সেল (৬ চাকা) বিশিষ্ট মোটরযানের মাধ্যমে মাত্র ১৩ টন ওজন নির্দিষ্ট করে দেয়ার ফলে শিল্পের কাঁচামাল, ভোগ্য ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন ব্যয় কেজি প্রতি ৩/৪টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের অন্য কোন মহাসড়কে ওজন নিয়ন্ত্রণ না থাকার কারণে চট্টগ্রাম অঞ্চলের ব্যবসায়ীবৃন্দ অসম প্রতিযোগিতার সম্মুখীন এবং আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন বলেও চেম্বার সভাপতি মনে করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ