ঢাকা, সোমবার 16 July 2018, ১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রায়গঞ্জে উপ-প্রকৌশলী লাঞ্ছিত

রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে নিম্নমানের কাজ করার অপরাধে জনগনের হাতে লাঞ্ছনার শিকার হয়েছেন উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী ।সোমবার সকালে উপজেলার ঘুড়কা বাজারে এই ঘটনা ঘটে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে আপোষ মিমাংসার জন্য দফায় দফায় বৈঠক চলছে। এলাকাবাসী  জানান, ঘুড়কা বাজার থেকে পুরাতন ইউনিয়ন পরিষদ আঞ্চলিক সড়কটি কার্পেটিং উঠে খানাখন্দে পরিণত হয়। এটা মেরামতের কাজ পায় পাবনার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স রশিদ ট্রেডার্স।
কিন্তু কাজটি কিনে নেয় রায়গঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুল্লাহ্ আল পাঠানের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় জনতার অভিযোগ রাস্তার কাজের মান খুবই নিম্নমানের করে আসছিল ক্রয় করে নেয়া প্রতিষ্ঠানটি। এতে এলাকাবাসী কাজ বন্ধ রাখার অনুরোধ করলে মেয়রের লোকজন প্রভাব খাটিয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফরিদুল ইসলামের মাধ্যমে কাজ করতে গেলে স্থানীয় লোকজন তাকে ও মেয়রের লোকজনকে বেদম মারধর করে অবরুদ্ধ করে রাখে। এলজিইডির অর্থায়নে প্রায় ৬৫ লক্ষ টাকার  দেড় কিলোমিটার রাস্তার কাজের মান এতটাই নিম্ন যে কাজ শেষে লোকজন সেটা হাত দিয়ে তুলে ফেলছে। মূল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান থেকে ক্রয় করা প্রতিষ্ঠানের কর্ণধর রায়গঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবদুল্লা আল পাঠান ঘটনাস্থলে গেলে লোকজন তাকেও অবরুদ্ধ করে রাখে। এ ব্যপারে রায়গঞ্জ  উপজেলা প্রকৌশলী আ.বাছেদ বলেন, কাজের মান খারাপ হচ্ছে এমন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে সংক্ষুব্ধ জনগণ আমােেদর ষ্টাফদের মেরেছে শুনেছি। মেয়র আবদুল্লহ আল পাঠান বলেন, আমি ক্রয় করে নিলেও আমার লোকজন কাজটি নিম্নমানের করেছে বলে জেনেছি।
তবে আগামীতে কাজ ভাল হবে। স্থানীয় এমপি আলহাজ্ব গাজী ম. ম আমজাদ হোসেন মিলন এর হস্তক্ষেপে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে আপোষ মিমাংসার জন্য দফায় দফায় বৈঠক চলছে। এছাড়াও স্থানীয় লোকজন আরও অভিযোগ করে বলেন, সিরাজগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতার ভাই পরিচয় দিয়ে উপসহকারি প্রকৌশলী ফরিদুল ইসলাম প্রভাব খাটিয়ে উপজেলার এলজিইডির আওতায় সকল নির্মাণাধীন রাস্তার কাজ নয়ছয় করে সরকারি অর্থ আত্মসাৎ করে আসছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ