ঢাকা, মঙ্গলবার 17 July 2018, ২ শ্রাবণ ১৪২৫, ৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জেলে বিশেষ সুবিধা নিবেন না নওয়াজ কন্যা মরিয়ম

১৬ জুলাই, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন : বন্দী হিসেবে জেলে কোনো বিশেষ সুবিধা চান না নওয়াজ শরীফের কন্যা মরিয়ম। হাতে-লেখা বিবৃতি দিয়ে সেই কথা জানিয়েছেন তিনি। তবে তার ভাই হুসেন নওয়াজ টুইট করে জানিয়েছেন, একটা বিছানা পর্যন্ত দেওয়া হয়নি প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে। শৌচাগারটিও অত্যন্ত অপরিষ্কার।

বস্তুত, নওয়াজ-মরিয়ম জেলে ঠিক কী কী সুযোগ-সুবিধে পাচ্ছেন, তা নিয়ে কিছুটা পরস্পর-বিরোধী খবর আসছে। ‘বি ক্যাটেগরি’র বন্দী হিসেবে জেলে নিজেদের খরচে এসি, টিভি, খবরের কাগজ ইত্যাদি পাবেন তারা। গত রাতে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা জেলে নওয়াজ-মরিয়মের সঙ্গে দেখা করতে যান আপনজনেরা। সেই দলে ছিলেন নওয়াজের বৃদ্ধা মা শামিম আখতার, নাতনি মেহেরুন্নিসা, ভাই শাহবাজ, ভাইপো হামজা। জেল সুপারের ঘরে দু’ঘণ্টা সাক্ষাৎ হয় তাদের। প্রতি বৃহস্পতিবার পরিবারের সদস্যেরা তাদের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন বলেও ঠিক হয়। পরিবারের অন্যদের থেকেই বাবার খবর পান হুসেন। তার পরেই টুইটারে লেখেন, ‘জানতে পারলাম বাবা ঘুমোনোর জন্য বিছানা পাননি। বাথরুমটাও বোধ হয় কয়েক যুগ ধরে পরিষ্কার করা হয়নি। এ দেশে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সম্মানজনক আচরণের ইতিহাস নেই। কিন্তু এগুলো তো মৌলিক অধিকার।’

তাৎপর্যপূর্ণ হল, জেল কর্তৃপক্ষের তরফে রাত পর্যন্ত হুসেনের এই দাবির কোনও বিরোধিতা করা হয়নি। তবে একটি পাক চ্যানেলের সূত্র জানিয়েছে, ‘বি ক্যাটেগরি’-র বন্দীর মর্যাদাই পাচ্ছেন নওয়াজ। কিন্তু এই শ্রেণির বন্দীরা এসি বা ইচ্ছেমতো খাবার-দাবার পান না। বড়জোর পান কুলার বা পাখা। মরিয়ম অবশ্য সে সবও নেবেন না বলে জানিয়েছেন। কোনও সরকারি গেস্ট হাউসকে ‘সাব জেল’ ঘোষণা করে তাকে সেখানে রাখা হবে বলে শোনা গিয়েছিল। কিন্তু আপাতত আদিয়ালা জেলের মহিলা ওয়ার্ডেই রাখা হচ্ছে তাকে। মরিয়মের বিবৃতিটি সংবাদমাধ্যমের হাতে এসেছে। তিনি লিখেছেন, ‘জেল সুপার আমাকে বলেছিলেন আইন মোতাবেক উন্নত সুযোগ-সুবিধার জন্য আবেদন করতে। কিন্তু আমি তা প্রত্যাখ্যান করেছি। কারও চাপে আমি এটা করছি না। এটা একেবারেই আমার সিদ্ধান্ত।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ