ঢাকা, মঙ্গলবার 17 July 2018, ২ শ্রাবণ ১৪২৫, ৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌ-রুটে লঞ্চ ও সি-বোট চলাচল

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ)সংবাদদাতা : দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অন্যতম প্রবেশপথ বলে খ্যাত শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌ-রুটের পদ্মা নদীটি রোববার সকাল থেকেই উত্তাল রয়েছে এবং নদীতে রয়েছে প্রচণ্ড ঢেউ। আর এতে করে এ নৌ-রুটটি অত্যান্ত ঝুকিপূর্ণ হয়ে পরে। যার ফলে ১৬ জুলাই সোমবার সকাল ১০ টা থেকে বিকাল পর্যন্ত এ নৌ-রুটের লঞ্চ ও সি-বোট চলাচল বন্ধ করে দেয় কতৃপক্ষ। এ রুটের মোট ১৬ টি ফেরির মধ্যে মাত্র ৭ টি ফেরি দিয়ে কোনমতে নৌ-রুটটি চালু রেখেছে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। আর এতে করে শিমুলিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন। 

সরেজমিন গিয়ে দেখাযায়, পার্কিং ইয়ার্ডগুলোতে ও রাস্তার দুপারে অসংখ্য যানবাহন পারাপারের জন্য প্রহর গুনছে। এসবের মধ্যে বাস, প্রাইভেটকার, মাইক্রো, ছাড়াও রয়েছে অসংখ্য ট্রাক ও কভার্টভ্যান। বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের মেরিন অফিসার আহম্মদ আলী জানান, গত রোববার রাত ৮টা থেকে সবগুলো ড্রাম বা ঠেলা ফেরি বন্ধ রয়েছে এবং ১টি রোরো ফেরী বীরশেষ্ট জাহাঙ্গীর বিকল রয়েছে। বর্তমানে ২টি রোরো ৩ টি কেটাইপ ও ২টি ভিআইপি ফেরী কুমিল্লা ও ফরিদপুর দিয়ে যানবাহন পারাপার সচল রাখা হয়েছে। মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাড়ির পরিদর্শক মো. আরমান হোসেন ও বিআইডব্লিউটিএর শিমুলিয়া ঘাটের ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর মো. সোলাইমান হোসেন জানায়, পদ্মায় রয়েছে প্রচণ্ড ঢেউ ও এছাড়াও রয়েছে স্রোত। তাই এ রুটের ৮৭ টি লঞ্চ ও উভয় পারের প্রায় ৩ শতাধিক সি-বোট চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে তবে যাত্রীরা ফেরীতে নদী পারাপার হচ্ছে এবং যাত্রীদের তেমন চাপ নেই এ নদী বন্দরে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে বা ঢেউ কমে গেলে আবারো লঞ্চ ও সি-বোট চলাচল স্বাভাবিক হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ