ঢাকা, মঙ্গলবার 17 July 2018, ২ শ্রাবণ ১৪২৫, ৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাদারীপুরে নিষিদ্ধ ঘোষিত সর্বহারা পার্টির নেতার ভয়ে পুরুষ শূন্য একাধিক পরিবার

মাদারীপুর সংবাদদাতা : মাদারীপুরে নিষিদ্ধ ঘোষিত সর্বহারা পার্টির নেতার হুমকি-ধামকি ও হামলার ভয়ে পুরুষ শুন্য হয়ে পড়ছে একাধিক পরিবার। নির্যাতনের প্রতিকার চেয়ে থানায় অভিযোগ দিয়েছে সদর উপজেলার ঝাউদী ইউনিয়নের শিমুতলা এলাকায় ভুক্তভোগী বহু পরিবার।  

সরেজমিন গিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি শিমুলতলা এলাকার সালাম মোল্লার প্রায় ২০ শতাংশ জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা করে নিষিদ্ধ ঘোষিত সর্বহারা পার্টির নেতা মোয়াজ্জেম মোল্লা। একারণে স্থানীয় সালাম মোল্লা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করে। মামলার পরই সালাম মোল্লাকে জীবননাশের হুমকি দিয়ে আসছে মোয়াজ্জেম মোল্লা। এছাড়া শনিবার বিকালে সালাম মোল্লা ও তার ভাইদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটতরাজ চালায় মোয়াজ্জেম ও তার লোকজন। কেউ মামলা করলে তাদের হত্যার হুমকি দেয়। তার অত্যাচারে সালাম মোল্লার পরিবারের পুরুষ সদস্য ঘর ছাড়া। এছাড়া মহিলারাও রয়েছে আতঙ্কের মধ্যে। 

ক্ষতিগ্রস্ত সালমা বেগম নামে এক নারী বলেন, ‘মোয়াজ্জেমের ভয়ে আমাদের পরিবারের সদস্যরা বর্তমানে এলাকা ছাড়া। সে এলাকায় হত্যা, ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপকর্ম করে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তার ভয়ে আমরা প্রকাশ্যে মুখ পর্যন্ত খুলতে পারি না। যদি কেউ তার বিরুদ্ধে কথা বলে, তাহলে রাতে তার বাহিনীর সদস্য দিয়ে বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে। আমরা এর থেকে পরিত্রান চাই।’ 

মাদারীপুর সদর থানা সূত্রে জানা গেছে, সদর থানার মাদ্রা এলাকায় ২০১৪ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর আজিজুল হক চৌকিদারকে সর্বহারা পাটির সদস্যরা গুলী করে খুন করে। এই ঘটনায় পুলিশ তদন্ত করে মোয়াজ্জেম মোল্লার সম্পৃক্ততা পেয়ে আদালতে তার বিরদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। এছাড়াও ব্রন্মন্ধি এলাকায় একটি মেয়েকে জোরপূর্বক অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে মামলা হয়। ওই ঘটনায় মামলা হলে মোয়াজ্জেম ও তার লোকেরা নির্যাতিতা ও তার ভাইকে হত্যার হুমকি দেয়। বিচার চাওয়ার ‘অপরাধে’ সেই পরিবারও বর্তমানে এলাকা ছাড়া। 

মাদারীপুর জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা সূত্রে জানা গেছে, মোয়াজ্জেম মোল্লার বিরুদ্ধে মাদারীপুর সদর থানা ২টি সাধারন ডায়েরি, একটি হত্যা মামলা, একটি ধর্ষণ মামলা, একটি হত্যা চেষ্টা মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। 

মোয়াজ্জেম নিষিদ্ধ ঘোষিত সর্বহারা পার্টির সদস্য হিসেবে পুলিশের খাতায় নাম রয়েছে।’

এব্যাপারে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব জানান, মোয়াজ্জেম মোল্লার বিরুদ্ধে হত্যা মামলাসহ কয়েকটি মামলার বিচার চলছে আদালতে। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যদি এলাকায় তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট আরো কেউ অভিযোগ করে তাহলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’  

তবে এ ব্যাপারে মোয়াজ্জেম মোল্লার বাড়িতে গিয়ে একাধিকার বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। এছাড়া তার মোবাইলে ফোন করেও পাওয়া যায়নি।

দিনদুপুরে টাকা ছিনতাই

মাদারীপুর সদর উপজেলার ঢাকা -বরিশাল মহাসড়কের মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে সোমবার দুপুর ২টার দিকে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ছিনতাইকারীরা একটি ব্যাগে থাকা সাড়ে তিন লাখ টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে যায়।  পরবর্তীতে সন্দেহভাজন দুই ছিনতাইকারীকে স্থানীয় লোকজন ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার ঢাকা -বরিশাল মহাসড়কের মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে সোমবার দুপুর ২টার দিকে নাঈম টেলিকমের মালিক সোহেল মল্লিক দুপুরের খাবার খাওয়ার জন্য দোকান বন্ধ করে বিকাশের ও ব্যাংক থেকে উত্তোলনকৃত সাড়ে তিন লাখ টাকা, ৬টি মোবাইল ফোন, ২টি ডিভাইস একটি ব্যাগে ভর্তি করে রাখে। ব্যাগটি দোকানের পাশেই রেখে দোকান বন্ধ করতেছিল। এ সময় পাশের চায়ের দোকানে বসে থাকা ছিনতাইকারীরা সুকৌশলে টাকা ও মোবাইল ভর্তি ব্যাগটি নিয়ে যায়। 

পরবর্তীতে সন্দেহভাজন দুই ছিনতাইকারীকে স্থানীয় লোকজন ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। ঐ দুই ছিনতাইকারীদের কাছে টাকার ব্যাগটি পাওয়া যায়নি। আটককৃতরা হলেন যশোর জেলার বেনাপোল থানার দিঘিয়র গ্রামের মো. তোরাব আলী গাজীর ছেলে মো. শুকুর আলী গাজী (৪৯), একই থানার ভরাদেবর গ্রামের হাজী শহীদুল্লাতর ছেলে মো. মনিরুল ইসলাম ( ৪২)। 

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ওসি মো. কামরুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, একটি ছিনতাইয়ের ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত দোকানের মালিক যদি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে তবে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ