ঢাকা, বুধবার 18 July 2018, ৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ৪ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কোনো ইস্যু না পেয়ে কোটা সংস্কার ইস্যু নিয়ে তারা মাঠে নেমেছে -১৪ দল

স্টাফ রিপোর্টর : কেন্দ্রীয় ১৪-দলীয় জোটের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, কোটা সংস্কারে গঠিত কমিটি দ্রুত কাজ শেষ করে প্রতিবেদন জমা দেবে। গতকাল  মঙ্গলবার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪-দলীয় জোটের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম এ মন্তব্য করেন। সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, জাসদের একাংশের সভাপতি শরিফ নুরুল আম্বিয়া, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মহিবুল হাসান চৌধুরী প্রমুখ ১৪-দলীয় সভায় উপস্থিত ছিলেন।
 মোহাম্মদ নাসিম বলেন, একটি স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে একটি মহল একের পর এক চক্রান্ত করছে। কোনো ইস্যু না পেয়ে কোটা সংস্কার ইস্যু নিয়ে তারা মাঠে নেমেছে। সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তারুণ্যকে উৎসাহিত করার জন্য কোটার ব্যাপারটি নিয়ে কথা বলেছিলেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী যেহেতু একটি পর্যায়ে সংসদে বলেছিলেন কোটা রাখবেন না। এরপরও তিনি একটি কমিটি করে দিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে। সেই কমিটি কাজ করছে।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, কোটাব্যবস্থা সংবিধানে রয়েছে। ১৪ দলের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর ওপর আস্থা রাখার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী অনগ্রসর মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে কমিটি কাজ করছে। আপনারা ধৈর্য ধরুন। দীর্ঘদিনের একটি ব্যবস্থা বদল করতে একটু সময় লাগে। তিনি আরও বলেন, কেউ যেন সুযোগ না নিতে পারে, কেউ যেন ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে না পারে সে  জন্য দ্রুত প্রতিবেদন জমা দেওয়া উচিত।
বিএনপির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘নির্বাচন সামনে আসছে। সে ক্ষেত্রে সংবিধান অনুযায়ী আগামী ডিসেম্বর মাসে নির্বাচন কমিশনের নির্ধারিত তারিখে বাংলাদেশে নির্বাচন হবে। দেশের সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক—এমনকি বিএনপি নির্বাচনে আসুক, সেটা আমরা চাই। কাউকে নির্বাচন থেকে সরানোর কোনো চিন্তা আমাদের নেই। আমরা চাই প্রতিদ্বন্ধিতা  করে নির্বাচনে জয় আসুক।
নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ নিয়ে তাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি না—  প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী নাসিম বলেন, ‘কোনো রাজনৈতিক দল কীভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে, এটা তাদের বিষয়। এটা নিয়ে আমাদের সঙ্গে কারও কোনো আলোচনা হয়নি। বিএনপি নির্বাচনে আসবে বলে আমরা আশা করছি। বিএনপির সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে ভবিষ্যতে আলোচনার কোনো প্রশ্নই ওঠে না।’জাতীয় পার্টি (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা কোটা সংস্কারের বিষয়টির যৌক্তিক সমাধান চাই। আমরা আশা করি সমাধান পেয়ে যাব।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ