ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 July 2018, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের উদ্যোগে ‘মিডিয়া, কমিউনিকেশন এন্ড জার্নালিজম : প্রসপেক্টস এন্ড চ্যালেঞ্জস ইন বাংলাদেশ এন্ড বিয়ন্ড’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী (১৭-১৯ জুলাই) আন্তর্জাতিক সম্মেলন ১৭ জুলাই বেলা ১১টায় চবি এ কে খান আইন অনুষদ অডিটরিয়ামে শুরু হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে এ আন্তর্জাতিক সম্মেলন উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দৈনিক আজাদী’র সম্পাদক এম এ মালেক। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চ.বি. যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদ। চ.বি. যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর ও কনফারেন্স আয়োজন কমিটির আহবায়ক ড. মোহাম্মদ শহিদ উল¬্যার সভাপতিত্বে এবং সহকারী অধ্যাপক সায়মা আলমের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও কনফারেন্স আয়োজন কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী।

ভিসি বলেন, সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ এবং সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা। সাংবাদিকবৃন্দ সমাজ ও রাষ্ট্রের বিভিন্ন সঙ্গতি-অসঙ্গতি তাঁদের লেখনীর মাধ্যমে গণমানুষের সামনে উপস্থাপন করে থাকেন। এতে একদিকে যেমন দেশের বাস্তব প্রতিচ্ছবি গণমানুষের সামনে ফুটে ওঠে, তেমনি অসঙ্গতিগুলো সুধরাবার সুযোগ ঘটে।  ভিসি বলেন, বিশ্বায়নের এ যুগে তথ্য-প্রযুক্তির অভূতপূর্ব উন্নয়ন ও অবাধ প্রবাহের ফলে বাংলাদেশ এখন রুট লেভেল থেকে উন্নয়ন-অগ্রগতিতে নিজেদের জায়গা দখল করে নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহার-অপব্যবহার এ বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সম্মানিত সাংবাদিকবৃন্দ সত্যনিষ্ট সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দেশ-জাতিকে কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছাতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবেন এটাই প্রত্যাশিত। 

বিশেষ অতিথির ভাষণে দৈনিক আজাদীর সম্পাদক এম এ মালেক বলেন, বর্তমান সময়ে সাংবাদিকতা পেশায় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ, প্রকৃত সত্য উদঘাটন, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে সংবাদ প্রেরণ ইত্যাদি ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের যে সুযোগ-সুবিধা সৃষ্টি হয়েছে এর ইতিবাচক ব্যবহার সকলের জন্য কল্যাণ ও মঙ্গল বয়ে আনবে। তিনি বলেন, সাংবাদিকতা চলমান জীবনের প্রতিচ্ছবি। সার্বিক অর্থে বিবেকপ্রসূত ও সত্যনিষ্ট সংবাদ ব্যক্তি, সমাজ ও দেশ-জাতির আলোকবর্তিকা স্বরূপ। 

এ সম্মেলনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯ জন শিক্ষকের ৮টি এবং ১১ জন শিক্ষার্থীর ৬টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। এছাড়াও সম্মেলনে ঢাকা, রাজশাহী, জাহাঙ্গীরনগর, জগন্নাথ, খুলনা ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ২২ জন গবেষক তাঁদের প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। বিশেষভাবে উল্লেখ্য, ভারত থেকে ১৭ জন, পাকিস্তান থেকে ৪ জন, নেপাল থেকে ২ জন ও ভূটান, চীন, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং রাশিয়া থেকে ১ জন করে প্রবন্ধকার এ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করছেন। সম্মেলনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়সহ  দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১২০ জন শিক্ষার্থীসহ শিক্ষক-গবেষকবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। সম্মেলনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনবৃন্দ, বিভাগীয় সভাপতি এবং ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষক, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী এবং সুধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ