ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 July 2018, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে জামায়াতের ৭ নেতা-কর্মী গ্রেফতার নেতৃবৃন্দের নিন্দা

রাজশাহী অফিস : রাজশাহীতে জামায়াতে ইসলামীর ৫ জন নারী কর্মীসহ ৭ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা চলাকালে এই গ্রেফতারকে সরকারের এক তরফা ভোটের অপচেষ্টা বলে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে মহানগরী জামায়াত।
গতকাল এক বিবৃতিতে জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগরীর আমীর প্রফেসর এম আবুল হাশেম ও সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসাইন জানান, বোয়ালিয়া থানা জামায়াতের আমীর অধ্যাপক সিরাজুল ইসলামকে কলেজ থেকে বের হয়ে বাজারে যাওয়া পথে কোন প্রকার মামলা ছাড়াই রাস্তা থেকে ডিবি পুলিশ উঠিয়ে নেয়া হয়। আর থানা সেক্রেটারি আব্দুল খালেককে আগের দিন রাত ১২টায় মসজিদ থেকে উঠিয়ে নেয়া হয়। এছাড়া পাঁচজন নারীকে নির্বাচনী প্রচারকালে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়। বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন, জামায়াতে ইসলামী ও শিবির নেতা কর্মীদেরকে একের পর এক অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে নাটক সাজিয়ে মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে। এমন কি সাধারণ মানুষ সাধারণ মহিলাদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। গতকাল ২৮ ও ২ নং ওয়ার্ডের পাঁচ জন মহিলা স্বতন্ত্র প্রাথীর ভোট চাওয়াকালে অন্যায়ভাবে তাদের গ্রেফতার করে থানায় নেয়া হয়। এর আগে শাহ মখদুম থানা আমীরকে নিজ বাড়ি থেকে, রাজপাড়া থানা আমীরকে মসজিদ থেকে নামায পড়ে বের হওয়ার পর রাস্তা থেকে, শিবির নেতাকে বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে, ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলার প্রার্থী মোখলেসুর রহমানকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। এমনকি ১৪ নং ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ হজ্বযাত্রী মাওলানা আব্দুল খালেককেও গ্রেফতার করা হয়েছে বলে বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়। নেতৃদ্বয় বলেন, রাজশাহীতে নির্বাচনর কোন পরিবেশ নেই। স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। এমনকি গত ১৭ জুলাই মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের প্রচারকালে বোমা হামলা করা হয়েছে। সরকার একতরফা নির্বাচন করতেই জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মী, সমর্থক ও মহিলাদের একের পর এক অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করছে। নেতৃদ্বয় কোন অভিযোগ ছাড়াই বাড়ী, রাস্তা, মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল ও কলেজ থেকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণের নিন্দা এবং অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত জামায়াতের নেতা-কর্মী মহিলাদের মুক্তি দাবি করেন। সেইসঙ্গে এবিষয়ে দেশের বুদ্ধিজীবী, সাংবাদিক মহলসহ আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ