ঢাকা, শুক্রবার 20 July 2018, ৫ শ্রাবণ ১৪২৫, ৬ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে হারল বাংলাদেশ ‘এ’ দল

স্পোর্টস রিপোর্টার : সফরকারী শ্রীলংকা ‘এ’ দলের কাছে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে হারল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। তিন ম্যাচে ওয়ানডে সিরিজে প্রথম ম্যাচে হার দিয়েই শুরু করেছিল সফরকারীরা। গতকাল দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলংকার অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরার কাছেই দ্বিতীয় ম্যাচে হারতে হয়েছে বাংলাদেশ ‘এ’ দলকে। 

শ্রীলংকার দেওয়া ২৭৬ রানের জবাবে খেলতে নেমে ৪৪.৩ ওভারে ২০৮ রানে অলআউট হয় বাংরাদেশ এ দল। আর ৬৭ রানের জয় তুলে সিরিজে ১-১ সমতায় ফিরেছে সফরকারী ‘এ’ দল। গতকাল সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট  স্টেডিয়ামে টস জিতে শ্রীলংকার অধিনায়ক থিসারা পেরেরার সেঞ্চুরিতে বড় পুঁজি পায়। ৪৯.৪ ওভারে ২৭৫ রানের  স্কোর গড়ে সফরকারীরা। থিসারা ৮৮ বলে ৯ চার ও ৫ ছক্কায় ১১১ রানের অতিমানবীয় ইনিংস খেলেন। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এটাই তার প্রথম কোন সেঞ্চুরি! আগে ব্যাট করা শ্রীলংকা বড় স্কোর গড়লেও শুরুটা মোটেও ভালো ছিল না। রানের খাতা খোলার আগে লাহিরু থিরিমানেকে সাজঘরের পথ দেখান আল আমিন।

 এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা শ্রীলংকা ১২৯ রান তুলতে হারিয়ে ফেলে আরও ৬ উইকেট। বাংলাদেশ দল যখন অল্প রানে শ্রীলংকাকে থামানোর পরিকল্পনা করছে, তখনই শ্রীলংকার ত্রাতা হয়ে উঠেন থিসারা পেরেরা। অষ্টম উইকেটে মালিন্দা পুষ্পকুমারাকে সঙ্গে নিয়ে ৭৭ রানের জুটি গড়েন। পুষ্পকুমারা ব্যক্তিগত ৮ রানে ফিরে গেলে, মাদুশাঙ্কাকে নিয়ে নবম উইকেটে গড়েন ৪৪ রানের স্বস্তি ফেরানো জুটি। বিপজ্জনক এই অলরাউন্ডারকে ফেরান শরিফুল ইসলাম। তার বলে সাইফ হাসানকে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিলে পেরেরার ১১১ রানের ইনিংসের সমাপ্তি ঘটে। স্কোরবোর্ডে ২৭৫ রানের পেছনে মাদুশাঙ্কাকার খেলা ৩৬ বলে ৩৬ রানের অবদানও কম ছিল না। ডানহাতি অফস্পিনার নাঈম হাসান ছিলেন বাংলাদেশ দলের সেরা বোলার। ৪২ রান খরচায় তিনি তিনটি উইকেট নেন। এছাড়া শরিফুল ইসরাম, সানজামুল ইসলাম দুটি এবং আফিফ হোসেন একটি করে উইকেট নেন। ২৭৬ রানের বড় লক্ষ্যের বিপরীতে খেলতে  নেমে ঠিক যেভাবে শুরুর প্রয়োজন ছিল, সেভাবে শুরু করতে পারেনি বাংলাদেশ। দলীয় ১৮ রানে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য সরকার। নি®প্রভ এই ব্যাটসম্যান আজও থিতু হতে ব্যর্থ হয়েছেন। আউট হয়েছেন ১২ রানে। সৌম্যকে হারানোর পর সাইফ হাসান ও জাকির হাসান দ্বিতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন। ৫৩ রানের জুটি উপহার দিয়ে ফিরে যান জাকির হাসান(৩২)। সঙ্গীর বিদায়ে ফিরে যান সাইফ হাসানও (২৮)। মিডল অর্ডারে অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন(২৫), আল আমিন জুনিয়র (৪৬) ও আরিফুল হক (২৭) দাঁড়ানোর চেষ্টা করলেও জয়ের জন্য তাদের ভূমিকা যথেষ্ট ছিল না। বাংলাদেশের সেরা সংগ্রহ আসে আল আমিন জুনিয়রের ব্যাট থেকে। ৬৫ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় আল আমিন ৪৬ রানের ইনিংস খেলেছেন। শেষ পর্যন্ত লেট অর্ডারের ব্যর্থতায় ৫.৩ ওভার আগেই ২০৮ রানে থেমে যেতে হয় বাংলাদেশ ‘এ’ দলকে। লঙ্কান বোলাদের হয়ে দুই স্পিনার পুষ্পকুমারা ও শাম্মু আশান বাংলাদেশের ছয় উইকেট ভাগাভাগি করে নেন। এছাড়া মাদুশাঙ্কা, শেহান জয়াসুরিয়া, দাসুন শানাকা ও আশান প্রিয়ঞ্জন একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ