ঢাকা, শুক্রবার 20 July 2018, ৫ শ্রাবণ ১৪২৫, ৬ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রোহিঙ্গা হত্যাযজ্ঞের খবরের বিষয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছে-রয়টার্স সাংবাদিক

রয়টার্সের সাংবাদিক ৩১ বছরের ওয়া লোন

১৯ জুলাই, রয়টার্স : মিয়ানমারে গ্রেফতার হওয়া দুই রয়টার্স সাংবাদিকের একজন ওয়া লোন জানিয়েছেন, রোহিঙ্গাদের হত্যাযজ্ঞের বিষয়ে তাদের তৈরি করা খবর নিয়েই পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছে। যে রাষ্ট্রীয় গোপন নথি হস্তগত করার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিষয় নিয়ে পুলিশের মনোযোগ নেই।

৩১ বছরের ওয়া লোন জানান, তিনি ও তার সহকর্মী কিয়াও সোয়ে (২৮) দুই দিন ধরে ঘুমাতে পারেননি। তাদের কালো কাপড়ে মুখ ঢেকে গোপন আটককেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তারা যোগাযোগহীন অবস্থায় প্রায় দুই সপ্তাহ ছিলেন।

আদালতে জবানবন্দি দেওয়ার সময় ওয়া লোন জানান, কিভাবে তাদের গ্রেফতারে পুলিশ ফাঁদ পেতেছিল। তার এই বক্তব্যের ফলে তাদেরকে গ্রেফতারে পুলিশের যে বক্তব্য তা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। পুলিশের দাবি ছিল, একটি অজ্ঞাত সূত্র থেকে রাষ্ট্রীয় গোপন নথি নেওয়ার সময় তাদেরকে রুটিন টহলে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে এই সাংবাদিক বলেন, পুরো জিজ্ঞাসাবাদের সময় তারা ওই গোপন নথি সম্পর্কে কিছু জানতে চায়নি। কিন্তু তারা রাখাইনের মংডু নিয়ে আমাদের প্রতিবেদনের বিষয়ে জানতে চেয়েছে।

আদালতে তিনি বলেন, আমি অনেক রাত ঘুমাতে পারিনি। কিন্তু তবু তারা জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছেন। আমি ক্লান্ত।

রয়টার্সের এই দুই সাংবাদিককে যখন গ্রেফতার করা হয় তারা তখন রাখাইনের ইন দিন গ্রামে ১০ রোহিঙ্গা মুসলিম পুরুষ ও কিশোরদের হত্যার বিষয়ে অনুসন্ধান করছিলেন। এই হত্যাযজ্ঞের ঘটনা ঘটে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর অভিযানের সময়। যে অভিযানের মুখে রাখাইন থেকে পালিয়ে ৭ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। রয়টার্সের সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ঔপনিবেশিক আমলের রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা ফাঁস আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে। এই আইনে তাদের সর্বোচ্চ ১৪ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ