ঢাকা, শনিবার 21 July 2018, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নেইমারও জানিয়ে দিলেন থাকবেন পিএসজিতেই

স্পোর্টস ডেস্ক: দলবদলের বাজারে কি চমক উপহার দিতে যাচ্ছেন রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ? ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বিকল্প হিসেবে সবচেয়ে বড় চমক হতে পারতেন যে দুজন, তারা দুজনেই যে ‘না’ শুনিয়ে দিলেন! রোনালদো চলে যাওয়ার পর রিয়ালের ক্রয় তালিকার প্রথম দু’টি নাম ছিল নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পে। কিন্তু পিএসজির এই দুই সতীর্থই হতাশ করলেন রিয়ালকে। প্রথমে এমবাপ্পে বলেছেন, তিনি পিএসজিতেই থাকছেন। তার কথার প্রতিধ্বনিই যেন নেইমারের কণ্ঠে। সতীর্থের সঙ্গে সুর মিলিয়ে ব্রাজিলিয়ান তারকাও বললেন, তিনি কোথাও যাচ্ছেন না। না, নেইমার বা এমবাপ্পের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তাব পাঠায়নি রিয়াল। ফলে নেইমার-এমবাপ্পের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘না’ শোনানোর প্রশ্নই আসে না। তবে গণমাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে যে গুঞ্জন চলছিল, তার প্রেক্ষিতেই রিয়ালকে ‘না’ শুনিয়ে দিলেন হালের দুই সেনসেশন। গত ১৫ জুলাই ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো বিশ্বকাপ জিতেছে এমবাপ্পের ফ্রান্স। এই বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দ-উদযাপনের মধ্যেই এমবাপ্পে বলে দেন, তিনি পিএসজিতেই থাকবেন। ক্লাব পিএসজিও ফ্রান্সের এই বিস্ময়বালকের দলব+দলের দরজাটা বন্ধ করে দিয়েছে। পিএসজি স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছে, এমবাপ্পেকে তারা বিক্রি করবে না। তবে নেইমারের জন্য পিএসজি দলবদলের দরজাটা খোলা রেখেছে বলেই গুঞ্জন উঠেছে। কিন্তু সেই নেইমারও এবার বললেন, এক বছর আগে যে লক্ষ্য-উদ্দেশ্য আর স্বপ্ন নিয়ে পিএসজিতে এসেছেন, এখনো তার মনোভাবটা একই আছে। পিএসজি ছাড়ার ইচ্ছা তার নেই। তিনি থাকছেন পিএসজিতেই। ফক্স স্পোর্টসকে ব্রাজিলিয়ান তারকা সরাসরিই বলেছেন, ‘আমি এখানেই থাকছি। পিএসজির সঙ্গে আমার চুক্তি আছে। উচ্চ লক্ষ্য এবং নতুন কিছু করে দেখানোর চ্যালেঞ্জ নিয়েই পিএসজিকে বেছে নিয়েছিলাম আমি। আমি আমার মনোভাব পাল্টাইনি। তা একই রকম আছে।’ গণমাধ্যমে গুঞ্জন আছে, ক্লাব পিএসজি ছাড়তে না চাইলেও নেইমার যোগ দিতে চান রিয়ালে। নেইমার সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিতে গিয়ে উল্টো গণমাধ্যমকেই দাঁড় করালেন কাঠগড়ায়, ‘গণমাধ্যম গুজব ছড়াতে ভালোবাসে। ব্যাপারটি তারা উপভোগ করে। তবে প্রত্যেকেই জানে আমি পিএসজির প্রতি কতটা নিবেদিত। আমি আশা করি, আমরা দুর্দান্ত একটা মওসুমই কাটাতে পারব এবং নতুন নতুন সাফল্যও পাব।’ নেইমার কথা বলেছেন সতীর্থ এমবাপের প্রসঙ্গেও। মেসি, রোনালদো, নেইমাররা রাশিয়ায় ফুটবলপ্রেমীদের হতাশ করলেও এমবাপে ছিলেন প্রস্ফুটিত ফুল। অবিশ্বাস্য গতি আর দক্ষতায় জয় করে নিয়েছেন বিশ্ব। দেশ ফ্রান্সও জিতিয়েছেন বিশ্বকাপ। পুরো ফুটবল দুনিয়াই ফ্রান্সের এই তরুণের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। নেইমারের কণ্ঠেও ঝরল সতীর্থ এমবাপের মুগ্ধতাই, ‘সে একজন ফেনোমেনন। গ্রেট খেলোয়াড়। আর আমরা এটা ভালো করেই জানি। আমি প্রতিদিনই তার সঙ্গে কথা বলেছি এবং জানি খেলোয়াড় হিসেবে তার মান কতটা উঁচুতে। আমি তার বিশ্বকাপ সাফল্য এবং শিরোপা জয়ে খুব খুশি।’ সতীর্থের প্রশংসা এখানেই শেষ করেননি নেইমার। রাশিয়া বিশ্বকাপের পর অনেক ফুটবলবোদ্ধাই এমবাপ্পেকে আগামীর বিশ্বসেরা মানছেন। কেউ কেউ তো এমনও বলে দিয়েছেন, মেসি-রোনালদোর পর এমবাপ্পেই জিতবেন ব্যালন ডি’অর। নেইমারও সেই সার্টিফিকেটই দিলেন সতীর্থকে, ‘আমার বিশ্বাস, আগামী কয়েক বছর সে এই লড়াইটাও (বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হওয়ার লড়াই) করতে পারবে। তার সঙ্গে আবার দেখা হওয়াটা হবে দারুণ ব্যাপার। এমনিতেও আমরা প্রতিদিনই কথা বলি। এমনকি বিশ্বকাপ চলাকালেও কথা বলেছি।’ নেইমার কথা বলেছেন জুভেন্টাস ছেড়ে সদ্য পিএসজিতে যোগ দেয়া কিংবদন্তি গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফন সম্পর্কেও, ‘বুফনের মতো একজন গ্রেট গোলরক্ষকের সঙ্গে একই ড্রেসিংরুম শেয়ার করাটা হবে খুবই সম্মানের, গর্বের। তার ইতিহাস, ব্যক্তিত্ব-সবকিছুই গর্ব করার মতো।’ 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ