ঢাকা, শনিবার 21 July 2018, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বরিশাল নগর জামায়াতের সেক্রেটারী গ্রেফতার

বরিশাল অফিস : বরিশাল মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারী জহির উদ্দিন মুহাঃ বাবরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ গতকাল সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। গ্রেফতারের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে থানার ওসি জানান, তার বিরুদ্ধে মামলা আছে। কোন গ্রেফতারী পরোয়ানা না থাকলে নির্বাচন কমিশনের বিধি অনুযায়ী গ্রেফতার করতে পারেন কিনা জানতে চাইলে তিনি এর উত্তরে বলেন, মামলার আসামী তাই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে মহানগর জামায়াতের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়, তিনি সকল মামলায় জামিনে আছেন। তার বিরুদ্ধে জানামতে এমন কোন মামলা বা পরোয়ানা নেই যে তাকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেন।
এদিকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ২০ দলীয় জোটের আহ্বায়ক ও সিটি নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী এভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের সুস্পষ্ট নির্দেশনা হচ্ছে ওয়ারেন্ট ছাড়া কাউকে গ্রেফতার বা হয়রানি করা যাবেনা। অথচ পুলিশ পরোয়ানা তো দূরে কথা কোন মামলা নেই এমন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে হয়রানি করছে। বরিশাল নগর জামায়তের সেক্রেটারী জহির উদ্দিন মুহাঃ বাবরের বিরুদ্ধে কোন গ্রেফতারী পরোয়ানা নেই। তার বিরুদ্ধে যতগুলো রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলা আছে তার সবগুলোতে তিনি আদালত থেকে জামিনে আছেন। কিন্তু তার পরেও কেন তাকে গ্রেফতার করা হলো। তিনি বলেন, প্রশাসন সরকারী দলের বাহিনী হয়ে কাজ করছে। নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। সরকারের প্রশাসন যন্ত্র যদি নোংরাভাবে কোন প্রার্থী পক্ষে কাজ করে তবে সেখানে সুষ্ঠু নির্বাচন কারা করবে। আর নির্বাচন কমিশন এসকল বিষয়ে কোন কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছনা। তারা শুধু প্রেস ব্রিফিং করে কাগুজে বক্তব্য দিচ্ছে। আর মাঠে তার সম্পূর্ণ ভিন্ন চিত্র। আমার নেতাকর্মীদের বিনা কারণে হয়রানি ও গ্রেফতার হচ্ছে, নির্বাচন কমিশন যদি প্রটেকশান দিতে না পারে সেখানে নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোন সম্ভাবনা নেই। আমি আশংকা করছি বরিশালে খুলনা ও গাজীপুরের চেয়ে নোংরা মাধ্যমে নির্বাচন হতে পারে। তিনি গ্রেফতারকৃত মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারী ও ২০ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা জহির উদ্দিন মুহাঃ বাবরকে নির্বাচন কমিশনের ব্যবস্থাপনায় ছেড়ে দেয়ার আহ্বান জানান।
এদিকে মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারী জহির উদ্দিন মুহাঃ বাবরকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বরিশাল মহানগর ও জেলা জামায়াতের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে তারা বলেন, বরিশাল মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারীর বিরুদ্ধে যতগুলো রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলা আছে তাতে তিনি জামিনে আছেন। গত কয়েক মাস আগে তাকে আটক করে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে পাঠানো হয়। এসময় তিনি সকল মামলায় আদালত থেকে জামিন পেয়ে জেল থেকে মুক্তি পান। তার বিরুদ্ধে বর্তমানে কোন মামলা বা পরোয়ানা নেই। সিটি নির্বাচনের এই সময় তাকে গ্রেফতার করা বে-আইনী। নির্বাচন কমিশনের স্পষ্ট নির্দেশনা হচ্ছে পরোয়ানা ছাড়া কাউকে গ্রেফতার করা যাবেনা। কিন্ত পুলিশ নির্বাচন কমিশনের এই নির্দেশনা পালন না করে আমাদের নেতাকর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে চলছে। বর্তমান সরকারের অধীনে থেকে এবং এই প্রশাসনের আওতায় কোন নিরপেক্ষ নির্বাচন যে হবেনা এটা তার একটা জলন্ত প্রমাণ। আমরা বিনা অপরাধে আটক মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারী জহির উদ্দিন মুহাঃ বাবরের নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করছি।
অপরদিকে বিবৃতিদাতারা প্রশাসনকে নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন চাইলে প্রশাসন এমন হয়রানিমূলক আটক অভিযান থেকে বিরত থাকতো। সরকার এবং প্রশাসন মিলে তামাশর নির্বাচন করে জনগণের সাথে প্রতারণা করছে। আর নির্বাচন কমিশন নামের প্রতিষ্ঠান হচ্ছে তাদের খেলার হাতিয়ার। আমরা অবিলম্বে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে ভোটের আগে আটক মহানগর সেক্রেটারীসহ সকলের নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করছি। বিবৃতিদাতারা হলেন, বাংলাদেশ জামায়াতের ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও বরিশাল মহানগর জামায়াতের আমীর এডভোকেট মুয়াযযম হোসাইন হেলাল, জেলা পশ্চিম জামায়াতের আমীর মাওলানা হাবিবুর রহমান ও জেলা পূর্ব জামায়াতের আমীর অধ্যাপক আবদুল জব্বার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ