ঢাকা, শনিবার 21 July 2018, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় যুবককে গলা কেটে হত্যা

 খুলনা অফিস : খুলনায় ফরহাদ হোসেন শেখ ওরফে আপন (৩২) নামের এক যুবককে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে নগরীর বয়রা আফজালের মোড় এলাকার একটি বাড়ি থেকে পুলিশ তার গলা কাটা লাশ ও একটি ধারালো চাকু  উদ্ধার করেছে। নিহত আপন রূপসা উপজেলার যুগিহাটী গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদ শেখের ছেলে। সে নগরীর শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী হিসেবে চাকরি করছিল।

বাড়িওয়ালা আবু জাফর নেভী জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে খবর পেয়ে গিয়ে দেখি ঘরে তালা দেয়া। ঘরের দরজার নিচ দিয়ে আপনের পা দেখা যাচ্ছে। পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ ঘরের তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে দেখে তার গলা কাটা লাশ মেঝেতে পড়ে রয়েছে। ঘরটি রক্তে ভেসে গেছে। তার পরণে একটি জাঙ্গীয়া। পুলিশ লাশ উক্ত ঘরে তালা দিয়ে রেখে সারারাত পাহারা দেয়। সকালে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। নিহতের মা কাদতে কাদতে জানান, আবু নাসের হাসপাতালের চাকরি ছেড়ে দিয়ে ব্যবসার জন্য চেষ্টা করছিল। এ জন্য গ্রামের কিছু জমি বিক্রি করে সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়ে ভাড়া বাড়িতে ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, আমার ছেলেকে খুন করে তার বন্ধুরা টাকাগুলো ও তার ব্যবহৃত দামী স্মার্ট ফোনটি নিয়ে গেছে। আমি আমার ছেলের হত্যাকারীদের বিচার চাই। এই কথা বললে বলতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। 

এ ব্যাপারে খালিশপুর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল খায়ের জানান, আপন আবু নাসের হাসপাতালে চাকরি করার কারণে নগরীর আফজালের মোড়ের আবু জাফর নেভীর ভাড়াটিয়া বাড়ির এক ঘর ভাড়া নিয়ে বসবাস করতো। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে আপনের ফোন বন্ধ পাওয়ায় তার বড়বোনসহ অন্যান্যরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। পরে রাত সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশের সহায়তায় আফজালের মোড়ের ভাড়া বাসার তালা ভেঙ্গে আপনের গলা কাটা রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। দুস্কৃতকারীরা আপনকে ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যার পর বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দিয়ে চলে যায়। ঘটনাস্থল থেকে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করা হয়েছে। আপনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ